scorecardresearch
 

NDTV Takeover: NDTV-র দায়িত্বে আদানি গোষ্ঠী, ইস্তফা প্রণয় রায় এবং স্ত্রী রাধিকা রায়ের

NDTV Takeover: নিউ দিল্লি টেলিভিশন (NDTV) )-এর পরিচালন সংস্থার অধিকর্তা পদ থেকে ইস্তফা দিলেন প্রণয় রায় এবং তাঁর স্ত্রী রাধিকা রায়। তাঁরা এই গোষ্ঠীর প্রতিষ্ঠাতাও। আদানি গ্রুপের RRPR, NDTV নিউজ চ্যানেলের ২৯.১৮ শতাংশ শেয়ার অধিগ্রহণ করেই ছিল। মঙ্গলবার একটি বিবৃতি দিয়ে NDTV-র তরফেই তাঁদের ইস্তফার কথা জানানো হয় স্টক এক্সচেঞ্জকে।

প্রণয় রায় এবং রাধিকা রায় প্রণয় রায় এবং রাধিকা রায়
হাইলাইটস
  • NDTV -র পরিচালন সংস্থার অধিকর্তা পদ থেকে ইস্তফা দিলেন প্রণয় রায় এবং তাঁর স্ত্রী রাধিকা রায়
  • NDTV-র তরফেই তাঁদের ইস্তফার কথা জানানো হয় স্টক এক্সচেঞ্জকে।
  • NDTV এবং তার পরিচালন সংস্থা চলে এসেছে আদানি গোষ্ঠীর অধীনে

NDTV Takeover: নিউ দিল্লি টেলিভিশন (NDTV) )-এর পরিচালন সংস্থার অধিকর্তা পদ থেকে ইস্তফা দিলেন প্রণয় রায় (Prannoy Roy) এবং তাঁর স্ত্রী রাধিকা রায় (Radhika roy)। তাঁরা এই গোষ্ঠীর প্রতিষ্ঠাতাও। আদানি গ্রুপের RRPR, NDTV নিউজ চ্যানেলের ২৯.১৮ শতাংশ শেয়ার অধিগ্রহণ করেই ছিল। মঙ্গলবার একটি বিবৃতি দিয়ে NDTV-র তরফেই তাঁদের ইস্তফার কথা জানানো হয় স্টক এক্সচেঞ্জকে। NDTV এবং তার পরিচালন সংস্থা চলে এসেছে আদানি গোষ্ঠীর অধীনে (Adani Group)।

নতুন পরিচালন গোষ্ঠীর বোর্ডে তিনজন অধিকর্তা যোগ দিয়েছেন। সুদীপ্ত ভট্টাচার্য, সঞ্জয় পুগালিয়া এবং সেন্থিল সিনিয়াহ চেঙ্গালভারায়ণ- এই তিনজন পরিচালনায় থাকবেন। এই তিনজন আদানি গ্রুপের মনোনীত ব্যক্তিরা সোমবারই  RRPR হোল্ডিংসের নিয়ন্ত্রণ নেন। এঁদের মধ্যে সঞ্জয় পুগালিয়া আদানি গ্রুপের মিডিয়া উদ্যোগের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এবং এডিটর-ইন-চিফ। প্রণয় রায় NDTV-র চেয়ারপার্সন এবং সাংবাদিক রাধিকা রায় এই সংস্থার নির্বাহী পরিচালক ছিলেন।

এক দশক আগে আদানি গোষ্ঠীর এই সংস্থা থেকে ৪০০ কোটি টাকারও বেশি সুদ-মুক্ত ঋণ নিয়েছিল। বিনিময়ে, তারা ওয়ারেন্ট জারি করে, যা কোম্পানিকে NDTV-র ২৯.১৮ শতাংশ শেয়ার অধিগ্রহণ করার অনুমতি দেয়। 

NDTV-র ২৯.১৮ শতাংশ এলেও ইতিমধ্যেই আরও ২৬ শতাংশ শেয়ার হস্তগত করার চেষ্টা শুরু করেছে। NDTV-র শেয়ার যাঁদের কাছে অল্পমাত্রায় রয়েছে তাঁরা অর্থের বিনিময়ে ওই শেয়ার বিক্রি করতে পারবে। শেয়ার প্রতির দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ২৯৪ টাকা। ২২ নভেম্বর থেকে এই প্রস্তাব কার্যকর থাকবে ৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত।