scorecardresearch
 
 

নাদালের টুইট বার্তা, টোকিও অলিম্পিক ও উইম্বলডনে খেলবেন না স্প্যানিশ তারকা

আসন্ন টোকিও অলিম্পিক ও উইম্বলডন ওপেনে দেখা যাবে না নাদালকে। এই দুই টুর্নামেন্ট থেকে নাম তুলে নিয়েছেন স্প্যানিশ টেনিস খেলোয়াড়। 

উইম্বলডন ও টোকিও অলিম্পিক থেকে নাম তুলে নিলেন নাদাল। ফাইল ছবি। উইম্বলডন ও টোকিও অলিম্পিক থেকে নাম তুলে নিলেন নাদাল। ফাইল ছবি।
হাইলাইটস
  • উইম্বলডন ওপেন থেকে নাম তুলে নিলেন নাদাল
  • আসন্ন টোকিও অলিম্পিকেও খেলবেন না রাফা
  • শরীর নিয়ে চিন্তায় স্পেনের টেনিস তারকা

ব়্যাকেট হাতে ২০টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতেছেন স্পেনের তারকা রাফায়েল নাদাল। শেষ ফরাসি ওপেনে দারুণ পারফর্ম করে ফাইনালে উঠেছিলেন রাফা। তবে ২০টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ী খেলোয়াড় ফাইনালে হেরে যান বিশ্বের এক নম্বর তারকা টেনিস খেলোয়াড় নোভাক জকোভিচের কাছে। ফাইনালে প্রথমে ভালো শুরু করলেও শেষের দিকে আর টানতে পারছিলেন না নাদাল, সেটা দেখেই বোঝা যাচ্ছিল। ফলে আরও একটি সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন এই স্প্যানিশ তারকা।

আসন্ন টোকিও অলিম্পিক ও উইম্বলডন ওপেনে দেখা যাবে না নাদালকে। এই দুই টুর্নামেন্ট থেকে নাম তুলে নিয়েছেন স্প্যানিশ টেনিস খেলোয়াড়। 

একটি টুইট করে বৃহস্পতিবার বিকেলে এই দুই টুর্ণামেন্টে না খালার কথা জানিয়েছেন নাদাল। তিনি লিখেছেন, সবাইকে একটা কথা বলি আমি এবছর ঠিক করেছি আসন্ন উইম্বলডন ওপেন ও টোকিওতে অনুষ্ঠিত হওয়া অলিম্পিক গেমস, এই দুই টুর্নামেন্টে আমি অংশগ্রহণ করব না। এটা খুব কঠিন একটা সিদ্ধান্ত ছিল আমার জন্য তবে আমার শরীরের দিকে তাকিয়ে এই সিদ্ধান্ত আমাকে নিতেই হলো। আমি আমার টিমের সঙ্গে এই বিষয়ে আলোচনা করেছি।

 

 

৩৫ বছর বয়সী এই টেনিস খেলোয়াড় ইতিমধ্যে অনেক নাম করে ফেলেছেন তবে আগামী দিনে আরও কিছু বছর খেলা চালিয়ে যেতে চান নাদাল এমনটাই খবর তার দল সূত্রে। ফলে ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করেই আগামী কিছু সপ্তাহ বিশ্রামে থাকতে চান রাফা। নিজেকে বিশ্রামে রেখে এখন থেকেই কয়েকটা টুর্নামেন্টেই হয়তো রজার ফেডেরারের মতো দেখা যাবে নাদালকে। 

২০০৮ ও ২০১০ সালে উইম্বলডন ওপেন জিতেছিলেন নাদাল। অন্যদিকে ২০০৮ সালে অলিম্পিকে সোনা পেয়েছিলেন এই স্পেনিশ তারকা। আগামী ২৮ শে জুন থেকে শুরু হতে চলেছে উইম্বলডন ওপেন। রোলাঁ গাঁরোয় ফরাসি ওপেনে চোট পেয়েছিলেন নাদাল একই সঙ্গে শারীরিক কিছু সমস্যা ছিল ফলে উইম্বলডন ওপেন এর আগে পুরোপুরি ফিট হতে পারবেন না স্পেনের তারকা তাই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ২০টি গ্র্যান্ড স্লাম জয়ী টেনিস খেলোয়াড়।