scorecardresearch
 

খুলছে বাগডোগরা এয়ারপোর্ট, টিকিটের দামে মাথায় হাত পর্যটকদের

মেরমতির জন্য ১৫ দিন বন্ধ থাকার পর বাগডোগরা বিমানবন্দরে উড়ান শুরু হচ্ছে ২৬ এপ্রিল মঙ্গলবার থেকে। আর বুকিং খুলতেই দমদম-বাগডোগরা ভাড়া দেখাচ্ছে ১১ হাজারেরও বেশি। মাথায় হাত সার্কিটের।

আজ থেকে খুলছে বাগডোগরা বিমানবন্দর আজ থেকে খুলছে বাগডোগরা বিমানবন্দর
হাইলাইটস
  • মঙ্গলবার থেকে শুরু হচ্ছে উড়ান
  • কলকাতা থেকে শিলিগুড়ির ভাড়া ১১ হাজারের বেশি
  • মাথায় হাত পর্যটন সার্কিটের

রানওয়ের মেরামত ও সংষ্কারের কাজের জন্য টানা ১৫ দিনের জন্য বন্ধ থাকার পর কাল ২৬ এপ্রিল, মঙ্গলবার থেকে খুলছে বাগডোগরা বিমানবন্দর। ১১ এপ্রিল থেকে ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত রানওয়ে মেরামতের কাজের কারণে বিমানবন্দরটি এখন বন্ধ ছিল।

মঙ্গলবার থেকে স্বাভাবিক পরিষেবাগুলি পুনরায় চালু হয়ে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন বিমানবন্দরের অধিকর্তা সুব্রহ্মনি পি। তিনি বলেন, নতুন রানওয়ে তৈরি হয়ে গিয়েছে। যার কারণে পরিষেবা বাড়ানো যাবে। ফ্লাইটের সংখ্যাও বাড়ানো হবে। অন্যদিকে উড়ান চালুর ঘোষণা হতেই এক ধাক্কায় বিমান ভাড়া বেড়ে গিয়েছে অনেকটাই। ফলে সাধারণ পর্যটকের বুকিং করেও ক্যানসেল করে দিতে বাধ্য হচ্ছেন। মাথায় হাত পড়েছে টুর অপারেটরদের।

ভাড়ায় ভাঙছে আকাশ, প্রিমিয়াম বিজনেস জলে

বিমানবন্দরে পরিষেবা স্বাভাবিক হওয়ার প্রথম দিনই যা ভাড়ার তালিকা দেখাচ্ছে বুকিং সাইটগুলি তাতে নতুন বুকিং করতে গিয়েও পিছিয়ে যাচ্ছেন অনেকে। যাঁদের আগে থেকে ভাড়া করা রয়েছে, তাঁরাই একমাত্র যাতায়াত করছেন। কিন্তু আর্জেন্ট বুকিং-এর ক্ষেত্রে কোনওভাবেই এই ভাড়া দিতে রাজি হচ্ছেন না বা পারছেন না। স্বাভাবিকের চেয়ে তিন-চারগুণ বেশি ভাড়া দেখাচ্ছে।

কত ভাড়া?

মঙ্গলবার বাগডোগরা-কলকাতা এয়ার এশিয়ার বিমানের ভাড়া ১১-১২ হাজার টাকার মধ্যে রয়েছে। গো ফার্স্ট-এর ভাড়াও হয়েছে সাড়ে ১১ হাজারের কাছাকাছি। স্পাইস জেটের ভাড়ারও একই অবস্থা। কোথাও ১০ হাজারের নীচে ভাড়া নেই। ২৭ তারিখ ভাড়ার অঙ্ক কিছুটা কমে ৮- ৯ হাজার টাকা দেখাচ্ছে। ইন্ডিগো ছাড়া সবারই ভাড়া কিছুটা কম রয়েছে। তবে তা তুলনামূলক। এমনিতে ২-৩-৪ হাজার টাকাতেও বাগডোগরা-কলকাতা ভাড়া থাকে। এটা সর্বনিম্ন তালিকা। অন্য জায়গার ভাড়া আরও বেশি।

ক্ষোভ টুরিজম সার্কিটে

ভাড়া বৃদ্ধি নিয়ে এমন ওঠানামায় বিরক্ত টুরিজম সার্কিট। হিমালয়ান হসপিটালিটা অ্যান্ড ট্রাভেল ডেভলপমেন্ট নেটওয়ার্কের সম্পাদক সম্রাট সান্যাল জানিয়েছেন, ভাড়া এতটাই বেড়ে গিয়েছে, যে অনেকে নতুন বুকিং করতে পারছেন না। তাঁরই মুম্বইয়ের একটি টিম আসার কথা ছিল। সমস্ত ঠিক হয়ে যাওয়া সত্ত্বেও মুম্বই-বাগডোগরা ফ্লাইটে একজনের ওয়ানসাইড ভাড়া ২৪ হাজার টাকা দেখানোয় তাঁরা  শেষমেষ বুকিং ক্যানসেল করে কাশ্মীর চলে গেল। সম্রাটবাবুর দাবি, স্টক এক্সচেঞ্জের মতো বিমানভাড়া ওঠানামা করছে। যা হতাশাজনক। রাজ্য সরকারের তরফে ফিউলে ছাড় দেওয়া হচ্ছে। অথচ তার লাভ যাত্রীরা পাচ্ছে না। এটা ঠিক নয়। অন্যদিকে ইস্টার্ন হিমালয়ান ট্রাভেল অ্যান্ড টুর অপারেটরস অ্য়াসোসিয়েশনের সম্পাদক দেবাশিস মৈত্র জানিয়েছেন, সব পরিবহণের ভাড়াই বেড়েছে। এখন বিমানের ভাড়াও এমন থাকলে পর্যটনের যে সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে, তা মাঠে মারা যাচ্ছে।

বাস-গাড়ির ভাড়াও আকাশছোঁয়া

বিমানবন্দর ১৫ দিন বন্ধ থাকার সুযোগে অনেকটাইই ভাড়া বাড়িয়ে দিয়েছে কলকাতা-শিলিগুড়ি বা অন্য রুটের বাস ৷ বাসের ভাড়াও প্রায় ৫০০০ টাকা। ট্রেনে বাড়তি কোচ দিয়েও যাত্রী সামাল দেওয়া যাচ্ছে না। অগত্যা অতিরিক্ত ভাড়া দিয়েই কলকাতা থেকে যেতে হচ্ছে বাগডোগরা বা শিলিগুড়ি। আবার শিলিগুড়ি নামলে পাহাড়ের ছোট গাড়িও আরও এক দফা গলা কাটছে যাত্রীদের। ফলে পর্যটনের সম্ভাবনা সত্যিই অঙ্কুরে বিনাশ হবে কি না, তা নিয়ে আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।