scorecardresearch
 

Jahangirpuri violence: হনুমানজয়ন্তীর মিছিলকে ঘিরে দিল্লির জাহাঙ্গিরপুরীতে হিংসা, ঠিক কী হয়েছিল?

হনুমানজয়ন্তীর মিছিলকে ঘিরে দিল্লির জাহাঙ্গিরপুরীতে হিংসা, ঠিক কী হয়েছিল? নমাজের সময়ের কাছাকাছি মিছিল যাওয়াতেই সমস্যা? না অন্য কোনও ঘটনা! পুলিশ কেন চুপ?

হনুমানজয়ন্তীকে ঘিরে হিংসার পর দিল্লীর জাহাঙ্গিরপুরী হনুমানজয়ন্তীকে ঘিরে হিংসার পর দিল্লীর জাহাঙ্গিরপুরী
হাইলাইটস
  • হনুমানজয়ন্তীর মিছিলকে ঘিরে দিল্লিতে হিংসা
  • র জাহাঙ্গিরপুরীতে হিংসায় উত্তপ্ত এলাকা, জখম একাধিক
  • এখনও পর্যন্ত গ্রেফতার ১৫ জন

শনিবার সন্ধ্যায় উত্তর-পশ্চিম দিল্লির জাহাঙ্গীরপুরী এলাকায় হনুমান জয়ন্তীর মিছিল চলাকালীন দুই সম্প্রদায়ের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষ পরবর্তী হিংসতায় বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। পুলিশ জানায়, শনিবার সন্ধ্যা ৬ টা নাগাদ সংঘটিত সহিংসতায় পাথর ছোঁড়ে এবং কয়েকটি গাড়িতে আগুন দেওয়া হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ওই এলাকায় নিরাপত্তাকর্মী মোতায়েন করা হয়েছে। দিল্লি পুলিশ শনিবার রাতে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। একটি এফআইআর দায়ের করা হয়েছে এবং জিজ্ঞাসাবাদের জন্য প্রায় পনেরো জনকে হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

৭ জন আহত, ১৫ আটক

এ ঘটনায় মোট সাতজন আহত হয়েছেন। এর মধ্যে ছয়জন পুলিশ এবং একজন সাধারণ নাগরিক রয়েছে। আহতদের বাবু জগজীবন রাম মেমোরিয়াল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ একটি এফআইআর দায়ের করেছে এবং ১৫ জন সন্দেহভাজনকে আটক করেছে, দিল্লির পুলিশ কমিশনার জানিয়েছেন। তিনি বলেন, স্থানীয় পুলিশ ঘটনাটি তদন্ত করবে, অন্তত শুরু করে।

ড্রোন, সিসিটিভি ফুটেজ

ঘটনার মূল দোষীদের শনাক্ত করতে সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখছে দিল্লি পুলিশ। বাড়ির ছাদে পাথর জমা ছিল কিনা তা দেখতে ড্রোন ফুটেজও ব্যবহার করছে পুলিশ। সংঘর্ষের একটি নতুন ভিডিও প্রকাশিত হয়েছে যাতে কিছু লোককে দিল্লি পুলিশের সামনে তলোয়ার ছুড়তে দেখা যায়।

পুলিশি টহল

এদিকে, শনিবার সন্ধ্যায় সাম্প্রদায়িক সংঘর্ষের পরিপ্রেক্ষিতে উত্তরপ্রদেশের গৌতম বুদ্ধ নগরে পুলিশ উচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করে এবং নিবিড় টহল চালায়।

ভারী নিরাপত্তা স্থাপনা

দিল্লির জাহাঙ্গীরপুরী এলাকায় রবিবার সকালেও কড়া নিরাপত্তা মোতায়েন ছিল।নিবিড় টহল
এদিকে, শনিবার সন্ধ্যায় সাম্প্রদায়িক সংঘর্ষের পরিপ্রেক্ষিতে উত্তরপ্রদেশের গৌতম বুদ্ধ নগরে পুলিশ উচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করে এবং নিবিড় টহল চালায়।

অমিত শাহের নির্দেশ

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ শনিবার পুলিশ কমিশনার এবং বিশেষ কমিশনার (আইন শৃঙ্খলা) এর সাথে কথা বলেছেন এবং তাদের হিংসার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় সমস্ত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বলে, সূত্র জানিয়েছে।দিল্লি পুলিশ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের শীর্ষ কর্মকর্তাদের পরিস্থিতি সম্পর্কে অবহিত করেছে।

মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়ালের আবেদন

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়াল বলেছেন যে ঘটনাটি অত্যন্ত নিন্দনীয় এবং শান্তি বজায় রাখার জন্য সকলের কাছে আবেদন জানিয়েছেন। তিনি বলেছিলেন যে লেফটেন্যান্ট গভর্নর তাকে আশ্বস্ত করেছেন যে শান্তি সুরক্ষিত করার জন্য সমস্ত পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে এবং দোষীদের ছাড় দেওয়া হবে না।

"দিল্লির জাহাঙ্গীরপুরীতে শোভাযাত্রায় (মিছিল) পাথর ছোড়ার ঘটনা অত্যন্ত নিন্দনীয়। দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। সকলের কাছে আবেদন - শান্তি বজায় রাখুন এবং একে অপরকে ধরে রাখুন," কেজরিওয়াল টুইট করেছেন।

অভিযোগ ঠিক কী?

বিকেল ৫ টা ৪০ নাগাদ জাহাঙ্গীরনগরের ওই মসজিদের সামনে দিয়ে হনুমান জয়ন্তীর শোভাযাত্রা যাচ্ছিল। অন্যদিকে সেই সময় সান্ধ্য নমাজের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন এক সম্প্রদায়ের মানুষ। এর মধ্যেই আচমকা বাদানুবাদন, হাতহাতি শুরু হয়। এক পক্ষের অভিযোগ, মসজিদে গেরুয়া ঝাণ্ডা লাগানোর চেষ্টা করা হয়। তা ছাড়া জোরে মিউজিক বাজানো হচ্ছিল বলে অভিযোগ। অন্যদিকে হনুমান জয়ন্তীর সমর্থকরা দাবি করেন, তাঁদের উপর হামলা করা হয় পরিকল্পিতভাবে। পুলিশের ধারণা গুলি চালানো হয়েছে। যদিও তা নিয়ে এখনও মুখ খোলেননি তাঁরা।

ঘটনা পরম্পরা ও রহস্য

বিকেল ৪ টা নাগাদ হনুমান জয়ন্তীর মিছিল শুরু হয় জাহাঙ্গীরনগরে। শোভাযাত্রা K ব্লক পর্যন্ত যাওয়ার ছিল। ঘটনাস্থলে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত যায়। তারপরই বাদানুবাদ থেকে গোলমাল বড় আকার ধারণ করে। গোলমাল থামাতে গিয়ে ৬ জন পুলিশকর্মী ঘায়েল হয়। ৭ টা নাগাদ বড় পুলিশ বাহিনী পৌঁছয়। অন্যদিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে আরও ঘন্টা খানেক সময় লাগে।

 

 
; ; ;