scorecardresearch
 

Novak Djokovic:দ্বিতীয়বার বাতিল ভিসা, অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে নেই জোকোভিচ

অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন এই ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করেন। তিনি সরাসরি বলেন, কোভিড বিধি না মানলে দেশে ঢোকা যাবে না। যদিও চূরান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার ভার দেশের অভিবাসন মন্ত্রী অ্যালেক্স হকের উপর ছেড়ে দেন তিনি। জোকোভিচকে নিয়ে এই জটিলতার জেরে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের (Australian Open) ড্র করতে দেরী হয়। মূলত অস্ট্রেলিয়ার সরকারের সঙ্গে কোভিড স্বাস্থ্যবিধি নিয়ে মুখোমুখি লড়াইয়ে নামেন জোকোভিচ। গোটা টেনিস দুনিয়া কার্যত দুই ভাগে ভাগ হয়ে যায়। অনেকেই মনে করতে থাকেন, অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে জোকোভিচকে খেলতে দেওয়া উচিত। আবার অনেকেই মনে করেন, বাড়াবাড়ি করছেন বিশ্বের এক নম্বর টেনিস তারকা।

নোভাক জোকোভিচ নোভাক জোকোভিচ
হাইলাইটস
  • ফের বাতিল ভিসা
  • সমস্যায় জোকোভিচ

শেষ পর্যন্ত বাতিল হয়ে গেল নোভাক জোকোভিচের (Novak Djokovic) ভিসা। ফলে ফের অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে তাঁর খেলা নিয়ে তৈরি হল জটিলতা। গত বৃহস্পতিবার অস্ট্রেলিয়াতে নামতেই তাঁকে আটক করে সে দেশের অভিবাসন দপ্তর। ভিসা না হওয়ায় তাঁকে আটক করা হয়। এরপর এই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে অভিবাসন আদালতের দ্বারস্থ হন বিশ্বের এক নম্বর টেনিস তারকা। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল কোভিড ভ্যাকসিন সংক্রান্ত তথ্য গোপন করার। চিকিৎসক প্যানেলের দেওয়া ছাড়পত্র নিয়েও ছিল প্রশ্ন। এরপর ফের আবেদন করেন জোকোভিচ। তবে সেই আবেদনও নাকচ হওয়ায় বছরের প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যামে হয়ত নামতে পারছেন না জোকোভিচ। 
জোকোভিচের ব্যাপারে হস্তক্ষেপ অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রীর
অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন এই ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করেন। তিনি সরাসরি বলেন, কোভিড বিধি না মানলে দেশে ঢোকা যাবে না। যদিও চূরান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার ভার দেশের অভিবাসন মন্ত্রী অ্যালেক্স হকের উপর ছেড়ে দেন তিনি। জোকোভিচকে নিয়ে এই জটিলতার জেরে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের (Australian Open) ড্র করতে দেরী হয়। মূলত অস্ট্রেলিয়ার সরকারের সঙ্গে কোভিড স্বাস্থ্যবিধি নিয়ে মুখোমুখি লড়াইয়ে নামেন জোকোভিচ। গোটা টেনিস দুনিয়া কার্যত দুই ভাগে ভাগ হয়ে যায়। অনেকেই মনে করতে থাকেন, অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে জোকোভিচকে খেলতে দেওয়া উচিত। আবার অনেকেই মনে করেন, বাড়াবাড়ি করছেন বিশ্বের এক নম্বর টেনিস তারকা।
কী রয়েছে অভিবাসন আইনে
অস্ট্রেলিয়ার অভিবাসন আইন অনুযায়ী, করোনা কালে যদি কোন বিদেশি নাগরিক অস্ট্রেলিয়ায় প্রবেশ করতে চান তবে তাঁকে দুটি ভ্যাকসিন নিতেই হবে।

চিকিৎসক প্যানেলের ছাড়পত্র নিয়েও উঠেছে প্রশ্ন
জোকোভিচ বরাবরই করোনার টিকা নেওয়ার বিরোধী। গতবছর ১৬ ডিসেম্বর তিনি করোনায় আক্রান্ত হওয়ার টিকা না নেওয়ার ব্যাপারে চিকিৎসক প্যানেলের ছাড়পত্র যোগাড় করেন। যদিও এই টানাপোড়েনের মাঝে জোকোভিচ স্বীকার করেছেন অস্ট্রেলিয়ায় আসার আগে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন তিনি মানেননি। ফলে চিকিৎসক প্যানেলের ছাড়পত্র নিয়েও প্রশ্ন উঠে যায়। এই অবস্থাতে দ্বিতীয়বার টেনিস তারকার ভিসা বাতিল হল। অনিশ্চিত হল অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের তাঁর খেলা।