scorecardresearch
 

Corona : বাড়িতে কেউ কোভিড পজিটিভ হলে কী করবেন? বিশেষজ্ঞরা যা বলছেন

করোনা সঙ্কটের মধ্যেই প্রত্য়েকের মনে একটি প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে যে, বাড়ির কোনও সদস্য যদি করোনায় আক্রান্ত হন বা বাড়ির কোনও শিশু করোনায় আক্রান্ত হয়, তাহলে বাবা-মা কীভাবে তার যত্ন নেবেন। আবার কারও কারও প্রশ্ন, বাবা-মা যদি করোনায় আক্রান্ত হন, তাহলে কতদিন তাদের সন্তানদের থেকে দূরে বিচ্ছিন্ন থাকতে হবে।

করোনা ভাইরাস। প্রতীকী ছবি করোনা ভাইরাস। প্রতীকী ছবি
হাইলাইটস
  • বাড়িতে কেউ কোভিড পজিটিভ হলে কী করবেন
  • বিশেষজ্ঞরা যা বলছেন
  • জানুন বিস্তারিত তথ্য

করোনা সঙ্কটের মধ্যেই প্রত্য়েকের মনে একটি প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে যে, বাড়ির কোনও সদস্য যদি করোনায় আক্রান্ত হন বা বাড়ির কোনও শিশু করোনায় আক্রান্ত হয়, তাহলে বাবা-মা কীভাবে তার যত্ন নেবেন। আবার কারও কারও প্রশ্ন, বাবা-মা যদি করোনায় আক্রান্ত হন, তাহলে কতদিন তাদের সন্তানদের থেকে দূরে বিচ্ছিন্ন থাকতে হবে। এই সমস্ত প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন সিএনএন-এর চিকিৎসা বিশ্লেষক ডাঃ লেনা ওয়েন। ডাঃ লেনা ওয়েন জর্জ ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটি মিলকেন ইনস্টিটিউট স্কুল অফ পাবলিক হেলথের একজন জরুরি চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্য নীতি ও ব্যবস্থাপনার অধ্যাপক।

প্রশ্ন: আইসোলেশন এবং কোয়ারেন্টাইনের মধ্যে পার্থক্য কী?

উত্তর: ডাঃ লীনা বলেছেন যে আইসোলেশন এবং কোয়ারেন্টাইনের মধ্যে একটি বড় পার্থক্য রয়েছে। পরীক্ষা করার পর যখন আপনি করোনা পজিটিভ তা জানতে পারলে আইসোলেশনের প্রয়োজন হয়। একই সময়ে, আপনি যখন করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে আসেন তখন কোয়ারেন্টাইন করা হয়, কিন্তু আপনি করোনার লক্ষণ দেখতে পান না বা আপনার কোভিড রিপোর্ট এখনও আসেনি। সেক্ষেত্রে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

প্রশ্ন: পরিবারের কোনো সদস্য বা বাবা-মা করোনায় আক্রান্ত হলে কী করা উচিত?

উত্তর: পরিবারের কোনো সদস্য করোনায় আক্রান্ত হলে তাঁকে অবিলম্বে অন্যদের থেকে বিচ্ছিন্ন করতে হবে। বাড়ির বাকি লোকদেরও অবিলম্বে পরীক্ষা করা উচিত। পরিবারের অন্যান্য সদস্যদেরও এর উপসর্গ থাকতে পারে।

প্রশ্ন: শিশুরা করোনায় আক্রান্ত হলে এবং পরিবারের অন্য সদস্যরা না হলে কী করবেন? তাহলে কে তাদের যত্ন নিতে হবে?

উত্তরঃ ডাঃ লীনা বলেছেন যে এটা খুবই কঠিন সময়। বিশেষ করে যদি আপনার সন্তান ছোট হয়। কারণ সে নিজের যত্ন নিতে পারে না। এই অবস্থায় পিতামাতার একজনেরই সন্তানের যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। খেয়াল রাখুন যে আপনাকে টিকা দেওয়া হয়েছে এবং আপনি সম্পূর্ণ সুস্থ রয়েছেন। এই অবস্থায় আক্রান্ত শিশুর সমস্ত জিনিস আলাদা করে দিন। যাতে বাড়ির বাকি লোকজন তার জিনিসের সংস্পর্শে আসতে না পারে। আক্রান্ত শিশুকে আলাদা ঘরে রাখার পাশাপাশি তার বাথরুমও আলাদা রাখতে হবে। করোনা আক্রান্ত শিশুর যত্ন নেওয়ার সময় মনে রাখবেন যে আপনি ২৪ ঘন্টা মাস্ক পরে থাকবেন, যাতে আপনি সংক্রমণ এড়াতে পারেন।

আপনি যদি একা অভিভাবক হন, তবে এই সময়টি আরও কঠিন হতে পারে। এমন পরিস্থিতিতে ঘরে পর্যাপ্ত বাতাস চলাচলের ব্যবস্থা থাকা প্রয়োজন। ঘরের দরজা-জানালা খোলা থাকতে হবে। এছাড়াও, সময়ে সময়ে আপনার হাত ধুতে থাকুন।

প্রশ্ন: কোয়ারেন্টাইন মানে কি আপনাকে পুরো সময় ভিতরে থাকতে হবে? আমি বাইরে যেতে পারি?

উত্তর: কোয়ারেন্টাইন মানে এই নয় যে আপনাকে পুরো সময় ঘরের মধ্যে বন্দী থাকতে হবে এবং অন্যদের থেকে দূরে থাকতে হবে। আপনি যদি এমন একটি বাড়ি বা অ্যাপার্টমেন্টে থাকেন যেখানে আপনি তাজা বাতাস পান না, তাহলে আপনি বাইরে যেতে পারেন। কিন্তু সতর্কতা অবলম্বন করা আবশ্যক. অন্যদের থেকে দূরত্ব বজায় রাখুন এবং বন্ধ জায়গায় মানুষের সঙ্গে থাকবেন না

প্রশ্ন: একজন করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিকে কতক্ষণ আইসোলেশনে থাকতে হবে?

উত্তর: CDC তার নতুন নির্দেশিকাতে এই সময়কাল ১০ দিন থেকে কমিয়ে ৫ দিনে করেছে। এর মানে হল প্রথম পাঁচ দিনের জন্য আপনাকে সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন করা উচিত। এর পরে আপনি বাইরে যেতে পারেন, তবে মনে রাখবেন বাইরে যাওয়ার সময় একটি ভাল মানের মাস্ক পরুন। এছাড়াও, মানুষের থেকে সঠিক দূরত্ব বজায় রাখুন। আপনি যদি একটি বড় পরিবার নিয়ে থাকেন, তবে আপনাকে ১০ দিন বিচ্ছিন্ন থাকতে হবে। এই ১০ দিন পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে বসে খাবার খাবেন না। একই বাড়িতেও মাস্ক পরতে থাকুন। সম্ভব হলে আলাদা বাথরুম ব্যবহার করুন।