scorecardresearch
 
ধর্ম

রোগ দূরে রাখতেই শীতল সপ্তমীর রেওয়াজ বাংলায়

শীতলা
  • 1/10

বসন্তকালে এর প্রকোপ বেশি থাকে বলেই পক্স-কে বসন্ত রোগ নাম দেওয়া হয়েছিল আর এই বসন্তকালেই পূজিতা হন মা শীতলা।

শীতলা
  • 2/10

চৈত্র মাসের কৃষ্ণপক্ষের সপ্তমীতে শীতল পান্তা খাওয়ার রেওয়াজ রয়েছে। এই তিথিকে শীতল সপ্তমী বলা হয়।

শীতলা
  • 3/10

কোনও কোনও জায়গায় অষ্টমীতেও এই রেওয়াজ পালন করা হয়ে থাকে। তাই শীতল অষ্টমীও বলা হয়ে থাকে।

শীতলা
  • 4/10

এই দিনে মা শীতলার জন্য ব্রত রাখা হয়। বহু মানুষ এই পুজো উপলক্ষে বাসি খাবার বা জলে ভেজানো ঠান্ডা খাবার খেয়ে থাকেন।

শীতলা
  • 5/10

সপ্তমী বা অষ্টমীতে ঠান্ডা খাবার খেয়ে ব্রত রেখে, বিভিন্ন চর্ম রোগের প্রকোপ দূর করতেই এই পুজো করা হয়।

শীতলা
  • 6/10

পুরাণ অনুযায়ী আদ্যাশক্তি দেবী দুর্গার অবতার হিসাবে, তিনি পক্স, ঘা, ত্বকের নানা রোগ নিরাময় করেন এবং পিশাচ এর হাত থেকেও রক্ষা করেন।

শীতলা
  • 7/10

হিন্দু ধর্মের বিশ্বাসানুসারে এই দেবীর প্রভাবেই মানুষ বসন্ত, প্রভৃতি চর্ম রোগে আক্রান্ত হয়। এই কারণেই গ্রাম বাংলায় বসন্ত রোগ মায়ের দয়া নামে পরিচিত।

শীতলা
  • 8/10

ভক্তদের বিশ্বাস মা শীতলা কলসি থেকে আরোগ্য সূধা প্রদান করেন এবং ঝাড়ু দ্বারা রোগাক্রান্তদের কষ্ট দূর করেন।

শীতলা
  • 9/10

মা শীতলাকে ঠাকুরানী, জগৎরানী, করুণাময়ী, মঙ্গলা, ভগবতী, দয়াময়ী নামেও অভিহিত করা হয়।

শীতলা
  • 10/10

পঞ্জিকা অনুসারে বাংলার ২১ চৈত্র, ১৪২৭ এবং ইংরেজির ৪ এপ্রিল, রবিবার, ২০২১ তারিখে শীতলা পুজোর তিথি।