scorecardresearch
 

COVID বিধি-নিষেধের মেয়াদ বাড়ল রাজ্যে, কী খোলা কী বন্ধ?

Corona নিয়ে জারি থাকা বিধিনিষেধ বহাল রাখল রাজ্য সরকার। বুধবার এই নিয়ে নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। সেই নির্দেশিকার জানানো হয়েছে, ১৫ থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত করোনার বিধিনিষেধ বহাল থাকবে। রাত ১১টা থেকে ভোর ৫ টা পর্যন্ত মানুষের গতিবিধিতে যে নিয়ন্ত্রণ ছিল, তাও বহাল থাকবে।

রাজ্যে করোনার বিধিনিষেধ রাজ্যে করোনার বিধিনিষেধ
হাইলাইটস
  • Corona নিয়ে জারি থাকা বিধিনিষেধ বহাল রাখল রাজ্য সরকার।
  • বুধবার এই নিয়ে নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে।
  • সেই নির্দেশিকার জানানো হয়েছে, ১৫ থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত করোনার বিধিনিষেধ বহাল থাকবে

Corona নিয়ে জারি থাকা বিধিনিষেধ বহাল রাখল রাজ্য সরকার। বুধবার এই নিয়ে নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। সেই নির্দেশিকার জানানো হয়েছে, ১৫ থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত করোনার বিধিনিষেধ বহাল থাকবে। রাত ১১টা থেকে ভোর ৫ টা পর্যন্ত মানুষের গতিবিধিতে যে নিয়ন্ত্রণ ছিল, তাও বহাল থাকবে। 

আরও পড়ুন : হাইকোর্টে স্বস্তি রাজ্যের, আজ থেকেই 'দুয়ারে রেশন'

তবে এদিনের জারি করা নির্দেশিকায় লোকাল ট্রেন নিয়ে কোনও কথা উল্লেখ নেই। ফলে এখনই লোকাল ট্রেন চালু হবে এমন কোনও সম্ভাবনা নেই বলেই মনে করা হচ্ছে। 

কী জানানো হয়েছে নির্দেশিকায় 

রাজ্যের তরফে জারি করা নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, আগের মতোই করোনার বিধিনিষেধ জারি থাকবে। রাত এগারোটা থেকে ভোর পাঁচটা পর্যন্ত গতিবিধি যেভাবে নিয়ন্ত্রিত ছিল, তা বহাল থাকবে। স্বাস্থ্য পরিষেবা, আইন-কানুন সংক্রান্ত বিষয় বা অত্যাবশ্যক পরিষেবা সেই সময় চালু থাকবে।  

রাজ্য সরকারের জারি করা নির্দেশিকা
রাজ্য সরকারের জারি করা নির্দেশিকা

সামাজিক দূরত্ববিধি ও মাস্কে জোর 

করোনার সংক্রমণের কথা মাথা রেখে সামাজিক দূরত্ববিধি বজায় রাখার কথা নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে। বলা হয়েছে, মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক। সরকারি দফতর, বেসরকারি সংস্থাগুলিকেও সতর্ক করো হয়েছে। করোনার বিধিনিষেধ মানার ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে দায়িত্ব নেওয়ার বার্তা দেওয়া হয়েছে নির্দেশিকায়। করোনাবিধি যাতে বহাল থাকে,  তা নিয়ে পুলিশ প্রশাসন ও জেলাশাসকদের নজরদারি চালানোর নির্দেশ দিয়েছে নবান্ন। বিধি না মানলে উপযুক্ত পদক্ষেপ করা হবে, ঘোষণা সরকারের।

আরও পড়ুন : এক ডোজেই কাজ, দেশে ট্রায়ালের অনুমতি পেল Sputnik Light

প্রসঙ্গত, রাজ্যে করোনার সংক্রমণ কমলেও সম্পূর্ণ নির্মূল হয়ে যায়নি। মঙ্গলবার স্বাস্থ্য দফতর প্রকাশিত বুলেটিন, রাজ্যে একদিনে করোনা আক্রান্ত ৭০৩ জন। সোমবারের তুলনায় বেড়েছিল দৈনিক মৃত্যুও। মৃত্যু ১২ জনের।