scorecardresearch
 

বিজেপির উত্তরবঙ্গে ভাল ফল, পৃথক রাজ্যের দাবি জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়

বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা শেষ হতেই উত্তরবঙ্গকে পৃথক রাজ্যের দাবি জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় উঠলো। ফেসবুক,ইনস্টাগ্রাম,হোয়াটসঅ্যাপে এই দাবি জানিয়ে একের পর এক পোস্ট করা হচ্ছে।

ডুয়ার্স নিয়েই যত আলোচনা ডুয়ার্স নিয়েই যত আলোচনা
হাইলাইটস
  • সোস্যাল মিডিয়ার প্রকাশ গ্রাফিক্স
  • চুপ বিজেপি নেতারা, নাকচ করল তৃণমূল
  • উত্তর হোক পৃথক রাজ্য, মানসিকতা আলাদা

বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা শেষ হতেই উত্তরবঙ্গকে পৃথক রাজ্যের দাবি জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় উঠলো। 

ঝড় কোথায়

ফেসবুক,ইনস্টাগ্রাম,হোয়াটসঅ্যাপে এই দাবি জানিয়ে একের পর এক পোস্ট করা হচ্ছে।

কোথায় কোথায় ভাল ফল

বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফলের গণনার পর দেখা গেছে উত্তরবঙ্গের পাঁচ জেলায় গেরুয়া শিবির অভূতপূর্ব ফল করেছে। যেখানে রাজ্যের অন্যান্য জেলাগুলোতে তৃণমুল দলের কাছে কার্যত ল্যাজেগোবরে হয়েছে পদ্ম বাহিনী, সেখানে উত্তরের পাঁচ জেলাতে একক দাপট দেখিয়েছে কেন্দ্রের শাসক দল।
উত্তরের পাঁচ জেলার মধ্যে দার্জিলিং,আলিপুরদুয়ারে এবং কালিম্পং জেলায় খাতাই খুলতে পারেনি রাজ্যের শাসক দল তৃণমুল।

পৃথক রাজ্যের দাবি

এই সুযোগে উত্তরবঙ্গের পাঁচটি জেলা নিয়ে এই পৃথক রাজ্যের দাবি করা হচ্ছে। এই পাঁচটি জেলার মধ্যে দার্জিলিং, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, জলপাইগুড়ি, এবং কালিম্পং জেলাকে রাখা হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখা গিয়েছে উত্তরবঙ্গকে পৃথক রাজ্যের দাবি করে পোষ্ট করছেন বিজেপি কর্মী, সমর্থকরা। বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফলের পর দেখা গেছে উত্তরের এই পাঁচ জেলায় বিজেপির কাছে রাজ্যের শাসক দল কার্যত ধুয়েমুছে সাফ হয়ে গেছে। তাই মানসিকতা যখন আলাদা তখন আলাদা জেলা নয় কেন? এই দাবিতেই সরব হয়েছেন তাঁরা।

কোন জেলায় কার কত আসন

এই পাঁচ জেলায় মোট সাতাশটি বিধানসভা কেন্দ্র রয়েছে। এই সাতাশটি আসনের মধ্যে তৃণমূল পেয়েছে মাত্র পাঁচটি আসন, এবং বিনয়পন্থী মোর্চা পেয়েছে একটি আসন। বাকি একুশটি আসনে জয়লাভ করেছে বিজেপি। 
এই পাঁচ জেলার মধ্যে আলিপুরদুয়ার জেলায় পাঁচটি আসনে পাঁচটিতেই জয় পেয়েছে বিজেপি। একই ভাবে দার্জিলিং জেলায় পাঁচ আসনে পাঁচটি বিজেপি। অন্যদিকে কোচবিহারে নয় আসনের মধ্যে সাতটি বিজেপি, এবং দুটিতে তৃণমূল। অন্যদিকে জলপাইগুড়ি জেলার সাতটি আসনের মধ্যে তিনটি তৃণমূল এবং চারটিতে বিজেপি জয়লাভ করেছে।

কি বলছেন বিজেপি-তৃণমূল

সোশ্যাল মিডিয়ায় এই পৃথক জেলা প্রসঙ্গে শিলিগুড়ির বিজেপির বিধায়ক শংকর ঘোষ জল্পনা উসকে দিয়েছেন।তিনি বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। এর বেশি কিছু বলব না। আলিপুরদুয়ারের বিজেপির বিধায়ক সুমন কাঞ্জিলাল বলেন, আমি এই বিষয়ে কিছু জানিনা। কোনও মন্তব্য করতে পারব না। আলিপুরদুয়ারের প্রাক্তন বিধায়ক সৌরভ চক্রবর্তী বলেন সোশ্যাল মিডিয়ায় সবাই সবার মতো করে বক্তব্য রাখেন। এগুলোর কোনও গুরুত্ব নেই।