scorecardresearch
 

Kolkata Book Fair 2022 : ২৩ কোটি পার! COVID-ধাক্কা কাটিয়ে রেকর্ড বিক্রি বইমেলায়

Kolkata Book Fair 2022: কলকাতা বইমেলা (Kolkata Book Fair)-য় রেকর্ড টাকার বই বিক্রি হয়েছে। কলকাতা বইমেলার আয়োজক পাবলিশার্স অ্যান্ড বুকসেলার্স গিল্ড (Publishers and Booksellers Guild) এ কথা জানিয়েছে। আগামী বছর কলকাতা বইমেলা (Kolkata Book Fair)-র থিম দেশ স্পেন।

কলকাতা বইমেলায় রেকর্ড টাকার বই বিক্রি হয়েছে (প্রতীকী ছবি) কলকাতা বইমেলায় রেকর্ড টাকার বই বিক্রি হয়েছে (প্রতীকী ছবি)
হাইলাইটস
  • কলকাতা বইমেলায় রেকর্ড টাকার বই বিক্রি হয়েছে
  • এবার ২৩ কোটি টাকার বেশি বই বিক্রি হয়েছে
  • মেলায় এসেছিলেন ২০ লক্ষের বেশি মানুষ

Kolkata Book Fair 2022: কলকাতা বইমেলা (Kolkata Book Fair)-য় রেকর্ড টাকার বই বিক্রি হয়েছে। এবার ২৩ কোটি টাকার বেশি বই বিক্রি হয়েছে। যা আগের সব রেকর্ডকে ছাপিয়ে গিয়েছে। মেলা (Kolkata Book Fair)-য় এসেছিলেন ২০ লক্ষের বেশি মানুষ। কলকাতা বইমেলার আয়োজক পাবলিশার্স অ্যান্ড বুকসেলার্স গিল্ড (Publishers and Booksellers Guild) এ কথা জানিয়েছে। আগামী বছর কলকাতা বইমেলা (Kolkata Book Fair)-র থিম দেশ স্পেন। করোনাকে হারিয়ে বইপ্রেমীদের ভিড়ে খুশি গিল্ড (Publishers and Booksellers Guild)।

বইমেলা প্রাঙ্গন
রবিবার শেষ হয়েছে কলকাতা বইমলা (Kolkata Book Fair)। তা বিধাননগরের সেন্ট্রাল পার্ক (Central Park)-এ আয়োজন করা হয়েছিল। গত বেশ কয়েক বছরে তা সেখানেই আয়োজিত হচ্ছে। এবার উদ্বোধনের সময় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় (WB CM Mamata Banerjee) ঘোষণা করে দেন, সেখানেই প্রতি বছর বইমেলার আসর বসবে। সেন্ট্রাল পার্কের নাম করা হয়েছে বইমেলা প্রাঙ্গন (Boimela Prangan)। 

আরও পড়ুন : কলকাতা বইমেলায় কেপমারির অভিযোগে গ্রেফতার অভিনেত্রী

২০২১ সালে আয়োজন করা হয়নি
করোনার কারণে ২০২১ সালে কলকাতা বইমেলা (Kolkata Book Fair)-র আয়োজনে ছেদ পড়েছিল। জানুয়ারি মাসের শেষ বিধবার শুরু হয় কলকাতা বইমেলা। ২০২১ সালে সে সময় করোনার কারণে তা আয়োজন করা যায়নি। পরে ঠিক হয় বছরের মাঝামাঝি সময়ে করা যেতে পারে। তবে তখন করোনার বিধিনিষেধ ছিল। শেষ পর্যন্ত আর বইমেলা করে ওঠা যায়নি।

Kolkata Book Fair record books sold held at Bidhannagar Central Park renamed Boimela Prangan WB CM Mamata Banerjee Publishers and Booksellers Guild

এবারও মেলা বসবে কিনা, তা নিয়ে প্রবল অনিশ্চয়তা তৈরি হয়। কারণ চলতি বছরের প্রথম দিকে করোনা সংক্রমণ অনেকটাই বেড়ে গিয়েছিল। রাজ্যে কড়া কোভিড বিধিনিষেধ শুরু করতে হয়। বন্ধ রাখা হয়েছিল লোকাল ট্রেন পরিষেবা। পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। মেলা (Kolkata Book Fair) আয়োজনের অনুমতি পাওয়া যায়।

গিল্ড জানাচ্ছে
পাবলিশার্স অ্যান্ড বুকসেলার্স গিল্ড (Publishers and Booksellers Guild) সভাপতি সুধাংশু দে জানান, বইমেলায় ২৩ কোটি টাকার বেশি বই বিক্রি হয়েছে। মেলায় এসেছিলেন ২০ লক্ষের বেশি মানুষ।

Kolkata Book Fair record books sold held at Bidhannagar Central Park renamed as Boimela Prangan Mamata Banerjee Publishers and Booksellers Guild

সংগঠন (Publishers and Booksellers Guild) -এর সাধারণ সম্পাদক ত্রিদিব চট্টোপাধ্যায় জানান, ২৩ কোটি টাকা পেরিয়ে গিয়েছে। শেষবার ছিল ২০ কোটি। মেলায় অংশগ্রহণকারী প্রকাশকেরা সবাই বলেছেন, গতবারের থেকে ১০ থেকে ১৫ শতাংশ বেশি বিক্রি হয়েছে। 

আরও পড়ুন: দুর্গাপুজোকে ইউনেস্কো-স্বীকৃতি, উদযাপনে বুধবার পদযাত্রা কলকাতায়

তিনি জানাচ্ছেন, বইয়ের সংখ্যা অনেক বেশি বিক্রি হয়েছে। তার কারণ অনেক পাতলা পাতলা বই অনেক নতুন প্রকাশকদের কাছ থেকে বেরিয়েছে। যেগুলো খুব কিছু দামী নয়। কোভিডের পর নতুন প্রকাশক এসেছেন। যাঁরা অনলাইনে ব্যবসা করেন। এবং তাঁদের বই বিক্রি ভাল হয়েছে। ফলে বই বিক্রির ইউনিটও বেড়েছে।

Kolkata Book Fair Bidhannagar Central Park renamed as Boimela Prangan by WB CM Mamata Banerjee Publishers and Booksellers Guild

লটারিতে বই
মানুষের মধ্যে বই পড়ার আগ্রহ বাড়াতে বিভিন্ন রকমের আয়োজন করে গিল্ড। যেমন বই কিনলে লটারি এবং পুরস্কার হিসেবে মেলে বই। মেলা চলার সময় দৈনিক ১ হাজার টাকার বই কিনলে পাওয়া যায় কুপন। সেই কুপন থেকে হয় লটারি। লটারির পুরস্কার হিসেবে থাকে ১ হাজার টাকার বই। মেলার যে কোনও জায়গা থেকে বই কিনলেই হবে। বইমেলা চলার সময় রোজ ১৫ জন করে পাঠককে এই পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। এর পাশাপাশি ২৫ হাজার করে বই পুরস্কার হিসেহে দেওয়া হয়েছে চারজনকে।