scorecardresearch
 

Glowing Skin: কীভাবে ত্বককে রাতারাতি উজ্জ্বল করবেন? রইল ঘরোয়া উপায়

Skincare Tips: এই সমস্ত কারণগুলি ত্বকের উপর খারাপ প্রভাব সৃষ্টি করে। তবে কিছু উপায় আছে যার মাধ্যমে আপনার ত্বক সেই উজ্জ্বলতা পেতে পারে।

প্রতীকী ছবি প্রতীকী ছবি

ত্বক উজ্জ্বলতা হারানোয় অনেকই দুশ্চিতায় থাকেন। ত্বক নিস্তেজ হওয়ার মূল কারণ হল অস্বাস্থ্যকর জীবনযাত্রার অভ্যাস- যেমন ভুল ডায়েট, সঠিক ত্বকের যত্নের অভাব, ঘুমের অভাব, অতিরিক্ত মদ্যপান সহ আরও অনেক কিছু। এই সমস্ত কারণগুলি ত্বকের উপর খারাপ প্রভাব সৃষ্টি করে। তবে কিছু উপায় আছে যার মাধ্যমে আপনার ত্বক সেই উজ্জ্বলতা পেতে পারে। তাড়াতাড়ি উজ্জ্বল ত্বক পাওয়ার কৌশল হল ঘুমোতে যাওয়ার আগে সঠিক কিছু কাজ করা। 

দুধ

দুধ আপনার ত্বকের জন্য একটি দুর্দান্ত উপাদান। এটি সারা বিশ্বের মহিলা ব্যবহার করেন। প্রতিদিন ঘুমানোর আগে দুধ লাগান। এছাড়া নিয়মিত দুধ খেলে আপনার ত্বক স্বাভাবিকভাবে উজ্জ্বল হয়। 

কাঁচা ঠান্ডা দুধেতে একটি তুলোর বল ডুবিয়ে রাখতে হবে। এবার এই তুলোর বলটি আপনার ত্বকে ঘষুন। সারারাত রেখে সকালে ঠান্ডা জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এর ফলে ত্বকের কালো দাগ দূর হতে পারে। সেই সঙ্গে এটি আপনার চেহারাকে উজ্জ্বল করতে সাহায্য করবে।


নারকেল তেল

বেশিরভাগ মানুষ চুলের জন্য নারকেল তেল ব্যবহার করেন। তবে আপনি উজ্জ্বল ত্বক পেতে আপনার মুখে নারকেল তেলও লাগাতে পারেন! এমনকী আপনি এটি নিয়মিত ময়েশ্চারাইজার হিসাবে ব্যবহার করতে পারেন। আপনার ত্বককে গভীরভাবে হাইড্রেট করতে আপনাকে যা করতে হবে, তা হল কয়েক ফোঁটা নারকেল তেল নিয়ে ম্যাসাজ করুন।

নারকেল তেলের অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা, আপনার ত্বকের সামগ্রিক স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে এবং আপনার ত্বককে উজ্জ্বল করতে সাহায্য করবে। আপনার যদি ব্রণ-প্রবণ ত্বক থাকে, তবে এটি আপনার পুরো মুখে প্রয়োগ করার আগে একটি প্যাচ পরীক্ষা করুন। এমনকী আপনি ভিটামিন সি তেলের ২-৩ ফোঁটা যোগ করতে পারেন। ভিটামিন সি চোখের নিচের ডার্ক সার্কেল দূর করে।

বাদাম তেল

বাদামের তেল ত্বকের জন্য দারুণ। এটি ব্যবহার করলে একটি সুন্দর প্রাকৃতিক আভা দেয়। প্রথমে মুখ পরিষ্কার করে সমস্ত জায়গায় বাদামের তেল লাগাতে হবে। তেল লাগানোর পর আঙুলের ডগা দিয়ে আলতো করে ম্যাসাজ করুন এবং এটি সারা রাত আপনার ত্বকে শুষে নিতে দিন।

পরের দিন সকালে, হালকা ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন এবং এরপর হালকা ময়েশ্চারাইজার লাগান। বাদাম তেল দিয়ে আপনার ত্বকে ম্যাসাজ করলে, ত্বকে রক্ত ​​সঞ্চালন হয় এবং ত্বক সতেজ দেখায়। নারকেল তেলের মতই বাদাম তেলে ভিটামিন সি তেলের ২-৩ ফোঁটা যোগ করতে পারেন।

গোলাপ জল

গোলাপ জল নিঃসন্দেহে সৌন্দর্য ফিরিয়ে আনে। এটি সহজলভ্য। আপনার ত্বক তৈলাক্ত, শুষ্ক বা সংমিশ্রণ যাই হোক না কেন, আপনি আপনার সৌন্দর্য বজায় রাখতে গোলাপ জল ব্যবহার করতে পারেন।

সামান্য তুলো গোলাপ জলে ডুবিয়ে সারা মুখে আলতো করে লাগান। এটি আপনার ত্বকে রেখে দিন সারা রাত এবং পরের দিন সকালে ঠান্ডা জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটি আপনার ত্বককে দুর্দান্ত উজ্জ্বলতা দেবে এবং আপনার ত্বককে সতেজ, নরম এবং মসৃণ করে তুলবে।

মধু

মধুতে অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা ত্বকের ক্ষতিকে রক্ষা, মেরামত এবং প্রতিরোধ করতে সহায়তা করে। মধু ব্যবহারের আগে মেকআপ তুলে নিন। এর পরে, মধু এবং মুলতানি মাটির একটি প্যাক লাগান এবং কমপক্ষে ১৫ মিনিট রাখুন। প্যাকটি শুকিয়ে গেলে খুব অল্প জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

কমপক্ষে ২ মিনিটের জন্য আপনার মুখ ম্যাসাজ করার সময় ধীরে ধীরে প্যাকটি স্ক্রাব করুন। অবশেষে, ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন এবং একটি হালকা নাইট ক্রিম লাগান। মধু আপনার ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখতে সাহায্য করে। 

অ্যালোভেরা জেল

অ্যালোভেরা জেল যে কোনও ধরনের ত্বকের জন্য উপযুক্ত। এটি ব্যবহারে আপনি তাজা এবং উজ্জ্বল ত্বক পাবেন। সারা মুখে অ্যালোভেরা জেল লাগিয়ে সারা রাত রেখে দিন। সকালে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।