scorecardresearch
 

DA West Bengal Latest News : রাজ্যের ডিএ-এর আদালত অবমাননার শুনানি হবে, জানাল হাইকোর্ট

এদিন মহামান্য হাইকোর্টে মাননীয় বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডন ও মাননীয় বিচারপতি রবীন্দ্রনাথ সামন্তর এজলাসে মামলাটি ওঠে। মামলাকারী ৩ সংগঠনের আইনজীবীরা ও রাজ্য সরকারের তরফে অ্যাডভোকেট জেনারেল উপস্থিত ছিলেন।

ফাইল ছবি ফাইল ছবি
হাইলাইটস
  • ডিএ-এর আদালত অবমাননার মামলার শুনানি মহামান্য হাইকোর্টে
  • আপাতত মামলার শুনানি পিছিয়ে দিল হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ

ডিএ (Dearness Allowance)-এর আদালত অবমাননার মামলার শুনানি মহামান্য হাইকোর্টে। আপাতত মামলার শুনানি পিছিয়ে দিল হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ। মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী ৭ ডিসেম্বর। তার আগে ৫ তারিখ মহামান্য সুপ্রিম কোর্টে রাজ্যের দাখিল করা এসএলপি-র শুনানি রয়েছে। 

এদিন মহামান্য হাইকোর্টে মাননীয় বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডন ও মাননীয় বিচারপতি রবীন্দ্রনাথ সামন্তর এজলাসে মামলাটি ওঠে। মামলাকারী ৩ সংগঠনের আইনজীবীরা ও রাজ্য সরকারের তরফে অ্যাডভোকেট জেনারেল উপস্থিত ছিলেন। 

শুনানির শুরুতেই মহামান্য বিচারপতিদ্বয়কে সরকারি কর্মচারি পরিষদের আইনজীবী গুড্ডু সিং জানান, রাজ্য সরকারের তরফে মহামান্য সুপ্রিম কোর্টে এসএলপি (Special Leave Petition) দাখিল করা হয়েছে। তা গৃহীত হবে কি না সেটা আগামী ৫ ডিসেম্বর নির্ধারণ করতে পারে দেশের শীর্ষ আদালত। পাশাপাশি তিনি এও জানান, সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দিয়েছে এই মামলা যেন 'নট টু প্রেস' করা হয়। আইনজীবী মাননীয় বিচারপতিদের কাছে আরও আর্জি জানান, সুপ্রিম কোর্টে শুনানির পরই যেন আদালত অবমাননার মামলার মহামান্য হাইকোর্ট তারিখ দেয়।

আরও পড়ুন :  ডিএ নিয়ে রাজ্য সরকারি কর্মীদের বাড়ছে ক্ষোভ, বড় সিদ্ধান্ত নিল তৃণমূল

মহামান্য ডিভিশন বেঞ্চ এই বক্তব্য শোনার পর রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল (এজি)-কে জিজ্ঞাসা করেন, তাঁদের এই বিষয়ে কোনও বক্তব্য আছে কি না। উত্তরে এজি জানান, তাঁর এই বিষয়ে কোনও বক্তব্য নেই। তারপরই মহামান্য ডিভিশন বেঞ্চ জানায়, মামলার পরবর্তী শুনানি ৭ ডিসেম্বর। 

আজকের শুনানি বেশিক্ষণ না চললেও মামলাকারী সংগঠন সরকারি কর্মচারী পরিষদ আশাবাদী। সংগঠনের সভাপতি দেবাশিস শীল জানান, ' রাজ্য সরকারের মুখ্যসচিব ও অর্থসচিবের বিরুদ্ধে  আদালত অবমাননার মামলা হাইকোর্টের শুনতে কোনও আপত্তি নেই। তা আজ ফের পরিষ্কার হয়ে গেল। সুপ্রিম কোর্টে এসএলপি পড়ে আছে রাজ্যের। তার শুনানি ৫ ডিসেম্বর। সেই প্রোটোকলের কারণে মহামান্য হাইকোর্ট জানিয়েছে পরবর্তী শুনানি ৭ তারিখ।' 

দেবাশিস শীলের আরও সংযোজন, '৫ তারিখ সুপ্রিম কোর্ট সব পক্ষের বক্তব্য শুনবে। আমাদের বিশ্বাস, সেদিন রাজ্য সরকারের আর্জি খারিজ হবে। এবং সেক্ষেত্রে ৭ তারিখের হাইকোর্টের শুনানি অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ হতে পারে।' 

এই নিয়ে কনফেডারেশন অফ স্টেট গভর্নমেন্ট এমপ্লয়িজ-এর সাধারণ সম্পাদক মলয় মুখোপাধ্যায় বলেন, ' মহামান্য সুপ্রিম কোর্ট ৫ তারিখ রাজ্যের এসএলপি গ্রহণ করবে না বলে আমরা মনে করছি। যদি সেটা হয় তাহলে মামলা ফের হাইকোর্টেই আসবে। রাজ্য সরকার নির্দেশ পাওয়ার পরও ডিএ দেয়নি সরকারি কর্মীদের। এবার হয়তো মহামান্য হাইকোর্ট সময় বেঁধে নেবে। সেক্ষেত্রে রাজ্য সরকারকে ডিএ কার্যকর করতেই হবে।'