scorecardresearch
 

PM Narendra Modi করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিলেন, টুইটে জানালেন এর প্রয়োজনীয়তা

এর পাশাপাশি মানুষকে টিকা নেওয়ার ব্যাপারে উৎসাহ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (PM Narendra Modi)। করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে টিকা যে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, সে কথা মনে করিয়ে দিয়েছেন। এদিন দিল্লির এইমসে করোনার টিকা নিয়েছিন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী
হাইলাইটস
  • করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী
  • বৃহস্পতিবার তিনি ওই টিকা নেন
  • টুইটে নিজেই সে কথা জানিয়ছেন

করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (PM Narendra Modi)। বৃহস্পতিবার তিনি ওই টিকা নেন। টুইটে নিজেই সে কথা জানিয়ছেন।

এর পাশাপাশি মানুষকে টিকা নেওয়ার ব্যাপারে উৎসাহ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (PM Narendra Modi)। করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে টিকা যে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, সে কথা মনে করিয়ে দিয়েছেন। এদিন দিল্লির এইমসে করোনার টিকা নিয়েছিন তিনি।

টুইটে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (PM Narendra Modi) লিখিছেন, করোনা-১৯ টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিলাম। করোনাকে হারাতে টিকা অন্যতম একটি উপায়। আপনারা যদি টিকা নেওয়ার উপযুক্ত হয়ে থাকেন, তাড়াতাড়ি তা নিয়ে নিন। নিজের নাম নথিভুক্ত করুন।

কোথায় নাম নথিভুক্ত করতে হবে, সে কথাও জানিয়ে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (PM Narendra Modi)। CoWin.gov.in ওয়েবসাইটে নাম লেখাতে হবে। টুইটে সে কথা জানিয়ে দিয়েছেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (PM Narendra Modi) টিকা নেওয়ার সময় সেখানে ছিলেন দু'জন নার্স। জানা গিয়েছে, তাঁদের মধ্যে একদন হলেন পি নিভেদা। তিনি। তিনি থাকেন পুদুচেরিতে। আর একজনের নাম নিশা শর্মা। তাঁর বাড়ি পঞ্জাবে।

এদিকে, ভয়াবহ আকার ধারণ করছে করোনা। গত বছর থেকে এ পর্যন্ত গোটা করোনা কালে এই প্রথমবার ১ লক্ষ ২৫ হাজার ছাড়াল দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা। এদিকে তারমধ্যেই  উঠেছে ভ্যাকসিন ঘাটতির অভিযোগ।

যা নিয়ে ইতিমধ্যেই কেন্দ্র ও বিভিন্ন রাজ্য সরকারগুলির মধ্যে দেখা দিয়েছে বিরোধে আবহ।মহারাষ্ট্র ও অন্ধ্রপ্রদেশের তরফে বলা হয়েছে তারা কেন্দ্রকে ভ্যাকসিনের ঘাটতির কথা জানিয়েছে। পাশাপাশি ভ্যাকসিনের ঘাটতি সংক্রান্ত সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে বলে জানাচ্ছে ছত্তীসগঢ় ও ওডিশাও। 

যদিও কেন্দ্রের তরফে দাবি করা হয়েছে যে ভ্যাকসিনের কোনও ঘাটতি নেই এবং রাজ্যগুলিকে প্রয়োজন অনুযায়ী সরবরাহ করা হবে। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারির মাসের মাঝামাঝি থেকেই ফের ঊর্ধ্বমুখী করোনা গ্রাফ।

পাশাপাশি কেন্দ্রের তথ্য অনুযায়ী সুস্থতার হার দাঁড়িয়েছে ৯২.১১ শতাংশে।  এর মধ্যে মহারাষ্ট্র, ছত্তীসগঢ়, কর্ণাটক, উত্তরপ্রদেশ, দিল্লি, মধ্যপ্রদেশ, তামিলনাডু ও কেরলের করোনা সংক্রমণ মারাত্মক আকার নিয়েছে। বুধবার দেশে করোনায় নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ২৫ হাজার ছাড়িয়েছে।