scorecardresearch
 

রাজ্যে ৪০০ টাকা, প্রাইভেট হাসপাতালে ৬০০, টিকার দাম জানাল SII

কোভিসিল্ড ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারী সংস্থা ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট বুধবার রাজ্য সরকার এবং বেসরকারী হাসপাতালের জন্য নতুন দামের তালিকা প্রকাশ করেছে। বেসরকারি হাসপাতালগুলির ক্ষেত্রে ডোজ প্রতি ৬০০ টাকায় এবং রাজ্য সরকারগুলিকে ডোজ প্রতি ৪০০ টাকা এবার থেকে দিতে হবে।

করোনা টিকা। ফাইল ছবি- ইন্ডিয়া টুডে করোনা টিকা। ফাইল ছবি- ইন্ডিয়া টুডে
হাইলাইটস
  • রাজ্যে ৪০০ টাকা, প্রাইভেট হাসপাতালে ৬০০
  • দামের তালিকা আনল সিরাম
  • দেশে বেড়েই চলেছে করোনা সংক্রমণ

কোভিসিল্ড ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারী সংস্থা ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট বুধবার রাজ্য সরকার এবং বেসরকারী হাসপাতালের জন্য নতুন দামের তালিকা প্রকাশ করেছে। বেসরকারি হাসপাতালগুলির ক্ষেত্রে ডোজ প্রতি ৬০০ টাকায় এবং রাজ্য সরকারগুলিকে ডোজ প্রতি ৪০০ টাকা এবার থেকে দিতে হবে। ভারত সরকার সম্প্রতি টিকা দেওয়ার নতুন পর্ব শুরু হয়েছে। বেশ কিছু নিয়ম পরিবর্তন হয়েছে আগের থেকে। নয়া নিয়মে রাজ্য সরকার এবং বেসরকারি হাসপাতালগুলি সরাসরি নির্মাতাদের কাছ থেকে ভ্যাকসিন কিনতে পারবেন। এতোদিন কেবলমাত্র কেন্দ্রীয় সরকার এই টিকা কিনে বিভিন্ন রাজ্যে বিতরণ করছিল।

কী বলল সিরাম ?

যদিও সিরাম ইনস্টিটিউট দাবি করেছে যে তাদের ভ্যাকসিন বিদেশি ভ্যাকসিনের তুলনায় অনেক সস্তা। তথ্য অনুসারে,

  • আমেরিকান ভ্যাকসিন - ডোজ প্রতি ১৫০০ টাকা
  • রাশিয়ান ভ্যাকসিন - ডোজ প্রতি ৭৫০ টাকা
  • চিনের ভ্যাকসিন - ডোজ প্রতি ৭৫০ টাকা

    ১৮ বছর পর থেকে সবাই টিকা নিতে পারবেন

কেন্দ্রে নয়া সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এবার ১৮ বছরের উর্ব্ধে যে কেউ ভ্যাকসিন নিতে পারবেন। মঙ্গলবার রাতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশে প্রচুর টিকা তৈরি হচ্ছে। প্রোডাকশন বাড়ানোর জন্য সব ধরণের চেষ্টা হচ্ছে। আমার সৌভাগ্যবান মজবুত সেক্টর আছে। যারা অতি দ্রুত ওষুধ বানায়। কিছু শহরে বেশি চাহিদা রয়েছে। সেখানে কোভিড হাসপাতাল বানানো হচ্ছে। গত বছর করোনা সামনে আসার পরে থেকে আমাদের বৈজ্ঞানিকরা করোনা টিকা তৈরি করার কাজ শুরু করে দিয়েছিলেন। গোটা বিশ্বের মধ্যে সবথেকে কম দামে ভ্যাকসিন ভারতে পাওয়া যায়। অতি দ্রুত যাদের প্রয়োজন তাদের ভ্যাকসিন পৌঁছানোর কাজ হচ্ছে। আমাদের হেল্ফ কেয়ার ওয়ার্কস, ফ্রন্ট লাইন ওয়ার্কস আর বয়স্ক ব্যক্তিদের বড় অংশকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে। ১ মের পরে থেকে ১৮ বছর পর থেকে সবাই টিকা নিতে পারবেন। সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্যে টিকাকরণ করা হবে।