scorecardresearch
 

ফ্যাক্ট চেক: হিন্দু মন্দিরের গানে আল্লাহর নাম! ভাইরাল এই ভিডিও-র দাবির সত্যতা কী? 

বিভ্রান্তিকর দাবির সঙ্গে ছড়ালো পুরোনো অসম্পূর্ণ ভাইরাল ক্লিপ।

পোস্ট করে দাবি করা হয়েছে "দক্ষিণ ভারতের হিন্দু মন্দিরে আল্লাহর জিকির" করা হয়েছে।  পোস্ট করে দাবি করা হয়েছে "দক্ষিণ ভারতের হিন্দু মন্দিরে আল্লাহর জিকির" করা হয়েছে। 

ফেসবুকে একটি গান সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে, যেখানে এক ব্যক্তিকে গানের মধ্যে "আল্লাহর" নাম নিতে শোনা যাচ্ছে।  

ভাইরাল ভিডিওটি ফেসবুকে  পোস্ট করে দাবি করা হয়েছে "দক্ষিণ ভারতের হিন্দু মন্দিরে আল্লাহর জিকির" করা হয়েছে। 

ইন্ডিয়া টুডের অ্যান্টি-ফেক নিউজ ওয়ার রুম (আফয়া) অনুসন্ধানে জানতে পেরেছে যে ভাইরাল ভিডিওটি অসম্পূর্ণ। আসল ভিডিওতে গায়ককে আল্লাহর সঙ্গে হিন্দু দেবতাদের  নাম নিতেও শোনা যাচ্ছে।  ভিডিওটি কোনো মন্দিরে তোলা হয়নি, এটি অন্ধ্রপ্রদেশের পশ্চিম গোদাবরী জেলার একটি অনুষ্ঠান গৃহের দৃশ্য। 

ভাইরাল ভিডিওটির মাত্র ২৯ সেকেন্ডের।  কিন্তু কী ওয়ার্ডস সার্চের মাধ্যমে আমরা ইউটুবে প্রায় পাঁচ মিনিট লম্বা ভিডিও খুঁজে পাই।  ভাইরাল ভিডিওটি এই দীর্ঘ ভিডিওটির একটি ছোট্ট অংশ। এই লম্বা ভিডিওতে আমরা সেই গায়ক ব্যক্তিকে আল্লাহর সঙ্গে ভগবান আয়াপ্পা এবং ভাবার স্বামীরও নাম নিতে শুনতে পাই।  

এই একই গান আমরা অন্যান্য ব্যক্তির কণ্ঠেও শুনতে পাই।  এই ভিডিওগুলি আপনারা দেখতে পাবেন এখানে এবং এখানে। 

ইন্টারনেটে খুঁজে আমরা একটি ইউটুব চ্যানেলে ভাইরাল ভিডিওর গানটি একই গায়কের কণ্ঠে গাওয়া আরেকটি রেকর্ডিং খুঁজে পাই।  সেখানে গায়কের নাম লেখা হয় বালাজিস্বামী।  

আফয়ার তরফ থেকে ফোনে বালাজিস্বামীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়।  তিনি জানান যে ভাইরাল ভিডিওতে তাকেই দেখা যাচ্ছে। 

তিনি জানান ভাইরাল গানটি ২০১৭ সালের। শবরীমালা তীর্থের আগে একটি বিশেষ পুজো উপলক্ষ্যে তিনি এই গানটি অন্ধ্রপ্রদেশের পশ্চিম গোদাবরী জেলায় চালসানি  গার্ডেন্স এলাকায় একটি অনুষ্ঠানে প্রেক্ষা গৃহে গেয়েছিলেন। 

 

ইন্ডিয়া টুডে, এই প্রেক্ষা গৃহের ছবির সঙ্গে ভাইরাল ভিডিওর সামঞ্জস্য খুঁজে পায় , সেই রিপোর্ট আপনারা পড়তে পারবেন এখানে। 

সুতরাং, একটি অসম্পূর্ণ ভিডিও ক্লিপ বিভ্রান্তিকর দাবির সঙ্গে ভাইরাল হয়েছে ফেসবুকে। 

 

ফ্যাক্ট চেক

Facebook user 

দাবি

দক্ষিণ ভারতের হিন্দু মন্দিরে আল্লাহর জিকির।

ফলাফল

ভাইরাল ভিডিওটি অসম্পূর্ণ। আসল ভিডিওতে গায়ককে আল্লাহর সঙ্গে হিন্দু দেবতাদের  নাম নিতেও শোনা যাচ্ছে।  ভিডিওটি কোনো মন্দিরে তোলা হয়নি, এটি অন্ধ্রপ্রদেশের পশ্চিম গোদাবরী জেলার একটি অনুষ্ঠান গৃহের দৃশ্য। 

ঝুট বোলে কাউয়া কাটে

যত বেশি কাক তত বেশি মিথ্যে

  • কাক: অর্ধসত্য
  • একাধিক কাক: বেশির ভাগ মিথ্যে
  • অনেক কাক: সম্পূর্ণ মিথ্যে
Facebook user 
আপনার কী মনে হচ্ছে কোনও ম্যাসেজ ভুয়ো ?
সত্যিটা জানতে আমাদের সংখ্যা 73 7000 7000 উপর পাঠান.
আপনি আমাদের factcheck@intoday.com এ ই-মেইল করুন