scorecardresearch
 

অবিশ্বাস্য! ট্রেনে ভারত থেকে নেপাল চলুন মাত্র ২০ টাকায়

ট্রেনে ভারত থেকে নেপাল চলুন মাত্র ২০ টাকায়। অবিশ্বাস্য লাগলেও এটাই সত্যি। চলতি মাসের শুরুতে দুদেশের প্রধানমন্ত্রী বিহার থেকে এই ট্রেন চালু করেছেন। যাতে নেপাল পৌঁছতে লাগবে মাত্র ২০ টাকা। বাকিটা বিস্তারিত জেনে নিন।

নেপাল।                   ছবি সৌজন্য-হলিডিফাই.কম নেপাল। ছবি সৌজন্য-হলিডিফাই.কম
হাইলাইটস
  • ভারত থেকে নেপাল চলুন মাত্র ২০ টাকায়
  • ট্রেনে করে নেপাল পৌঁছনোর সুযোগ
  • বাতানুকূল হলে খরচ মাত্র ১০০ টাকা

বিদেশ ভ্রমণ মানেই কাঁড়ি কাঁড়ি টাকা খরচ। মাগ্গি-গণ্ডার বাজারে খরচ আরও বেড়েছে। তাই বিদেশ ভ্রমণ অনেকেই স্থগিত রাখছেন। এর মধ্যে আপনার জন্য সুখবর নিয়ে আসছি সস্তায় নেপাল ভ্রমণের। ভাবছেন, কত আর সস্তা হবে? যদি বলি বিকেলে দুটো সিঙাড়ার কি চপের দামের চেয়েও সস্তা। ভারত থেকে নেপাল যাওয়ার খরচ এখন মাত্র ২০ টাকা।  

২ এপ্রিল থেকে শুরু হয় পুনর্যাতায়াত

ভারত থেকে নেপাল যাওয়ার ট্রেন চালু হয়ে গিয়েছে। ৩ এপ্রিল ২০২২ থেকে ভারত ও নেপালের  দুদেশের  প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে তিনি যাত্রার সূচনা করেন। ২১ বছর বন্ধ থাকার পর ভারত থেকে নেপালে ট্রেন চালু হল। ভারত-নেপাল ট্রেন সার্ভিস কিন্তু শুরু হয়েছিল। ব্রিটিশ আমলে স্বাধীনতার আগে ১৯৩৭ সালে চালু হওয়া ভারত থেকে নেপাল রেলপথ বন্ধ করে দিতে হয়েছিল। ২০০১ সালে নেপালে প্রবল বন্যার কারণে বন্ধ হয়ে যাওয়া পথে নতুন করে ট্রেন চলাচল শুরু করতে এত বছর সময় চলে গেল। যাই হোক দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী ভারতের নরেন্দ্র মোদী ও নেপালের শের বাহাদুর ধুবার যৌথ উদ্যোগে ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে ট্রেনের সূচনা করেন।

ট্রেন

দিনে কবার কখন চলবে ট্রেন?

দিনে ২ বার, বিহারের জয়নগর থেকে নেপালের কুরথা পর্যন্ত যাতায়াত করবে এই ট্রেনটি। ভারত থেকে নেপাল যাওয়ার ট্রেনের টাইমগুলো জেনে নেওয়া যাক। পূর্ব ও মধ্য রেলের উদ্যোগে এই ট্রেনটি জয়নগর থেকে ছাড়ছে সকাল ৮ টায়। সাড়ে ১০ টায় পৌঁছে যাচ্ছে নেপালের কুরথায়। ভারতের উদ্দেশ্যে রওনা দিচ্ছে ট্রেনটি ১০ টা ৪৫ এ জয়নগর পৌঁছে যাচ্ছে  পৌনে ১ টায়। এরপরে আবার বিকেল ৩ টে রওনা দিচ্ছে ওদেশে পৌঁছেছে ৫ টায়। আবার সওয়া ৫ টায় রওনা দিয়ে জয়নগর আসছে সন্ধ্যা সওয়া ৭ টায়।

কটি কামরা ও আসন রয়েছে?

পাঁচটি বগি এই ডিজেল ইঞ্জিন ৩৫৮ টি আসন রয়েছে। এর মধ্যে ১১২ টি বাতানুকূল। ট্রেন চলাচলের জন্য কোঙ্কন রেলওয়ে কর্পোরেশন লিমিটেড আধুনিক মানের কোচ এখানে ব্যবহার করতে দিয়েছেন। মোট ৩৪.৫ কিলোমিটার যাত্রা পথে ৮ টি স্টেশন রয়েছে। জয়নগর, ইনরোওয়া, খাজুরি, মহিনাথপুর, বৈদেহী, বৈরি পরবাহা, জনকপুরধাম ও কুরথা। যাত্রাপথে ছোট-বড় মিলিয়ে রয়েছে ১৪২ টি সেতু।

নেপাল

টিকিট কীভাবে, কোথায় পাবেন?

টিকিট অনলাইনে পাবেন। তাছাড়া যে কোনও উল্লিখিত স্টেশন থেকে পাবেন। ট্রেনে টিকিট বিক্রি হচ্ছে নেপালে নেপালের মুদ্রায় এবং ভারতে ভারতীয় মুদ্রায়। প্রান্তিক স্টেশনগুলি থেকেও পেয়ে যাবেন টিকিট। 

টিকিটের দাম কত?

নেপাল থেকে ভারত বা ভারত থেকে নেপাল অর্থাৎ জয়নগর ও কুরথা স্টেশনের মধ্যে সাধারণ শ্রেণির অবাতানুকূল আসনের ভাড়া মাত্র ৯০ টাকা। অর্থাৎ ৯০ টাকার টিকিট কাটলে আপনি নেপাল পৌঁছে যেতে পারবেন। বাতানুকূল হলে একই যাত্রা পথে টিকিটের দাম পড়বে ৪৫০ টাকা। যাতায়াতের জন্য সাধারণত দুটো শ্রেণি রয়েছে। দ্বিতীয় শ্রেণির ভাড়া সর্বনিম্ন ২০ টাকা। ভারতের জয়নগর থেকে নেপালের মহিনাথপুর পর্যন্ত ভারতীয় মুদ্রায় ভাড়া ২০ টাকা। এই পথ যদি বাতানুকূল শ্রেণিতে যেতে হয়, তাহলে পড়বে ১০০ টাকা ।

তবে বাংলা সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তের যারা যাত্রী, যারা নিজেদের সুবিধা নিতে চান বা ট্রেনে করে যারা পৌঁছতে চান নেপাল, তাদের কিন্তু আসতে হবে বিহারের জয়নগর স্টেশন পর্যন্ত। সেখান থেকে আপনারা ট্রেনে চেপে পৌঁছে যেতে পারবেন নেপালের উদ্দেশে।

 

 
; ; ;