scorecardresearch
 

ফ্যাক্ট চেক: মিষ্টির গামলায় প্রস্রাব করার এই ভিডিয়োটি কি আসল? জানুন সত্যি ঘটনা

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিয়োটি শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, হিন্দুদের দোকানে মিষ্টির গামলায় প্রস্রাব করা হয়। তাই মুসলিমদের হিন্দুদের দোকান থেকে মিষ্টি কেনা থেকে বিরত থাকা উচিত।

Advertisement

মিষ্টি খেতে পছন্দ করেন না এমন মানুষ খুব কম আছেন। আর সেটি যদি রসগোল্লা বা পান্তুয়া হয়, তাহলে তো আর কোনও কথায় নেই। তবে সম্প্রতি এমন একটি ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে তা দেখার পর হয়তো মিষ্টি খাওয়ার আগে দু’বার চিন্তা করবেন সকলেই। 

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে, লাল টি-শার্ট ও জিন্স পরা একা ব্যক্তি গামলা ভর্তি মিষ্টিতে তরল জাতীয় কিছু ঢালছেন। আর তার পিছন থেকে গোটা ঘটনাটি কেউ ক্যামেরা বন্দি করেছেন। প্রাথমিকভাবে ভিডিয়োটি দেখলে মনে হয়, ওই ব্যক্তি মিষ্টির গামলায় প্রস্রাব করছেন। আর এই ভাইরাল ভিডিয়োটি শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, হিন্দুদের দোকানে এভাবে মিষ্টির গামলায় প্রস্রাব করা হয়। তাই মুসলিমদের হিন্দুদের দোকান থেকে মিষ্টি কেনা থেকে বিরত থাকা উচিত।

উদাহরণস্বরূপ, এক ফেসবুক ব্যবহারকারী ভাইরাল ভিডিয়োটি পোস্ট করে তার ফ্রেমের উপরে লিখেছেন, “হিন্দুদের দোকান থেকে মিষ্টি কিনবেন, মুসলিমদের দোকান থেকে কিনবে, না হলে এ-ই শিরা খেয়ে ফেলবে নিজের অজান্তে।”  ক্যাপশনের সব বানান অপরিবর্তিত।) এমনই একটি পোস্টের আর্কাইভ এখানে দেখা যাবে। 

ইন্ডিয়া টুডে ফ্যাক্ট চেক অনুসন্ধান করে দেখেছে যে, ভাইরাল ভিডিয়োটি একটি প্রাঙ্ক ভিডিয়ো থেকে সম্পাদিত।

কীভাবে জানা গেল সত্য?

ভাইরাল ভিডিয়োর সত্যতা জানতে আমরা ভিডিয়োটি থেকে একাধিক স্ক্রিনশট নিয়ে সেগুলির রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। তখন আমরা ২০২৩ সালের ১৬ মে একটি এক্স হ্যান্ডলে এই একই ভিডিয়ো দেখতে পাই। ভিডিয়োটি পোস্ট করে, সরাসরি এই ঘটনাকে জিহাদের সঙ্গে তুলনা করা হয়েছে। এবং সরাসরি উল্লেখ না করা হলেও ঘটনাটি কোনও মুসলিম ব্যক্তি করেছেন বলে ইঙ্গিত করা হয়েছে।

Advertisement

এই একই ভিডিয়ো ২০২৩ সালের ৩ অগস্ট একটি ইনস্টাগ্রামে হ্যান্ডেলেও দেখতে পাই। তবে তার কমেন্ট সেকশনে একাধিক ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারকারী ভিডিয়োটিকে এডিডেট বলে দাবি করেছেন। কেউ আবার সেখানে মন্তব্য করেছেন প্রস্রাব নয়, ওই ব্যক্তি মিষ্টির গামলায় জল ঢালছেন।

আর উপরে উক্ত ইনস্টাগ্রামে হ্যান্ডেলের কমেন্ট সেকশন থেকে প্রাপ্ত তথ্যের উপরে ভিত্তি করে আমরা সেই সংক্রান্ত বিভিন্ন কিওয়ার্ড সার্চ করি। তখন আমরা ২০২২ সালের ৪ ডিসেম্বর দ্য কুইন্টের একটি প্রতিবেদন দেখতে পাই। সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে, ভাইরলা ভিডিয়োটি একটি প্রাঙ্ক ভিডিয়োর অংশ। আসলে ওই ব্যক্তি মিষ্টির গামলায় প্রস্রাব করেনি। বরং মূল ভিডিয়োর শেষে ওই ব্যক্তিকে একটি বোতল থেকে মিষ্টির গামলায় তরল ঢালতে দেখা গেছে।

এরপর আমরা একাধিক ইউটিউব চ্যানেলে এই ভাইরাল ভিডিয়ো এবং যে প্রাঙ্ক ভিডিয়ো থেকে সেটিকে এডিট করে পোস্ট করা হয়েছে দুটির মধ্য তুলনা দেখতে পাই। যেখানে স্পষ্টভাবে দেখা যাচ্ছে যে, ওই ব্যক্তি মিষ্টির গামলায় প্রস্রাব নয় বরং তিনি একটি বোতল থেকে তরল জাতীয় কিছু ঢালছেন। তবে 

এর থেকেই প্রমাণ হয় হিন্দুদের দোকানে মিষ্টির গামলায় প্রস্রাব করা হচ্ছে দাবিতে যে ভিডিয়ো পোস্ট করা হয়েছে সেটি আসলে ভুয়ো এবং একটি প্রাঙ্ক ভিডিয়ো থেকে সম্পাদিত। বিভিন্ন সময় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার উদ্দেশ্যে ভিডিয়োটি কখনও হিন্দু আবার কখনও মুসলিম সম্প্রদায়ের নাম দিয়ে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল করা হয়েছে।  

ফ্যাক্ট চেক

Facebook Users

দাবি

হিন্দুদের দোকানে মিষ্টির গামলায় প্রস্রাব করা হচ্ছে।

ফলাফল

মিষ্টির গামলায় প্রস্রাব নয় বরং ওই ব্যক্তি একটি বোতল থেকে তরল জাতীয় কিছু ঢেলেছিলেন।

ঝুট বোলে কাউয়া কাটে

যত বেশি কাক তত বেশি মিথ্যে

  • কাক: অর্ধসত্য
  • একাধিক কাক: বেশির ভাগ মিথ্যে
  • অনেক কাক: সম্পূর্ণ মিথ্যে
Facebook Users
আপনার কী মনে হচ্ছে কোনও ম্যাসেজ ভুয়ো ?
সত্যিটা জানতে আমাদের সংখ্যা 73 7000 7000 উপর পাঠান.
আপনি আমাদের factcheck@intoday.com এ ই-মেইল করুন
Advertisement