scorecardresearch
 

Income Tax Saving Tips : স্যালারি ৫০ হাজার, তা-ও লাগবে না ট্যাক্স, কী করে? জানুন

Income Tax Saving Tips: ভারতে এখনকার আয়কর (Income Tax) ব্যবস্থায় দু'রকমের বিকল্প দেওয়া হয়েছে। ২০২১-২১ সালে বাজেট (Union Budget) পেশ করার সময় কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন (Union FM Nirmala Sitharaman) নতুন কর প্রণালীর কথা জানিয়েছিলেন। 

হিসেব করে চললে আয়কর বাঁচানো যেতে পারে (প্রতীকী ছবি) হিসেব করে চললে আয়কর বাঁচানো যেতে পারে (প্রতীকী ছবি)
হাইলাইটস
  • নিজের আয় থেকে সব নাগরকিকেই কর দিতে হয়
  • এর পাশাপাশি আরও একটি ব্য়াপার হল আইনের মধ্যে থেকে কর বাঁচানো যেতেই পারে
  • এর বেশ কয়েকটি উপায়ও রয়েছে

Income Tax Saving Tips: নিজের আয় থেকে সব নাগরকিকেই কর (Income Tax) দিতে হয়। এই করের টাকায় তৈরি হয় সেতু, রাস্তার মতো বুনিয়াদি পরিকাঠামো। আর দেশের উন্নয়নের কাজে লাগে। 

আরও পড়ুন: এবং ঈপ্সিতার কলমে রাজর্ষির 'লেডি ম্যাকবেথ' মিথিলা! কীভাবে সম্ভব হল?

কর বাঁচাতেই পারেন
এর পাশাপাশি আরও একটি ব্য়াপার হল আইনের মধ্যে থেকে কর (Income Tax) বাঁচানো যেতেই পারে। এর বেশ কয়েকটি উপায়ও রয়েছে। আর এই উপায়ে আপনি অনেক টাকা কর বাঁচাতে পারবেন। আপনার বেতন ৫০ হাজার টাকা হলেও তা ট্য়াক্স-ফ্রি হতে পারে।

পুরনো ট্য়াক্স স্ট্রাকচারে বেশ কয়েকটি ডিডাকশনের লাভ
ভারতে এখনকার আয়কর (Income Tax) ব্যবস্থায় দু'রকমের বিকল্প দেওয়া হয়েছে। ২০২১-২১ সালে বাজেট (Union Budget) পেশ করার সময় কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন (Union FM Nirmala Sitharaman) নতুন কর প্রণালীর কথা জানিয়েছিলেন। 

তাই এখন দু'রকমের কর (Income Tax) কাঠামো রয়েছে। করদাতারা এর মধ্যে যে কোনও একটিকে বেছে নিতে পারেন। তাঁদের সেই স্বাধীনতা রয়েছে। পুরনো ট্যাক্স কাঠামোয় বেশ কিছু ধরনের ছাড়ের কথা বলা হয়েছে। তবে নতুন কর কাঠানোয় এগুলো সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

পুরনোই ভাল, মত বিশেষজ্ঞদের
এ ব্য়াপারে কর বিশেষজ্ঞ অনুপ সিংহ জানান, আপনার মাসিক বেতন ৫০ হাজার টাকার বেশি এবং আপনার আয়ের আর কোনও সোর্স নেই, তা হলে আপনার বার্ষিক আয় হয়ে যাচ্ছে ৬ লক্ষ টাকা। 

আরও পড়ুন: টাক পড়ছে? ছেলেদের মাথায় গজাবে নতুন চুল, উপায় খুঁজে পেলেন বিজ্ঞানীরা

এই অবস্থায় যখন আপনি পুরনো স্ট্রাকচারে দিকে ঝুঁকবেন, তখন আয়করের সেকশন ৮০সি (IT Act 80C)-এর মাধ্যমে দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত ডিডাকশনের সুবিধা পাওয়া যায়। এর পাশাপাশি বেতনভুক কোনও ব্যক্তি ৫০ হাজার টাকার স্ট্যান্ডার্ড ডিডাকশনের লাভও পেতে পারেন। 

পুরনো স্ট্রাকচারের আরও ভাল দিক
বিশেষজ্ঞদের মতে, পুরনো কর স্ট্রাকচারে আড়াই লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয় করমুক্ত। এর পর আড়াই লাখ টাকা থেকে ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয়ে ৫ শতাংশ কর দিতে হয়। তবে সরকারের তরফে সাড়ে ১২ হাজার টাকার রিবেট পাওয়া যায়।

আর সেটা শূন্য হয়ে যায়। এর অর্থ আপনি পুরনো স্ট্রাকচারে ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয় করলে তা টোলফ্রি হবে। ৫ লক্ষ টাকার বেশি আয়ে ১০ শতাংশ কর দিতে হয়। তবে আপনি দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত কর ছাড় পেতে পারেন। এই ব্যবস্থায় সাড়ে ৬ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয় খুব সাধারণ ভাবে ট্যাক্স-ফ্রি হয়ে যায়। 

নতুন স্ট্রাকচারে দিতে হয় যা
অন্যদিকে, নতুন স্ট্রাকচার বেছে নেওয়া ক্ষতিকর হতে পারে। এখানে ৬ লক্ষ টাকা বার্ষিক আয়ে ২৩ হাজার ৪০০ টাকা ট্যাক্স দিতে হয়। এখানে আড়াই লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয় ট্যাক্স ফ্রি। আড়াই লক্ষ টাকায় ৫ শতাংশ হিসেবে কর দিতে হয়। যার পরিমাণ হল সাড়ে ১২ হাজার টাকা। 

 

 
; ; ;