scorecardresearch
 
 

'খাবো না আমরা চা!' এবার চায়ের দোকানই খুলে ফেললেন Viral চা-কাকু

'আমরা কি চা খাবো না, খাবো না আমরা চা!' সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে এই বাক্যটির সঙ্গে পরিচিত এখন সকলেই।  সালটা ২০২০। করোনা মহামারির জেরে গোটা দেশে প্রথমবার লকডাউন ঘোষণা করা হয়। যেদিন লকডাউন ঘোষণা করা হয়, তারপরের দিনই কলকাতায় এক ভিডিও ভাইরাল হয়। কলকাতার বাসিন্দা এক তরুণী তাঁর বাড়ির পাশে একটি খোলা চায়ের দোকানের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করেন।

নিজের দোকানের সামনে মৃদুল দেব নিজের দোকানের সামনে মৃদুল দেব
হাইলাইটস
  • চায়ের দোকানই খুলে ফেললেন ভাইরাল চা-কাকু
  • সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল সেই পোস্ট
  • দিয়েছেন চায়ের দোকানের ঠিকানাও

'আমরা কি চা খাবো না, খাবো না আমরা চা!' সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে এই বাক্যটির সঙ্গে পরিচিত এখন সকলেই।  সালটা ২০২০। করোনা মহামারির জেরে গোটা দেশে প্রথমবার লকডাউন ঘোষণা করা হয়। যেদিন লকডাউন ঘোষণা করা হয়, তারপরের দিনই কলকাতার এক ভিডিও ভাইরাল হয়। কলকাতার বাসিন্দা এক তরুণী তাঁর বাড়ির পাশে একটি খোলা চায়ের দোকানের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করেন। সেখানে ওই তরুণী প্রশ্ন করেন, 'লকডাউনের মধ্যে কেন চায়ের দোকান খোলা রয়েছে?' তার উত্তরে ওই চায়ের দোকানের কিছু লোকের অভিব্যক্তি সোশ্যাল মিডিয়ায় কার্যত ঝড় তুলে দেয়। ওই দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা একজন বলেন, "চা খেতে এসেছি, আড্ডা মারতে নয়। চা খাওয়া হয়ে গিয়েছে। চলে যাচ্ছি।" তারপরেই আরেক প্রৌঢ় জবাব দেন, "আমরা কি চা খাবো না, খাবো না আমরা চা?" শুধু এইটুকু একটু কথা, আর তা রীতিমতো ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। মিম থেকে শুরু করে বিভিন্ন রকম জোকস সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে চলতে থাকে।

চা খাওয়ার বিশেষ এই উক্তিটি করেছিলেন মৃদুল দেব। পরের বিভিন্ন ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে জানা যায় আদতে মৃদুলবাবু একজন ঠিকা শ্রমিক। লকডাউনে প্রবল সমস্যায় তিনি মাটি কাটার কাজ করছিলেন। সংসারে রয়েছে প্রবল অনটন। সেই ভিডিওগুলি ভাইরাল হতেই আসতে থাকে প্রচুর সাহায্য। প্রচুর সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে বিভিন্ন সংগঠন তাঁর পাশে দাঁড়ান। সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি পরিচিত হন চা কাকু নামে। সাংসদ মিমি চক্রবর্তী নিজে সাহায্য করেছিলেন তাঁকে। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের ফাউন্ডেশনও বাড়িয়ে দিয়েছিল সাহায্যের হাত। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে সেই চা কাকু ওরফে মৃদুল বাবুই হয়ে উঠেছিলেন একজন কোভিড ওয়ারিয়র।

এবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ফের ভাইরাল সেই মৃদুল দেব। চা কাকু খুলে ফেলেছেন নিজের একটা চায়ের দোকান। সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করতেই রীতিমতো ভাইরাল হয়ে যায়। প্রচুর লোক সেখানে চা খাওয়ার জন্য কমেন্ট করতে থাকেন। নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুক প্রোফাইল থেকেই পোস্ট করেছিলেন মৃদুল দেব। দেওয়া হয়েছে সেই চায়ের দোকানের ঠিকানাও। ১১/৩/সি, বিজয়গড়, কলকাতা-৭০০০৩২। একসময়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল চা কাকুই, এখন ফের ভাইরাল নিজের চায়ের দোকান খোলার সুবাদে।