scorecardresearch
 

Anish Deb: করোনায় প্রয়াত প্রখ্যাত সাহিত্যিক অনীশ দেব

চলে গেলেন সাহিত্যিক অনীশ দেব (Anish Deb)। কিছু দিন আগে করোনা আক্রান্ত (Covid-19) হয়েছিলেন তিনি। শহরের একটি নামী বেসরকারী হাসপাতালে ভরতি ছিলেন তিনি। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রথমে হাসপাতালে ভরতি হলেও সেখানেই কোভিড টেস্টের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। ভেন্টিলেশনে রেখা হয় তাঁকে। ২৮ এপ্রিল বুধবার সকাল ৭টা নাগাদ মৃত্যু হয় তাঁর। মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৭০ বছর।

হাইলাইটস
  • কবি শঙ্খ ঘোষের (Shankha Ghosh) পর আরও এক খ্যতনামা সাহিত্যিককে কেড়ে নিল করোনা।
  • শহরের একটি নামী বেসরকারী হাসপাতালে ভরতি ছিলেন তিনি। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রথমে হাসপাতালে ভরতি হলেও সেখানেই কোভিড টেস্টের রিপোর্ট পজিটিভ আসে।
  • ন্টিলেশনে রেখা হয় তাঁকে। ২৮ এপ্রিল বুধবার সকাল ৭টা নাগাদ মৃত্যু হয় তাঁর।

কবি শঙ্খ ঘোষের (Shankha Ghosh) পর আরও এক খ্যতনামা সাহিত্যিককে কেড়ে নিল করোনা। চলে গেলেন সাহিত্যিক অনীশ দেব (Anish Deb)। কিছু দিন আগে করোনা আক্রান্ত (Covid-19) হয়েছিলেন তিনি। শহরের একটি নামী বেসরকারী হাসপাতালে ভরতি ছিলেন তিনি। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রথমে হাসপাতালে ভরতি হলেও সেখানেই কোভিড টেস্টের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। ক্রমে শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। ভেন্টিলেশনে রেখা হয় তাঁকে। ২৮ এপ্রিল বুধবার সকাল ৭টা নাগাদ মৃত্যু হয় তাঁর। মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৭০ বছর। অনীশ দেবের প্রয়াণে শোকস্তব্ধ বাংলা সাহিত্য জগৎ। 

অনীশবাবুর পরিবার সূত্রে খবর, বেশ কিছুদিন ধরেই অসুস্থ বোধ করছিলেন প্রবীণ লেখক। হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ায় তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়। সেখানেই বাড়তে থাকে জটিলতা। মঙ্গলবার তাঁকে রক্তও দেওযা হয়। তবে শেষ রক্ষা হল না। চিকিৎসকদের সব চেষ্টা ব্যর্থ করে চলে গেলেন জনপ্রিয় বাংলা লেখক। রহস্য রোমাঞ্চ গল্প লেখক হিসাবে বিশেষ খ্যাতি ছিল তাঁর।

সাহিত্যিক অনীশ দেবের জন্ম ১৯৫১ সালে কলকাতায়। লেখালিখি শুরু করেন ১৯৬৮ সালে। তাঁর উল্লেখযোগ্য উপন্যাস ও গল্পগ্রন্থ– ঘাসের শীষ নেই, সাপের চোখ, তীরবিদ্ধ, জীবন যখন ফুরিয়ে যায় ইত্যাদি। সম্পাদনা করেছেন সেরা কল্পবিজ্ঞান, সেরা কিশোর কল্পবিজ্ঞান ইত্যাদি গ্রন্থ। তাঁর জনপ্রিয় বিজ্ঞান গ্রন্থ–- বিজ্ঞানের হরেকরকম, হাতে কলমে কম্পিউটার, বিজ্ঞানের দশদিগন্ত ইত্যাদি। ২০১৯ সালে কিশোর সাহিত্যে জীবনব্যাপী অবদানের জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিদ্যাসাগর পুরস্কারে সম্মানিত হন অনীশ দেব। এর আগে প্রাচীন কলাকেন্দ্র সাহিত্য পুরস্কার (১৯৯৮) ও ডঃ জ্ঞানচন্দ্র ঘোষ পুরস্কারে (১৯৯৯) সম্মানিত হয়েছেন তিনি।

বাবার মৃত্যুতে ভেঙে না পড়ে পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছেন মোনালিসা। সংবাদ মাধ্যমে তিনি জানিয়েছেন, কোভিড পজিটিভ হওয়ার পর থেকে খুব দ্রুত শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। প্রয়োজন ছিল প্লাজমা ডোনারের। পরচিত বন্ধু-বান্ধব মারফত সে সবের ব্যবস্থাও করা হয়েছিল। তবে অনীশবাবুকে ধরে রাখা গেল না।