scorecardresearch
 

Private Photo Video Leak: ফোন থেকে কীভাবে লিক হয় ব্যক্তিগত ছবি-VIDEO? যে ভুলগুলিতেই বিপদ আসে

ফোন থেকে ব্যক্তিগত ছবি ও ভিডিও ফাঁস (Private Photo-Video Leak) হওয়া কোনও ব্যাপার নয়। অতীতেও, ফোন (Phone) থেকে ব্যক্তিগত ছবি ফাঁস হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে। ফোনে নিরাপত্তা থাকার পরও মোবাইল থেকে ভিডিও ও ছবি ফাঁস হয়ে যায়।

ফোন থেকে কীভাবে লিক হয় ব্যক্তিগত ছবি-VIDEO ফোন থেকে কীভাবে লিক হয় ব্যক্তিগত ছবি-VIDEO
হাইলাইটস
  • থার্ড পার্টি অ্যাপের ব্যাপারে সতর্ক থাকুন
  • অফিসিয়াল অ্যাপ স্টোর থেকে যে কোনও অ্যাপ ইনস্টল করবেন

ফোন থেকে ব্যক্তিগত ছবি ও ভিডিও ফাঁস (Private Photo-Video Leak) হওয়া কোনও ব্যাপার নয়। অতীতেও, ফোন (Phone) থেকে ব্যক্তিগত ছবি ফাঁস হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে। ফোনে নিরাপত্তা থাকার পরও মোবাইল থেকে ভিডিও ও ছবি ফাঁস হয়ে যায়। এর অনেক কারণ থাকতে পারে। আমরা এখানে সেই কারণগুলি নিয়ে আলোচনা করব এবং ফোন থেকে ফোটো-ভিডিও ফাঁস এড়াতে আপনি কী করতে পারেন তা জানার চেষ্টা করব৷ প্রথম কারণটি বেশ সাধারণ এবং কোনও প্রযুক্তিগত জ্ঞানের প্রয়োজন নেই।

আপনি যদি আপনার ব্যক্তিগত ছবি কাউকে পাঠিয়ে থাকেন এবং তিনি তা অন্য কাউকে ট্রান্সফার করেন, তাহলে ফোটো ফাঁস হতে পারে। এছাড়াও, যদি কেউ আপনার ফোনে অ্যাক্সেস পেয়ে থাকেন, তবে তিনি তাঁর ফোনে ফোটো-ভিডিও ট্রান্সফার করে ফাইল ফাঁস করতে পারে।

এমন পরিস্থিতিতে আপনার মোবাইল লক করে রাখাই ভাল। এ ছাড়া আপনার ব্যক্তিগত ছবি কাউকে পাঠাবেন না। ছবি বা ভিডিও অন্যান্য কারণেও ফাঁস হতে পারে। তবে এর জন্য প্রযুক্তিগত জ্ঞান প্রয়োজন।

থার্ড পার্টি অ্যাপের (Third Party Apps) ব্যাপারে সতর্ক থাকুন

থার্ড পার্টি ক্ষতিকারক অ্যাপগুলিও ফোটো-ভিডিও ফাঁসের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। অনেক ক্ষতিকারক বা ভাইরাস অ্যাপ আছে, যেগুলি আপনার ফোনের অনেক কিছু তুলে নেয়। এই অ্যাপগুলি আপনার ফাইলগুলিতে অ্যাক্সেস পেয়ে যায়। এই ফাইলগুলি দূরবর্তী সার্ভারে আপলোড করা হয়। যেখান থেকে স্ক্যামাররা এই ফাইলগুলি তৃতীয় পক্ষের কাছে বিক্রি করে এবং আপনার ছবি ফাঁস হয়ে যায়।

এমন পরিস্থিতিতে, এটি গুরুত্বপূর্ণ যে আপনি সর্বদা অফিসিয়াল অ্যাপ স্টোর থেকে যে কোনও অ্যাপ ইনস্টল করবেন। অ্যাপটি ইন্সটল করার আগে অবশ্যই এর রিভিউ দেখে নিন। থার্ড পার্টি অ্যাপ স্টোর বা ওয়েবসাইট থেকে তৈরি অ্যাপে ভাইরাস থাকতে পারে।

এছাড়া সোশ্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং ব্যবহার করেও ছবি বা ভিডিও অ্যাক্সেস করা যায়। এতে সামাজিক কৌশল অবলম্বন করে মানুষকে ফাঁদে ফেলা হয়। এর মাধ্যমে ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্ট ও পাসওয়ার্ড পেয়ে যায় হ্যাকাররা।

ক্লাউড ড্রাইভ থেকেও ডেটা লিক হতে পারে

Google ড্রাইভ, ড্রপবক্সের মতো ক্লাউডে সংরক্ষিত ফোটো বা নথি অ্যাক্সেস করতে এটি ব্যবহার করে প্রতারকরা। তাই ফিশিং ওয়েবসাইটে আপনার বিস্তারিত তথ্য কখনই পূরণ করবেন না। সোশ্যাল মিডিয়া বা হোয়াটসঅ্যাপে পাওয়া অজানা লিঙ্কগুলি থেকে সতর্ক থাকুন।

হ্যাকাররা স্পাইওয়্যারের মাধ্যমেও মানুষকে টার্গেট করে। স্পাইওয়্যার অর্থাৎ স্পাই সফটওয়্যার আপনার ফোনের সম্পূর্ণ ডেটা অ্যাক্সেস করে। এর মধ্যে ফোটো এবং ভিডিওগুলিও রয়েছে৷ এর মাধ্যমে হ্যাকাররা টার্গেটকে ব্ল্যাকমেইল (Blackmail) করে বা তথ্য ফাঁস করে।

 

 
; ; ;