scorecardresearch
 

৫ ধর্ষণ মামলায় CBI তদন্ত চেয়ে হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা BJP-র

হাঁসখালি ধর্ষণ ও হত্যা মামলার মতো কলকাতা, শান্তিনিকেতন এবং পিংলা সহ রাজ্যে সাম্প্রতিক পাঁচটি ধর্ষণ মামলারও নিরপেক্ষ তদন্ত হওয়া প্রয়োজন। তাহলেই প্রকৃত দোষী সামনে আসবে এবং সঠিক বিচার পাওয়া সম্ভব হবে। এই দাবি তুলে হাইকোর্টে CBI তদন্ত চেয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করল বিজেপি।

কলকাতা হাইকোর্ট কলকাতা হাইকোর্ট
হাইলাইটস
  • রাজ্যে সাম্প্রতিক পাঁচটি ধর্ষণ মামলায় সিবিআই দাবি বিজেপির
  • হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছে তারা
  • পুলিশি তদন্তে বিশ্বাস নেই বলে দাবি তাদের

কলকাতা, শান্তিনিকেতন এবং পিংলা সহ রাজ্যে সাম্প্রতিক পাঁচটি ধর্ষণ মামলায় রাজ্যের উপর আইনি পথে রাজনৈতিক চাপ বাড়ানোর কৌশল নিয়েছে বিজেপি। এই মামলাগুলির CBI তদন্ত চেয়ে হাইকোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হল বিজেপির তরফে। 

সোমবার মামলাটি দায়ের করেন বিজেপি লিগ্যাল সেলের আইনজীবীরা। শান্তিনিকেতন, নামখানা, পিংলা, ময়নাগুড়ি এবং নেত্রার এই পাঁচটি মামলায় রাজ্য পুলিশের প্রতি অবিশ্বাস প্রকাশ করেছেন বিজেপি লিগ্যাল সেলের আইনজীবীরা। তাঁরা মনে করছেন পুলিশ এই মামলাগুলির সঠিক তদন্ত করছে না এবং করবেন না। ফলে কেন্দ্রীয় এজেন্সি ছাড়া এই মামলাগুলিতে সুবিচার পাওয়ার আশা একেবারেই নেই। 

আবেদনকারীদের দাবি, হাঁসখালি ধর্ষণ ও হত্যা মামলার মতো এসব মামলারও নিরপেক্ষ তদন্ত হওয়া প্রয়োজন। তাহলেই প্রকৃত দোষী সামনে আসবে এবং সঠিক বিচার পাওয়া সম্ভব হবে। পুলিশ অনেকক্ষেত্রেই তদন্ত ঠিকমতো করছে না বলে বিজেপির তরফে বারবার অভিযোগ করা হয়েছে।

কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে হাঁসখালিতে ধর্ষণ ও খুনের ঘটনার তদন্ত করছে সিবিআই। হাঁসখালির ঘটনার পরও বিভিন্ন জায়গায় ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে এবং তা বিরোধীদের মধ্যে তোলপাড়ের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এর আগে কলকাতা হাইকোর্ট আইপিএস দময়ন্তী সেনের তত্ত্বাবধানে রাজ্যে চারটি ধর্ষণের মামলার তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছিল। কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি মাটিয়া, ইংরেজবাজার, দেগঙ্গা এবং বাঁশদ্রোণি ধর্ষণ মামলায় এই নির্দেশ দিয়েছিলেন।

রাজ্যে একের পর এক ধর্ষণ মামলা সামনে এসেছে বিগত কিছুদিনে। যাতে বিরোধীরা রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন। বিজেপি কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ তো আরও এক ধাপ এগিয়ে কেন্দ্র আইন শৃঙ্খলা দেখুক বলে দাবি জানিয়ে দিয়েছে।