27 September, 2023

BY- Aajtak Bangla

গ্রাম-বাংলার এই বড়ি খেতে দারুণ, জানুন গয়না বড়ির সহজ রেসিপি

বাংলার গ্রামের ঐতিহ্য বলা চলে এই গয়না বড়ি। তমলুক মহিষাদলসহ পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় ঘরে ঘরে চলে এই বড়ি তৈরির কাজ।

পূর্ব মেদিনীপুরের ঐতিহ্যশালী এই বড়ি খেতে ভালবাসতেন বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, সত্যজিৎ রায় সহ বিশিষ্টরা।

তবে শহরে এই বড়ি তৈরির রেওয়াজও যেমন নেই তেমনই পাওয়াও বেশ দুষ্কর।

বিউলির ডালকে জলে ভিজিয়ে বেটে, পোস্ত বা তিলের ওপর দেওয়া হয় গহনা বড়ি। প্রজন্মের পর প্রজন্ম এই গহনা বড়িতে মজে।

এই গয়না বড়ি বাড়িতেই তৈরি করতে পারেন। যদি আপনি সৃজনশীলতায় দক্ষ হন। আসুন তাহলে জেনে নিন।

উপকরণ বলতে এক কাপ খোসা ছড়ানো বিউলির ডাল ও প্রয়োজন মতো পোস্ত।

বিউলির ডাল ৬-৭ ঘণ্টা বা সারারাত ভিজিয়ে সকালে গ্রাইন্ডারে দিয়ে বেটে নিন।

বাটার জন্য সামান্য জল ব্যবহার করে মসৃণ করে বাটুন। এইবার মিশ্রণটি একটা বড় বাটিতে নিয়ে হাত দিয়ে বা হুইস্কারের সাহায্যে ১৫-২০ মিনিট ফেটান।

যাতে মিশ্রণটি হাওয়া মিশে একটু ঘন অথচ হালকা মতো হয়ে যায়। মিশ্রণ যত হালকা হবে গয়না বড়ি তত ভালো হবে।

বার ডালের মিশ্রণটি একটা জিপ লক ব্যাগে বা বড়ি দেওয়ার কাপড়ে নিয়ে নিন।

থালাতে সামান্য কয়েক ফোটা সর্ষের তেল মাখিয়ে তার উপর পোস্ত সমান করে ছড়িয়ে নিন।

এবার জিপ লক ব্যাগের এক কোণ কেটে থালার উপর গয়নার আকারে বা কলকা করে নিজের মন মত বড়ি দিতে থাকুন।

তারপর সব বড়ি দেওয়া হয়ে গেলে থালাটি রোদে রাখুন। মোটামুটি ২দিন টানা রোদ খেলেই বড়ি গুলো শুকিয়ে শক্ত হয়ে যাবে।

এবার সেই শুকনো বড়ি গুলো পরিষ্কার কৌটে তুলে রাখুন সাবধানে যাতে ভেঙে না যায়। যখন খাবেন বা পরিবেশন করবেন তার আগে ভেজে নিন।

Next: শীত আসতেই দাড়িতে খুশকি? এবার মিটবে চিরতরে