scorecardresearch
 

বাড়ি লক্ষ্য করে বোমাবাজি! দলের নেতার বিরুদ্ধে বিস্ফোরক TMC নেতা

নিজের দলের নেতার বিরুদ্ধেই বোমাবাজির অভিযোগ তুললেন তৃণমূলের এক বুথ সভাপতি। অভিযোগ, তাঁর বাড়ির লক্ষ্য করে বোমা ছোঁড়া হয়। যদিও পাল্টা ওই বুথ সভাপতির সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন নিউটাউনের তৃণমূল নেতা তাপস চট্টোপাধ্যায়। তাঁর দাবি, এটা স্থানীয় গণ্ডগোল।

দলের নেতার বিরুদ্ধে বোমাবাজির অভিযোগ তৃণমূল নেতার। প্রতীকী ছবি- ইন্ডিয়া টুডে দলের নেতার বিরুদ্ধে বোমাবাজির অভিযোগ তৃণমূল নেতার। প্রতীকী ছবি- ইন্ডিয়া টুডে
হাইলাইটস
  • দলের নেতার অনুগামীদের বিরুদ্ধে বোমাবাজির অভিযোগ
  • অভিযোগ তৃণমূলের বুথ সভাপতির
  • নিউটাউনের ঘটনা

নিজের দলের নেতার বিরুদ্ধেই বোমাবাজির অভিযোগ তুললেন তৃণমূলের এক বুথ সভাপতি। অভিযোগ, তাঁর বাড়ির লক্ষ্য করে বোমা ছোঁড়া হয়। যদিও পাল্টা ওই বুথ সভাপতির সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন নিউটাউনের তৃণমূল নেতা তাপস চট্টোপাধ্যায়। তাঁর দাবি, এটা স্থানীয় গণ্ডগোল।

কী অভিযোগ ওই নেতার

পাথরঘাটা গ্রাম পঞ্চায়েতের ২১৭ নম্বর বুথের প্রেসিডেন্ট বাবলু মোল্লা অভিযোগ করেন, "তাঁর বাড়ি লক্ষ্য করে বোমা ছোঁড়া হয়েছে। যারা এই কাজগুলি করেছেন, তারা আদতে তাদের দলের সদস্য। আমি সেক্টর ফাইভে কাজ করি। আমার ছেলেই প্রধানত এখানে দলের দায়িত্ব সামলায়। আমার স্ত্রী অসুস্থ। বোমার শব্দে আমি পড়শিদের ডাকি। তারপরে পুলিশে খবর দিই। কিন্তু পুলিশ এসে বলে এগুলি চকোলেট বোম। কিন্তু পরের দিন সকালে আমি বাড়ির সামনে কিছু বোমা পড়ে থাকতে দেখি। তারপরে পুলিশ এসে বোমাগুলি উদ্ধার করে। আমি একজন বুথ প্রেসিডেন্ট। আমি গোটা ঘটনায় প্রশাসনিক তদন্তের দাবি জানাচ্ছি। এক নেতার অঙ্গুলিহেননে এখানে দলের হয়ে আরেকটা পার্টি অফিস বানানো হয়েছে। আমদের না জানিয়েই তা করা হয়েছে, আমরা তার বিরোধিতা করি। তার জেরেই এই হামলা বলে অনুমান।"

অভিযোগের সুর ছেলের মুখেও

ঘটনার পরে তাঁর ছেলে বুবাই মোল্লা জানান, "আমি চাই প্রশাসন সঠিক তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিক। আমি একজন সক্রিয় তৃণমূল কর্মী। আমার বাবা বুথ প্রেসিডেন্ট। যারা হামলা চালিয়েছে তারাও তৃণমূল কর্মী।  তারা তৃণমূল নেতা তাপস চট্টোপাধ্যায়ের সমর্থক। আমরা প্রবীর দা'র সমর্থক।  এর আগেও এমন ঘটনা হয়েছে। যদিও আগে প্রশাসন কড়া পদক্ষেপ নিত, তাহলে এমন ঘটনা হত না। আমি সঠিক ভাবে বলতে পাচ্ছি না কে এই ঘটনার পিছনে রয়েছে। কিন্তু আমার মনে হচ্ছে ঘটনার পিছনে তাপস চট্টোপাধ্যায়ের হাত রয়েছে। ওই তৃণমূলকর্মীকে কাউকে না জানিয়ে এখানে একটা আলাদা পার্টি অফিস বানিয়েছে। সেখানে মদ্যপ অবস্থায় বসে সবাইকে গালিগালাজ করে তারা। "

অভিযোগ অস্বীকার তাপস চট্টোপাধ্যায়ের

যদিও যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করে দিয়েছেন তৃণমূল নেতা তাপস চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেন, "দলের মধ্যে থেকে নির্দিষ্ট কারোর সমর্থক হয় এখানে। সবাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমর্থক। আমার ভাবমূর্তি ক্ষুগ্ন করার চেষ্টা চলছে। আমি পাথরঘাটার রাজনীতির সঙ্গে সরাসরি যুক্ত নই। আমি ওখানকার কোর্ডিনেটর পদে রয়েছি। তবে শুনেছি স্থানীয় কিছু সমস্যা হয়েছে। বোমা হামলা হলে পুলিশ তদন্ত করবে। আইন তার অনুযায়ী চলবে। তাপস চট্টোপাধ্যায় সবসময় সবাইকে সাহায্য করেন। তিনি বোম ও গুলি চালান না। তাঁরা আমার ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য এসব বলছে। এর সবাই দলবিরোধী। বিজেপির হাত শক্ত করার জন্য এসব বলছে। "