scorecardresearch
 

Rituparna Sengupta as Devi Durga: মহালয়ায় প্রথমবার মহিষাসুরমর্দিনী ঋতুপর্ণা! রয়েছে আরও চমক...

Mahisasurmardini on Television: শুধু রেডিও না টেলিভিশনের পর্দায়, মহালয়া দেখার উৎসাহ কম থাকে না। সেই সঙ্গে কে সাজবেন দেবী দুর্গা রূপে, এই নিয়ে থাকে কৌতূহল।

মহিষাসুরমর্দিনী রূপে অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত মহিষাসুরমর্দিনী রূপে অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত

চারিদিকে পুজো পুজো গন্ধ। আশ্বিনের 'শারদ প্রাতে' আলোকবেণু বাজতে আর কয়েকদিন অপেক্ষা। মহালয়ার (Mahalaya) দিন ভোরে বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্রের (Birendra Krishna Bhadra) কন্ঠে মহিষাসুরমর্দিনীর (Mahisasurmardini) শোনার রীতি বাঙালির যুগ যুগ ধরে চলে আসছে। তবে শুধু রেডিও না টেলিভিশনের পর্দায়, মহালয়া দেখার উৎসাহ কম থাকে না। সেই সঙ্গে কে সাজবেন দেবী দুর্গা (Devi Durga) রূপে, এই নিয়ে থাকে কৌতূহল। আগে শুধু দূরদর্শনে সম্প্রচারিত হলেও, বর্তমানে প্রথম সারির চ্যানেলগুলিতে দেখা যায় মহালয়া।

দেবীপক্ষের (Devi Paksha) সূচনায় প্রতিবারই চ্যানেলগুলির মধ্যে একটা প্রতিযোগিতা থাকে, কে হবেন দেবী দুর্গা এই নিয়ে। আর সেরকমই থাকে একে অপরের সঙ্গে টক্কর ও চমক। এই বছর কালার্স বাংলা চ্যানেলের মহিষাসুরমর্দিনী রূপে দেখা যাবে ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তকে (Rituparna Sengupta)। প্রথমবার মহালয়ায়, কোনও টেলিভিশনে দেবী দুর্গা সাজবেন অভিনেত্রী। সম্প্রতি রাজ্য সরকার তাঁকে বঙ্গভূষণ সম্মানে সম্মানিত করেছে। কয়েক যুগ ধরে টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে রাজত্ব করে আসলেও, এবার একেবারে নয়া ভূমিকায় ঋতুপর্ণাকে দেখা যাবে। 

 

Mahalaya 2022 Rituparna Sengupta will be essaying the role of Mahisasurmardini Devi Durga in bengali television

 

আরও পড়ুন: ফের এক ফ্রেমে পরম-স্বস্তিকা! রাজনৈতিক- থ্রিলারধর্মী ছবি 'শিবপুর'-এ রয়েছে আরও চমক

ইতিমধ্যে সামনে এসেছে কালার্স বাংলার 'দেবী দশমহাবিদ্যা'  (Debi Doshomohabidya)-র প্রথম ঝলক। ঋতুপর্ণা ছাড়াও দেবীর বিভিন্ন রূপে থাকছে আরও চমক। শোনা যাচ্ছে গত বছরের মতো এবারও থাকবেন অনেক শিল্পীরা। তবে কারা থাকছে, সে বিষয় এখনও কিছু তথ্য মেলেনি। গত বছর এই চ্যানেলে দেবী দুর্গা রূপে সকলের মন জয় করেছিলেন কোয়েল মল্লিক। 

 

 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

A post shared by Colors Bangla (@colorsbangla)

 

আরও পড়ুন: হানিমুনে ঋদ্ধি -খড়িরা! স্যুইমওয়্যারে অভিনেতাদের কীর্তি মুহূর্তে ভাইরাল

মহালয়ার দিন পিতৃপক্ষের অবসান হয়ে, মাতৃপক্ষ শুরু হয়। মনে করা হয়, সেদিনই আক্ষরিক অর্থে দুর্গাপুজোর সূচনা হয়। মহালয়া শব্দটির অর্থ, মহান আলয় বা আশ্রম। এক্ষেত্রে দেবী দুর্গাই হলেন, সেই মহান আলয়। মহালয়ার দিন পিতৃ পুরুষদের উদ্দেশ্যে তর্পণ করার রীতি প্রচালিত আছে। এদিনই দেবীর দুর্গার চক্ষুদান হয়। এই বছর মহালয়া পড়েছে ২৫ সেপ্টেম্বর (৮ আশ্বিন), রবিবার।