scorecardresearch
 

Euro 2024 England vs Netherlands Highlights: সাউথগেটের চালেই বাজিমাত ইংল্যান্ডের, ডাচদের হারিয়ে ফাইনালে কেনরা

ইউরো কাপের (Euro Cup 2024) ফাইনালে চলে গেল ইংল্যান্ড (England)। সেমি ফাইনালে নেদারল্যান্ডকে ২-১ গোলে হারিয়ে কাপ জয়ের আরও কাছে গ্যারেথ সাউথগেটের দল। এবারের ইউরো কাপে সাউথগেটের ইংল্যান্ডকে নিয়ে নানা সমালোচনা থাকলেও, কাজের কাজটা দারুণভাবে করে যাচ্ছে তারা। এদিনও তার অন্যথা হল না। ম্যাচ শেষের ১০ মিনিট আগে সাউথগেটের দু'টি পরিবর্তনই জয়ের রাস্তা তৈরি করে দেয় হ্যারি কেনদের জন্য।

Advertisement
ফাইনালে উঠে উচ্ছ্বাস কোচ ও ক্যাপ্টেনের ফাইনালে উঠে উচ্ছ্বাস কোচ ও ক্যাপ্টেনের

ইউরো কাপের (Euro Cup 2024) ফাইনালে চলে গেল ইংল্যান্ড (England)। সেমি ফাইনালে নেদারল্যান্ডকে ২-১ গোলে হারিয়ে কাপ জয়ের আরও কাছে গ্যারেথ সাউথগেটের দল। এবারের ইউরো কাপে সাউথগেটের ইংল্যান্ডকে নিয়ে নানা সমালোচনা থাকলেও, কাজের কাজটা দারুণভাবে করে যাচ্ছে তারা। এদিনও তার অন্যথা হল না। ম্যাচ শেষের ১০ মিনিট আগে সাউথগেটের দু'টি পরিবর্তনই জয়ের রাস্তা তৈরি করে দেয় হ্যারি কেনদের জন্য।

প্রথমেই গোল করে নেদারল্যান্ডকে এগিয়ে দিয়েছিলেন জাভি সিমন্স। তবে সেই গোল কিছু সময়ের মধ্যেই শোধ করে দেন হ্যারি কেন। ৯০ মিনিটে অলি ওয়াটকিন্সের গোলে জিতে যায় ইংল্যান্ড। ফাইনালে তাদের সামনে স্পেন। ম্যাচের শুরুতে ইংল্যান্ড নিজেদের পায়ে বল রেখে খেলার চেষ্টা করলেও, ডাচদের লক্ষ্য ছিল দ্রুত গোল তুলে নেওয়া। ম্যাচের মাত্র ৪ মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারত তারা।তবে সেক্ষেত্রে দলকে বাঁচিয়ে দেন জর্ডন পিকফোর্ড। নিরন্তর আক্রমণের ফসল পায় নেদারল্যান্ড ৭ মিনিটেই গোল পেয়ে যায় ডাচরা। মাঝমাঠে ইংল্যান্ডের ডেক্লান রাইস বল নিজের নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারেননি। তা পেয়ে যান সিমন্স। একাই এগিয়ে যান গোলের লক্ষ্যে। বক্সের ভেতরে ঢুকে পড়ে শট করলেও তার আগেই পিছলে যান। যদিও তাঁর শট তাতে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়নি। সেই শট আটকাতেও পারেননি পিকফোর্ড। গোল খাওয়ার পরে কিছু সময় হতোদ্যম হয়ে পড়ে ইংল্যান্ড। সেই সময় সুযোগ পেলেও তা কাজে লাগাতে পারেনি ডাচরা।

পিছিয়ে থাকা ইংল্যান্ড কিছুটা নিজেদের খেলায় ফিরিয়ে আনে ফিল ফোডেনের মাধ্যমে। তাঁর দারুণ শটে গোল না হলেও, আত্মবিশ্বাস অনেকটা ফিরে পায় থ্রি লায়ন্সরা। এর ঠিক ২ মিনিট পরেই পেনাল্টি পেয়ে যায় তারা। বুকায়ো সাকার শট ডাচ রক্ষণ প্রতিহত করলে তা হ্যারি কেনের কাছে চলে আসে। তাঁকে আটকাতে গিয়েই সমস্যায় পড়েন ডেঞ্জিল ডামফ্রিস। হ্যারি শট মারার পর তাঁর পা ইংল্যান্ড অধিনায়ককে আঘাত করে। ভার-এর সাহায্য নিয়ে মাঠের রেফারি পেনাল্টির সিদ্ধান্ত নেন। হ্যারির শট আটকাতে পারেননি নেদারল্যান্ডস গোলকিপার ভারব্রুগেন। 

Advertisement

এরপর ইংল্যান্ড জয়সূচক গোল তুলে নিতে ঝাঁপালেও ডামফ্রিস বাধা হয়ে দাঁড়ান। গোল লাইন সেভ করেন। গোল করার সুযোগও পেয়েছিলেন ডামফ্রিস। তাঁর হেড বারে লাগে। তবে ৮০ মিনিটে গোলদাতা হ্যারি কেনকে তুলে নিয়ে সাউথগেট নামিয়ে দেন অলি ওয়াটকিন্সকে। কোল পামার চলে আসেন ফিল ফোডেনের জায়গায়। আর তাতেই কাজের কাজ করে ফেলে ইংল্যান্ড। ওয়াটকিন্সের কোনাকুনি শটে ইংল্যান্ডের জন্য ফাইনালের টিকিট কনফার্ম করে দেয়। তবে আর ম্যাচে ফিরতে পারেনি ডাচরা।  

Advertisement