scorecardresearch
 

দেশের শীর্ষ ১০০ ধনীর হাতে ৫৮ লক্ষ কোটি, ১ বছরে আদানির সম্পত্তি বৃদ্ধি ৩ গুণ

লাগাতার ১৪ বছর ধরে শীর্ষে রইলেন মুকেশ আম্বানি। টানা তৃতীয় বছর ২য়ে গৌতম আদানিও। এক বছরে আদানির সম্পত্তি বেড়েছে তিনগুণ। সম্প্রতি ফোর্বস ইন্ডিয়া দেশের সেরা একশো ধনীর তালিকা প্রকাশ করল।

আম্বানি আর আদানি আম্বানি আর আদানি
হাইলাইটস
  • ১৪ বছর ধরে শীর্ষে মুকেশ আম্বানি
  • দেশের সেরা একশোর হাতে সিংহভাগ সম্পত্তি
  • এক বছরে আদানির সম্পত্তি বাড়ল তিনগুণ

বিখ্যাত বিজনেস ম্যাগাজিন ফোর্বস, ২০২১ এ ভারতের ১০০ জন ধনী ব্যক্তির তালিকা প্রকাশ করেছে। এর মধ্যে দেখা গিয়েছে, ১০ জন ধনীর মধ্যে মোট সম্পত্তি ৭৭৫ আরব ডলার অর্থাৎ ৫৮.০৬ লক্ষ কোটি টাকায় পৌঁছে গিয়েছে।

আম্বানি ১, আদানি ২

এই সূচিতে ৯২.৭ আরব ডলার অর্থাৎ ৬.৮৯  লক্ষ কোটি টাকার সম্পত্তির সাথে রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ এর চেয়ারম্যান মুকেশ আম্বানি এবারও এক নম্বরে রয়েছেন। ফোর্বস এশিয়ার নবীনতম অর্থনৈতিক হিসেবে পাওয়া তালিকা অনুযায়ী ৭৪.৪৪ আরব ডলার অর্থাৎ ৫.৬ লক্ষ কোটি টাকার নেটওয়ার্ক এর সাথে আদানি গ্রুপের চিফ গৌতম আদানি এই তালিকায় দ্বিতীয় নম্বরে রয়েছেন।

ভারতের প্রশংসা ফোর্বসের

এই রিপোর্টে ভারতের প্রশংসা করে বলা হয়েছে কোভিড-১৯ এর দ্বিতীয় ওয়েভেও দুর্দান্তভাবে মোকাবিলা করে ভারত বিশ্বের ষষ্ঠতম অর্থনৈতিক শক্তি হিসেবে লগ্নিকারীদের ভরসা আদায় করতে সক্ষম হয়েছে। শেয়ার বাজারে বিএএসই বেঞ্চমার্ক সেন্সেক্স-এ এক বছরের ৫২ শতাংশ বেড়েছে। এর কারণে দেশের ১০০ জন ধনীর আর্থিক স্তর উচ্চমানে পৌঁছে গিয়েছে। গত ১২ মাসে তাদের আর্থিক বৃদ্ধি ৫০ শতাংশ অর্থাৎ ২৫৭ আরব ডলার থেকে ৭৭৫ আরব ডলার পর্যন্ত পৌঁছে গিয়েছে।

আদানির সম্পত্তির ৩ গুণ বৃদ্ধি

আদানির সম্পত্তি ৩ গুণ বেড়েছে। রিপোর্ট অনুসারে এই সম্পত্তি বৃদ্ধি প্রায় কুড়ি শতাংশ একাই গৌতম আদানির একার সম্পত্তি বেড়েছে। তার সম্পত্তি এক বছরে তিনগুণ বেড়ে ৭৪, ৮৫ আরব ডলার অর্থাৎ ৬ লক্ষ কোটি টাকা হয়েছে। তিনি ধনীদের এই তালিকায় লাগাতার তৃতীয় বছর দুই নম্বরে জায়গা ধরে রেখেছেন।

১৪ বছর ধরে শীর্ষে মুকেশ

মুকেশ আম্বানি সূচিতে লাগাতার ২০০৮ সাল থেকে টানা এক নম্বরে জায়গা ধরে রেখেছেন। ৩৩১ ডলারের সম্পত্তির সঙ্গে এইচসিএল এর ফাউন্ডার শিব নাডর তৃতীয় স্থানে রয়েছেন। ২৯.৪ লক্ষ কোটি টাকার সঙ্গে রাধাকৃষ্ণ দামানি তালিকায় চতুর্থ স্থানে রয়েছেন। এই তালিকায় সাইরাস পুনাওয়ালা ৫, লক্ষ্মী মিত্তল ৬, সাবিত্রী জিন্দল ৭, উদয় কোটাক ৮ পালোনজি মিস্ত্রী ৯ এবং কুমার মঙ্গলম বিরলা ১০ম স্থানে রয়েছেন।