scorecardresearch
 

World Dirtiest Man : ৬৭ বছর ধরে স্নান করেননি ইনি! নোংরা জল-মরা পশু খেয়েও একদম ফিট

সুস্বাস্থ্যের জন্য নিয়মিত স্নান করা অত্যন্ত জরুরি বলে মনে করেন চিকিৎসকরা। তবে এমন একজন ব্যক্তি রয়েছেন যিনি এই তত্ত্বকে ভুল প্রমাণ করেছেন। তিনি বহু বছর ধরে স্নান করেননি। কোন নির্দিষ্ট ঘর নেই তাঁর। পুকুর-ডোবা থেকে নোংরা জল খেয়ে থাকেন তিনি। খাবার হিসাবে খান রাস্তার পাশে মরে পরে থাকা প্রাণী।

আমো হাজি। ছবি-গেটিইমেজেস আমো হাজি। ছবি-গেটিইমেজেস
হাইলাইটস
  • ৬৭ বছর ধরে স্নান করেননি ইনি
  • নোংরা জল-মরা পশু খেয়েও একদম ফিট
  • জানুন বিস্তারিত তথ্য

সুস্বাস্থ্যের জন্য নিয়মিত স্নান করা অত্যন্ত জরুরি বলে মনে করেন চিকিৎসকরা। তবে এমন একজন ব্যক্তি রয়েছেন যিনি এই তত্ত্বকে ভুল প্রমাণ করেছেন। তিনি বহু বছর ধরে স্নান করেননি। কোন নির্দিষ্ট ঘর নেই তাঁর। পুকুর-ডোবা থেকে নোংরা জল খেয়ে থাকেন তিনি। খাবার হিসাবে খান রাস্তার পাশে মরে পরে থাকা প্রাণী। এর পরেও তিনি সম্পূর্ণ সুস্থ এবং ফিট। তাঁর 'নিখুঁত স্বাস্থ্য' দেখে বিজ্ঞানী ও চিকিৎসকরাও বিস্মিত। এই বৃদ্ধের বয়স ৮৭ বছর।

কেমন লাইফস্টাইল তাঁর?

ডেইলি স্টারের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ওই বৃদ্ধ ইরানের বাসিন্দা, নাম আমো হাজি। আমো জাজির বয়স ৮৭ বছর। তাঁর জীবনযাত্রার ধরণ সাধারণ মানুষের মতো নয়। অনেক গবেষকও এতেও অবাক হয়েছেন, আমো সম্পূর্ণ সুস্থ। কারণ তাদের মতেও প্রবীণরা সম্পূর্ণ ফিট থাকেন না।

ওই বৃদ্ধের শরীরে কোনো পরজীবী আছে কি না তা জানতে অনেক বিশেষজ্ঞও তাঁর কাছে আসেন। কিন্তু আশ্চর্যের বিষয়, তাঁর শরীরে কোনো রোগই বের হয়নি। তবে ওই বৃদ্ধ মোটেও স্বাস্থ্যকরভাবে বসবাস করেন না। আমো ৬৭ বছর ধরে স্নান করেননি। তাঁর মতে, স্নান করলে তাঁর জন্য অশুভ হবে এবং তিনি মারা যাবেন।

আজব খাদ্যতালিকা

জানা গিয়েছে, ওই বৃদ্ধের খাদ্যতালিকাও স্বাভাবিক নয়। রাস্তার ধারে মৃত পশু খান ওই ব্যক্তি। সেই সঙ্গে পুকুরের নোংরা জল পান করে। তাঁর এই আজব জীবনযাপনের কারণে তাঁর কোনো বন্ধুও নেই।

তবে দেজগাহ (ইরান) এ বসবাসকারী স্থানীয় গ্রামবাসীরা বলছেন যে তাঁরা ওই বৃদ্ধে জীবনধারা দেখে খুবই মুগ্ধ। কারণ তিনি অসুস্থ হননি, কোনও ব্যাকটেরিয়ায় সংক্রমিত হননি।

বিশেষজ্ঞরা যা বলেছেন

অধ্যাপক ডা. গোলামরেজা মোলভী বলেন, আমরা তাঁর ওপর অনেক কিছু পরীক্ষা করেছি। তবে শক্তিশালী রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার কারণে ওই বৃদ্ধ সুস্থ রয়েছেন। একই সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ বিশেষ বিষয় হল ৮৭ বছর বয়সী ওই ব্যক্তির জীবনযাত্রার কথা শুনতে অনেকেরই তাজ্জব লাগে। তবে তিনি বর্তমানে ঘটে চলা বিভিন্ন বিষয়গুলির সম্পর্কে আপডেট থাকেন। তিনি রুশ বিপ্লব এবং ফরাসি বিপ্লব নিয়ে জনগণের সঙ্গেও আলোচনা করতে থাকেন।