scorecardresearch
 

Hongkong Market Siliguri: টুরিস্টদের চুম্বকের মতো টানে, শিলিগুড়ির হংকং মার্কেটের এমন নামের কারণ জানেন?

Hongkong Market Siliguri: শিলিগুড়ির হংকং মার্কেট নামটাই যথেষ্ট পর্যটক আকর্ষণের জন্য। তিরিশ-চল্লিশ বছর ধরে একইভাবে চুম্বকের মতো লোক টানছে এই মার্কেট। আগের মতো জৌলুস না থাকলেও ভিড় বেড়েই চলেছে। কিন্তু নাম এমন কেন, জানেন?

শিলিগুড়ির হংকং মার্কেট, শপারদের স্বর্গ           ছবি সৌজন্য-ফেসবুক শিলিগুড়ির হংকং মার্কেট, শপারদের স্বর্গ ছবি সৌজন্য-ফেসবুক
হাইলাইটস
  • হংকং মার্কেট পর্যটকদের পছন্দ
  • এর নামের পিছনে আছে মজার ইতিহাস

যতই শপিং মল (Shopping Mall) কালচার চালু হোক, শিলিগুড়ির (Siliguri) বাসিন্দাদের রকমারি চাহিদা মেটানোর ভরসা ও আকর্ষণ এখনও সেই হংকং মার্কেটই (Hongkong Market)। তবে সারাদিনের মূল ভিড়টা জমান পাহাড় থেকে আসা মানুষই। সিকিম(Sikkim), নেপাল( Nepal) ও বিহার (Bihar) প্রচুর মানুষ দিনভর শিলিগুড়িতে নানা কাজে ঘুরে বেড়ান, তাঁদের ভিড়ে জমজমাট থাকে এই মার্কেট। আবার বিকেলের পর থেকে মার্কেট থাকে কলকাতা (Kolkata) বা অন্য় জায়গা থেকে যাঁরা তরাই-ডুয়ার্স-পাহাড় (Hill-tarai-doors) ঘুরতে আসেন, তাঁদের দখলে। ফলে স্বাভাবিক দিনে রাত ১০ টা পর্যন্ত তিল ধারণের জায়গা থাকে না।

'হংকং মার্কেট' নাম কেন?

রোজকার প্রয়োজনে বা চাহিদায় যাঁরা এই মার্কেটে আসেন, তাঁদের মধ্যে তেমন হেলদোল না থাকলেও বাইরের পর্যটকদের মনের মধ্যে অনেকেরই মনে প্রশ্ন জাগে বাংলার এই শহরের বুকে হংকং এর নামে মার্কেট কেন? আসলে এক সময় ঘুরিয়ে একটা যোগাযোগ ছিল। সেই থেকেই নাম। আজ আর যোগাযোগ নেই। কিন্তু নামটা রয়ে গিয়েছে।

এক সময় মিলত হংকং-চিনা সামগ্রী

গন প্রজাতন্ত্রী চিনের (People Republic Of China) দুটি প্রশাসনিক অঞ্চলের একটি হল হংকং(Hongkong)। একটা সময় যখন আজকের মতো মুক্ত বাণিজ্য(Open Trade) চালু হয়নি, তখন হংকং কি চিনের পণ্য এদেশে পাওয়া যেত না। ফলে রকমারি জিনিস পেতে হলে চড়া দাম দিয়ে দিল্লি থেকে আনতে হতো। শিলিগুড়ি থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে নেপাল সীমান্ত। নেপালে এক সময় চিন বা অন্য বিদেশি পণ্যের ছিল রমরমা। আর নেপাল থেকেই সব পণ্য চোরাপথে চলে আসত শিলিগুড়িতে। শিলিগুড়ি বিধান মার্কেটের পাশেই আশির দশক থেকে রমরমিয়ে শুরু হয় ওই সমস্ত মাল বিক্রি।হংকং মার্কেট মুখে মুখে চালু হয়ে যায়। পরে তা লিখিতভাবেও স্বীকৃত হয়।

এখন আগের মতো অভিনবত্ব নেই, তবে ভিড় আছে

চিনা দ্রব্য থেকে শুরু করে অন্য অনেক দেশের ছোটখাট পণ্য সস্তায় এখানে বিক্রি হত। সেই সব পণ্য শিলিগুড়ির এই মার্কেট থেকে কিনতে হুমড়ি খেয়ে পড়তেন পর্যটকরা। এখন অবশ্য এখান সব দিল্লি (Delhi) থেকে আনা পণ্যই পাওয়া যায়। কারণ গোটা দেশেই বিদেশী পণ্য সব জায়গাতেই মেলে। ফলে সেই মার্কেট গুরুত্ব হারিয়েছে। তবুও এর মধ্যেই এখনও এই মার্কেটে এমন অনেক জিনিস পাওয়া যায়, যা চট করে সব মার্কেটে পাওয়া যায় না বলে এখনও আকর্ষণ ধরে রেখেছে বলে ব্যবসায়ীদের অনেকেরই দাবি। মার্কেট কমিটি আকর্ষণ বাড়াতে হংকং মার্কেট লেখা গেট স্থাপন করেছেন।

কী কী জিনিস পাওয়া যায়, যা অন্য জায়গায় বিরল

জানা গিয়েছে প্রথমে মার্কেট শুরু হয়েছিল খান চল্লিশ দোকান ছিল। এখন এই মার্কেটে ৫০০ স্টল রয়েছে। ব্যবসায়ীরা জানিয়েছে বেলজিয়াম (Belgium), চেকশ্লোভাকিয়ার(czech) স্লোভাকিয়ার (Slovakia) কম্বল, আমেরিকা(USA), কোরিয়া(Korea)-র ডিনার সেট এগুলি যে কোনও বড় শহরে চাইলেও সব সময় পাবেন না। পাশাপাশি দামি ব্র্যান্ডের ফাস্ট, সেকেন্ড কপি এখানে সস্তায় মেলে। তবে মার্কেটের সঙ্গে গা লাগিয়ে আছে শেঠ শ্রীলাল মার্কেট(Seth Srilal Market), বিধান মার্কেট(Bidhan Market)। তাই গেট লাগিয়ে পৃথক করা হয়েছে হংকং মার্কেটকে।