scorecardresearch
 

Kulhad Pizza : নেটপাড়ায় ভাইরাল কুলহাড় পিৎজা, ভাঁড় বেয়ে উপচে পড়ছে চিজ, মিলছে কোথায়?

Kulhad Pizza: মাটির ভাঁড়ে দেওয়া হচ্ছে সেই পিৎজা । সেইসঙ্গে প্রচুর মেল্টেড চিজ। আর তাই নাম পড়েছে কুলহাড় পিৎজা (Kulhad Pizza)।

সুরাটের কুলহাড় পিজা নেটপাড়ায় ভাইরাল। ছবি সৌজন্য: ইউটিউব ভিডিও সুরাটের কুলহাড় পিজা নেটপাড়ায় ভাইরাল। ছবি সৌজন্য: ইউটিউব ভিডিও
হাইলাইটস
  • পিৎজা থেকে অনেকেই ভালবাসেন
  • কত রকমের যে পিৎজা রয়েছে, তার ঠিক নেই
  • তবে কুলহাড় পিৎজা কথা যদি বলা হয়, কেমন লাগবে?

Kulhad Pizza: পিৎজা (Pizza) থেকে অনেকেই ভালবাসেন। কত রকমের যে পিৎজা রয়েছে, তার ঠিক নেই। মানুষ নিজের পছন্দ মতো পিৎজা খান। তবে কুলহাড় পিৎজা (Kulhad Pizza)-র কথা যদি বলা হয়। কেমন লাগবে?

রসিকতা নয়
মোটেই রসিকতা করা হচ্ছে না। এমন পিৎজাও রয়েছে। আর তা বেশ জনপ্রিয়। এটা ভারতের এক শহরে মিলছে। গুজরাতের সুরাটে। সেখানকার কুলহাড় পিৎজা (Kulhad Pizza) খাদ্যরসিকদের মনে ঝড় তুলেছে।

কেমন সেই পিৎজা?
মাটির ভাঁড়ে দেওয়া হচ্ছে সেই পিৎজা । সেইসঙ্গে প্রচুর মেল্টেড চিজ। আর তাই নাম পড়েছে কুলহাড় পিৎজা (Kulhad Pizza)। কুলহাড় মানে মাটির ভাঁড়।

ইউটিউব ভিডিও
ইউটিউবে আমচি মুম্বই নামে একটি পেজ রয়েছে। তারাই ওই পিৎজার ব্যাপারে পোস্ট করেছিল। আর সেই পোস্ট হয়ে গিয়েছে ভাইরাল। এখনও পর্যন্ত ২৩ লক্ষের বেশি মানুষ সেই ভিডিও দেখেছেন। মার্চ মাসে সেটি পোস্ট করা হয়েছিল।

কী করে বানাতে হয়?
প্রথমে তৈরি করা হয় একটি মিক্সচার। একটা বড়সড় বাটি নেওয়া হয়। সেখানে দেওয়া হয় ভুট্টা। তারপর টমোটো। এরপর যোগ করা হয় পনিরের টুকরো, পাঁউরুটির টুকরো। তারপর সেখানে পড়ে সস। দেওয়া হয় মেয়োনিজও।

এবার সেখানে মেশানো হবে লঙ্কা, নুন আর চাট মশলা। এরপর একটা ভাঁড়ে তা ভরে দেওয়া হয়। তার ওপরে দেওয়া হয় সস, তরল চিজ। তারপর ওই বিক্রেতা সেখানে প্রচুর মোজারেলা চিজ মেশান। দেওয়া হয় তরল চিজও। এরপর সেটিকে মাইক্রোওয়েভে দেওয়া হয়।

ব্যস তৈরি কুলহাড় পিৎজা। তবে দাঁড়ান, এখনই মুখে পুরবেন না। কারণ আরও কিছু জিনিস দেওয়া বাকি। মাইক্রোওয়েভ থেকে বের করার পর তার ওপর ছড়িয়ে দেওয়া হয় ধনেপাতা। অত্যন্ত যত্ন নিয়ে, বেশ ধৈর্য ধরে তৈরি করা হয় সেটি (Kulhad Pizza)।

নয়া আইটেম
সুরাতের ওই দোকানির মাথা থেকে এসেছে এই পিৎজা । তার নতুন আইটেম বেশ জনপ্রিয় হয়েছে। দেখতে দারুণ লাগছে ওই পিৎজা । তবে খেতে হলে চলে যেতে হবে সুরাট। একবার ঘুরে এলেই হয়।