scorecardresearch
 

Partha Chatterjee Arpita Mukherjee Gold Cash Limit : কোনও অবিবাহিত মহিলা বাড়িতে কতটা সোনা রাখতে পারেন? জানুন নিয়ম

Partha Chatterjee Arpita Mukherjee Gold Cash Limit: অর্পিতা এই মামলায় যুক্তি দিচ্ছেন যে তিনি সোনার বিষয়ে সচেতন ছিলেন না। তবে এত নগদ টাকা ও সোনা পাওয়া এই প্রথম ঘটনা নয়। এর আগে কনৌজের সুগন্ধি ব্যবসায়ী পীযূষ জৈনের বাড়ি থেকেও একই ধরনের সম্পদ পাওয়া গিয়েছিল।

অর্পিতা মুখোপাধ্য়ায় এবং উদ্ধার হওয়া টাকা-সোনা (ফাইল ছবি) অর্পিতা মুখোপাধ্য়ায় এবং উদ্ধার হওয়া টাকা-সোনা (ফাইল ছবি)
হাইলাইটস
  • পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ সহযোগী অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের বাড়ি থেকে ৫০ কোটির বেশি নগদ টাকা ও ৫ কেজি সোনা উদ্ধার
  • 'নোটের পাহাড়' গণনা করার জন্য তদন্তকারী সংস্থাকে নোট গোনার মেশিন সংগ্রহ করতে হয়েছিল
  • একই সঙ্গে এত সোনা পেয়ে চমকে গিয়েছিল সবাই

Partha Chatterjee Arpita Mukherjee Gold Cash Limit: রাজ্য়ের শিক্ষা নিয়োগ কেলেঙ্কারিতে প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ সহযোগী অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের বাড়ি থেকে ৫০ কোটির বেশি নগদ টাকা ও ৫ কেজি সোনা উদ্ধার করা হয়েছে। 'নোটের পাহাড়' গণনা করার জন্য তদন্তকারী সংস্থাকে নোট গোনার মেশিন সংগ্রহ করতে হয়েছিল। একই সঙ্গে এত সোনা পেয়ে চমকে গিয়েছিল সবাই। 

তবে অর্পিতা এই মামলায় যুক্তি দিচ্ছেন যে তিনি সোনার বিষয়ে সচেতন ছিলেন না। তবে এত নগদ টাকা ও সোনা পাওয়া এই প্রথম ঘটনা নয়। এর আগে কনৌজের সুগন্ধি ব্যবসায়ী পীযূষ জৈনের বাড়ি থেকেও একই ধরনের সম্পদ পাওয়া গিয়েছিল। গত বছরের ডিসেম্বরে পীযূষ জৈনের চত্বরে অভিযান চালানো হয়। এতে প্রায় ১৯৬ কোটি টাকা নগদ পাওয়া গেছে। অভিযানে ২৩ কেজি সোনার বিস্কুটও পাওয়া গেছে।

এমন পরিস্থিতিতে এখন প্রশ্ন উঠছে মানুষ কতটা সোনা ও নগদ টাকা রাখতে পারবে তাদের বাড়িতে। এর সীমা কত? আপনিও যদি নগদ ও সোনা রাখার শৌখিন হন, তাহলে জেনে রাখুন সীমার চেয়ে বেশি নগদ ও স্বর্ণ সমস্যায় ফেলতে পারে।

সোনা রাখার নিয়ম
প্রথমটি ছিল দেশে স্বর্ণ নিয়ন্ত্রণ আইন ১৯৬৮। যা একটি নির্দিষ্ট পরিমাণের বেশি সোনা রাখার উপর নজরদারি করেছিল। কিন্তু ১৯৯০ সালের জুন মাসে এটি বিলুপ্ত করা হয়। কিন্তু বর্তমানে, বাড়িতে সোনা রাখার কোনও সীমা নেই। যদিও আপনাকে এটির বৈধ উৎস এবং প্রমাণ সরবরাহ করতে হবে। কিন্তু আয়ের উৎস প্রকাশ না করে ঘরে সোনা রাখার সীমা বেঁধে দেওয়া হয়। এই সীমার মধ্যে ঘরে সোনা রাখলে আয়কর বিভাগ সোনা বাজেয়াপ্ত করবে না।

কত সোনা থাকলে তার প্রমাণ দিতে হবে না?
সরকারি নিয়ম অনুযায়ী, একজন বিবাহিত নারী ৫০০ গ্রাম পর্যন্ত স্বর্ণ রাখতে পারবেন। একজন অবিবাহিত নারী ২৫০ গ্রাম এবং একজন বিবাহিত পুরুষ ১০০ গ্রাম পর্যন্ত সোনা রাখতে পারবেন। 

আরও পড়ুন: বারাসতে বসু পরিবারের জমিতে মসজিদ, দেখভালের দায়িত্বেও তাঁরা

আরও পড়ুন: লাল বেনারসীতে ধরা দিলেন মৌনী, অপ্সরাও হার মানবে

আরও পড়ুন: মরুভূমিতে মাছ? টিকে থাকার ক্ষমতা দেখে চমকে গেলেন বিজ্ঞানীরা

এ জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে আয়ের প্রমাণ দিতে হবে না। যদি কেউ এই সীমার মধ্যে সোনা রাখে, তাহলে আয়কর বিভাগ সোনা বাজেয়াপ্ত করবে না। কেউ যদি এর চেয়ে বেশি পরিমাণে স্বর্ণ ঘরে রাখে তাহলে তাকে এর উৎস সম্পর্কে তথ্য দিতে হবে।

কী পরিমাণ সোনা আছে তা জব্দের ব্যবস্থা নেওয়া হবে?
সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ডাইরেক্ট ট্যাক্সেস (সিবিডিটি) অনুসারে, উৎসের তথ্য দেওয়ার ক্ষেত্রে সোনার গয়না রাখতে কোনও বাধা নেই। কিন্তু আয়কর আইন, ১৯৬১-এর ধারা ১৩২ অনুযায়ী, আয়কর কর্তৃপক্ষের সীমার বেশি গয়না বাজেয়াপ্ত করার ক্ষমতা রয়েছে। 

এ ছাড়া ৫০ হাজার টাকার কম উপহারে সোনার গয়না পাওয়া গেলে বা উত্তরাধিকার সূত্রে পাওয়া গয়নাটি করের আওতায় আসে না। কিন্তু এটা প্রমাণ করতে হবে যে এটি উপহার বা উত্তরাধিকারসূত্রে প্রাপ্ত।

এখানে নগদ রাখার নিয়ম রয়েছে
বাড়িতে নগদ রাখার জন্য কোনও সীমা নির্দিষ্ট নেই, তবে আপনাকে এই নগদ অর্থের উত্স বলতে হবে, কোন মাধ্যমে আপনি এই অর্থ উপার্জন করেছেন। নতুন নিয়ম অনুযায়ী, ঘরে রাখা টাকার উৎস জানাতে হবে। কেউ নগদ তথ্য দিতে না পারলে ১৩৭ শতাংশ পর্যন্ত জরিমানা দিতে হতে পারে।

নতুন নিয়ম যা বলে
নতুন নিয়ম অনুসারে, এক আর্থিক বছরে ২০ লক্ষ টাকার বেশি নগদ লেনদেনের জন্য জরিমানা দেওয়া যেতে পারে। CBDT-এর মতে, যদি কেউ এক বছরে ২০ লক্ষ টাকা নগদ জমা করে, তাহলে তাকে প্যান এবং আধারের বিবরণ দিতে হবে। 

এটি করলে ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে। একই সময়ে, ২ লাখ টাকার বেশি নগদে কেনাকাটা করা যাবে না। এছাড়া কাউকে নগদে দান করলে তার সীমাও নির্ধারণ করা হয়েছে ২ হাজার টাকা।নগদে ঋণ নেওয়া যাবে না। ব্যাঙ্ক থেকে ২ কোটি টাকার বেশি নগদ তোলার উপর TDS ধার্য করা হবে।

 
; ; ;