scorecardresearch
 
 

একদিনে রেকর্ড টিকাকরণ দেশে! মোদী বললেন, 'ওয়েলডান ইন্ডিয়া'

সরকারি তথ্য অনুসারে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে সকলকে ফ্রি-তে টিকা দেওয়া শুরু হতেই এখনও পর্যন্ত একদিনে ৮৪ লক্ষেরও বেশি ডোজ দেওয়া হয়েছে। যা গোটা বিশ্বে এক নতুন রেকর্ড। টিকাকরণের এই গতিতে উচ্ছসিত স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী। নিজেই ট্যুইট করেছেন, ‘ওয়েল ডান ইন্ডিয়া!’

হাইলাইটস
  • সোমবার থেকে শুরু হয়েছে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে সকলকে ফ্রি-তে টিকা
  • প্রথম দিনেই রেকর্ড গড়ে ফেললো দেশ
  • ভারতের মতোই টিকাকরণে রেকর্ড গড়েছে মধ্যপ্রদেশও

সোমবার থেকে দেশে শুরু হয়েছে সবাইকে বিনামূল্যে টিকাকরণ। আর প্রথম দিনেই রেকর্ড গড়ে ফেলল ভারত। সরকারি তথ্য অনুসারে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে সকলকে ফ্রি-তে টিকা দেওয়া শুরু হতেই এখনও পর্যন্ত একদিনে ৮৪ লক্ষেরও বেশি ডোজ দেওয়া হয়েছে। যা গোটা বিশ্বে এক নতুন রেকর্ড। টিকাকরণের এই গতিতে উচ্ছসিত স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী। নিজেই ট্যুইট করেছেন, ‘ওয়েল ডান ইন্ডিয়া!’ 

গত ৭ জুন জাতির উদ্দেশে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেছিলেন, ২১ জুন থেকে রাজ্যগুলোকে উৎপাদনকারী সংস্থার থেকে আর টিকা কিনতে হবে না। কেন্দ্রই দেশে উৎপাদিত টিকার ৭৫ শতাংশ কিনে রাজ্য এবং কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলে বণ্টন করবে। সেই ঘোষণা অনুযায়ী, গতকাল সোমবার থেকে দেশে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে সকলে বিনামূল্যে সরকারি কেন্দ্রে টিকা পেতে শুরু করেছে। গত ১ মে থেকেই দেশে ১৮ বছরের বেশি বয়সিদের টিকা দেওয়ায় অনুমোদন দিয়েছিল কেন্দ্র। কিন্তু তখন নীতি ছিল, উৎপাদিত টিকার ৫০ শতাংশ কিনবে কেন্দ্র। বাকি ৫০ শতাংশ কিনবে রাজ্য সরকার এবং বেসরকারি হাসপাতাল। 

কেন্দ্রীয় সরকার এখন ভ্যাকসিনগুলি কিনে নিজেই রাজ্য সরকারকে দেবে, আগে রাজ্যগুলিকেও ভ্যাকসিন কিনতে বলা হয়েছিল। যোগা দিবসের সকাল থেকেই করোনা টিকা নিয়ে জোর প্রচার চলে। তার ফলশ্রুতি প্রথমদিনেই  ৮৪ লক্ষ ভ্যাকসিন ডোজ প্রয়োগ করা হয়েছে। সরকার জানিয়েছে যে কোভিড অ্যাপ অনুসারে গতকাল  ৮৪,০৭,৬৬৪ জনকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে।

টিকা দেওয়ার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী মোদী ট্যুইট করেন। লেখেন,  "আজকের রেকর্ড করা  টিকা দেওয়ার সংখ্যা মনোরম। কোভিড ১৯-এর সঙ্গে  লড়াই করার জন্য ভ্যাকসিন আমাদের শক্তিশালী অস্ত্র। যারা ভ্যাকসিন পেয়েছে তাদের সবাইকে এবং ফ্রন্টলাইনার যোদ্ধাদেরও অভিনন্দন যারা যারা যাঁদের জন্য এতবেশি নাগরিক টিকা পেয়েছেন। ওয়েলডন ইন্ডিয়া "। প্রধানমন্ত্রী মোদীর সেই ট্যুইটকে  রিট্যুইট করেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া।

 

একই সময়ে, টিকা দেওয়ার একটি রেকর্ডও তৈরি হয়েছে মধ্যপ্রদেশেও। এই রাজ্যে সোমবার বিকেল ৬টা পর্যন্ত ১৬ লক্ষ ৭৩ হাজার ৮৫৮  জনের টিকাকরণ হয়েছে। সরকার একদিনে ১০ লক্ষ লোকের টিকাকরমের লক্ষ্যমাত্রা রেখেছিল। তার চেয়ে ৬ লাখ টিকা বরং বেশি দেওয়া হয়েছে। 

 

রাজ্যগুলির পরিসংখ্যান
টিকাকরণ নিয়ে রাজ্যগুলির পরিসংখ্যান যথেষ্ট লক্ষণীয়। করোনা মহামারি দেশে আসার পরে এক বছরেরও বেশি সময় হয়ে গেছে। এখনও অবধি কোভিডের কারণে সাড়ে তিন লাখেরও বেশি লোক মারা গেছে। চলতি বছরের জানুয়ারিতে দেশে টিকাকরণ শুরু হয়েছে। প্রথমে স্বাস্থ্যকর্মীরা এবং ফ্রন্টলাইনার কর্মীদের টিকা দেওয় হয়।  দ্বিতীয় দফায় প্রবীণদের টিকা দেওয়া শুরু হয়েছিল। এর পরে ৪৫ বছর বয়সের বেশি লোকেরা দেশে টিকা পেতে শুরু করেন। তবে দেশে দ্বিতীয় ওয়েভ আসার পর বহু যুবসমাজ আক্রান্ত হলে  ১৮ বছর বয়সের বেশি বয়সী সমস্ত লোককে টিকা দেওয়ার ঘোষণা করা হয়।