scorecardresearch
 

মানুষের মধ্যে ফিরে এলেন 'মোগলি', জঙ্গল ছেড়ে সুট-বুট পরে যাচ্ছেন স্কুলে

'রিয়েল লাইফ' মোগলি যাচ্ছে স্কুল! আফ্রিকান দেশ রুয়ান্ডার জঞ্জিমান এলি নামের এক ব্যক্তির গল্প এখন শিরোনামে। জঞ্জিমানকে 'রিয়েল লাইফ মোগলি' বলা হচ্ছে। জঞ্জিমান জঙ্গলে পশুদের অঙ্গে বসবাস করতেন। দীর্ঘদিন জঙ্গলে পশু, পাখিদের সঙ্গে বসবাসের পর তাঁর কর্মকাণ্ড মানুষের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা হয়ে যায়। কিন্তু এখন ধীরে ধীরে তাঁর জীবন স্বাভাবিক হচ্ছে। শুধু তাই নয়, তিনি এখন স্কুলে যাওয়াও শুরু করেছেন। 

মানুষের মধ্যে ফিরে এলেন 'রিয়েল লাইফ মোগলি' মানুষের মধ্যে ফিরে এলেন 'রিয়েল লাইফ মোগলি'
হাইলাইটস
  • 'রিয়েল লাইফ' মোগলি যাচ্ছেন স্কুল
  • আফ্রিকার রুয়ান্ডার জঞ্জিমান এলি নামের এক ব্যক্তির গল্প এখন শিরোনামে
  • জঞ্জিমানকে 'রিয়েল লাইফ মোগলি' বলা হচ্ছে

'রিয়েল লাইফ' মোগলি যাচ্ছেন স্কুল! আফ্রিকার রুয়ান্ডার জঞ্জিমান এলি নামের এক ব্যক্তির গল্প এখন শিরোনামে। জঞ্জিমানকে 'রিয়েল লাইফ মোগলি' বলা হচ্ছে। জঞ্জিমান জঙ্গলে পশুদের অঙ্গে বসবাস করতেন। দীর্ঘদিন জঙ্গলে পশু, পাখিদের সঙ্গে বসবাসের পর তাঁর কর্মকাণ্ড মানুষের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা হয়ে যায়। কিন্তু এখন ধীরে ধীরে তাঁর জীবন স্বাভাবিক হচ্ছে। শুধু তাই নয়, তিনি এখন স্কুলে যাওয়াও শুরু করেছেন। 

'দ্য সান ইউকে' র খবর অনুযায়ী, জঞ্জিমান অ্যালি ১৯৯৯ সালে জন্মগ্রহণ করেন। জন্মের পর তিনি মাইক্রোসেফালি রোগে ভুগছিলেন।যে কারণে তাঁর মুখের গঠন পরিবর্তন হতে থাকে। মাথা শরীরের তুলনায় অনেক ছোট হয়ে যায়। বড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে জঞ্জিমানের চেহারার আরও পরিবর্তন হয়। তাঁকে উত্যক্ত করত অনেকেই।

মানসিক অত্যাচারের শিকার হয়ে  জঞ্জিমান তাঁর পরিবার ছেড়ে জঙ্গলে বসবাস শুরু করেন। নিজের বেশিরভাগ সময় বনে কাটাতেন তিনি। পরিবারের সদস্যরা যতই ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করুক না কেন, সে পালিয়ে বনেই চলে যেত। শৈশব থেকেই বনে পশুর মাঝে থাকতে পছন্দ করতেন তিনি। বহু বছর ধরে জঙ্গলে 'মোগলি'র মতো জীবনযাপন করত জঞ্জিমান।

জঞ্জিমানের কথা জানতে পেরে তাঁকে মানুষের মাঝে ফিরিয়ে আনার প্রচেষ্টা শুরু হয়। আফ্রিম্যাক্স টিভি তহবিল সংগ্রহ করতে শুরু করে। সারা বিশ্বের মানুষ তাঁকে ফেরাতে এগিয়ে এসেছে। জঞ্জিমান এখন তাঁর মা পরিবারের সঙ্গে স্বাভাবিক জীবনযাপন করছে।

স্বাভাবিক জীবনযাপনের পথে 'মোগলি'

আতিনকা' র খবর অনুযায়ী, আলির অনুদান থেকে সংগৃহীত অর্থের সাহায্যে এখন জাঞ্জিমান স্বাভাবিক জীবনযাপনের পথে। তাঁকে বিশেষ বিদ্যালয়ে ভর্তিও করা হয়েছে। শার্ট-প্যান্ট পরা শুরু করেছেন তিনি। বনের বদলে নিজের বাড়িতেই থাকতে শুরু করেছেন। গত বছর জাঞ্জিমানের জীবন নিয়ে একটি তথ্যচিত্র নির্মিত হয়।