scorecardresearch
 
 

Post Poll Violence: ভোট-পরবর্তী হিংসায় গ্রেফতার ২! ১১ FIR দায়ের CBI-এর

পশ্চিমবঙ্গে ভোট-পরবর্তী হিংসার ঘটনাকে কেন্দ্র করে কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা সিবিআই আরও ১০ টি এফআইআর নথিভুক্ত করেছে। এই নিয়ে মোট ২১টি এফআইআর করা হয়েছে। আগের এফআইআরগুলির ভিত্তিতে সিবিআই দুজনকে গ্রেফতার করেছে। পশ্চিমবঙ্গে ভোট-পরবর্তী হিংসায় সিবিআই ২ জনকে প্রথম গ্রেফতার করে। গ্রেফতার হওয়া বিজু এবং অসীমা ঘোষের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়।

CBI CBI
হাইলাইটস
  • ভোট-পরবর্তী হিংসায় গ্রেফতার ২
  • ১১ টি FIR দায়ের CBI-এর
  • এই নিয়ে মোট ২১টি এফআইআর করা হয়েছে

পশ্চিমবঙ্গে ভোট-পরবর্তী হিংসার ঘটনাকে কেন্দ্র করে কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা সিবিআই আরও  ১১ টি এফআইআর নথিভুক্ত করেছে। এই নিয়ে মোট ২১টি এফআইআর করা হয়েছে। আগের এফআইআরগুলির ভিত্তিতে সিবিআই দুজনকে গ্রেফতার করেছে। পশ্চিমবঙ্গে ভোট-পরবর্তী হিংসায় সিবিআই ২ জনকে প্রথম গ্রেফতার করে। গ্রেফতার হওয়া বিজু এবং অসীমা ঘোষের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়। গত ১৪ মে নদিয়া জেলায় বিজেপি সমর্থক অয়ন মণ্ডল এবং অন্য দুজনকে বাঁশের লাঠি দিয়ে মারধরের অভিযোগ উঠেছিল।

সিবিআই ১৫ টি জায়গায় তল্লাশি চালায়। ইন্ডিয়া টুডে'র খবর অনুযায়ী, সিবিআই ভোট-পরবর্তী হিংসার শিকার এমন পরিবারের সদস্যদের বিবৃতি রেকর্ড করা শুরু করেছে। 

যে ১১ টি জায়গা থেকে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে-

স্থান: থানা গঙ্গনাপুর, নদীয়া

তারিখ: ০৩.০৫.২০২১

অভিযুক্ত: ১২ জন, বাকিদের খোঁজ মেলেনি

অভিযোগ: অভিযুক্তরা অন্যান্য অজ্ঞাত ব্যক্তিদের সঙ্গে বাঁশ দিয়ে আক্রমণ করে।

স্থান: বাঁকুড়া

ঘটনার তারিখ: ০৪.০৭.২০২১

অভিযুক্ত: ৩ জন অভিযুক্ত, বাকিদের খোঁজ মেলেনি

অভিযোগ: অপহরণ করে হত্যা করা এবং ৮ মে পুকুরের তার লাশ ফেলে দেওয়া।

স্থান: নদীয়া

তারিখ: ১৪.০৫.২০২১

অভিযুক্ত: ৮ জন অভিযুক্ত

অভিযোগ: তিনজনকে মারধর করা হয়েছিল।

স্থান: বাঁকুড়া

তারিখ: ১০.০৬.২০২১

অভিযুক্ত: ৩০ জন অভিযুক্ত এবং অন্যদের খোঁজ মেলেনি

অভিযোগ: অভিযুক্তরা লাঠি, লোহার রড, ছুরি, পিস্তল, বোমা ইত্যাদি নিয়ে হামলা চালিয়েছে এবং মহিলা সদস্যদের যৌন হয়রানি করা হয়েছে। একজনকে অপহরণ করে, হত্যা করে এবং পরে তাকে গাছে ঝুলিয়ে রাখা হয়।

স্থান: মুর্শিদাবাদ

তারিখ: ১০.০৫.২০২১

অভিযুক্ত: ৩ জন অভিযুক্ত 

স্থান: কলকাতা

তারিখ: ০২.০৫.২০২১

অভিযুক্ত: ৮ জন অভিযুক্ত এবং অন্যদেয় খোঁজ মেলেনি

অভিযোগ: অভিযুক্তরা লাঠি দিয়ে আক্রমণ করে এবং বাড়ির জিনিসপত্র ভাঙচুর করে।

স্থান: উত্তর ২৪ পরগনা

তারিখ: ০৬.০৬.২০২১

অভিযুক্ত: অভিযুক্ত ৩, অন্যদের খোঁজ মেলেনি

অভিযোগ: একজনের মাথা লক্ষ্য করে বোমা নিক্ষেপ করে হামলা চালানো হয়।

স্থান: কোচবিহার

তারিখ: ০৫.০৫.২০২১

অভিযুক্ত:১৬ 

অভিযোগ: অভিযুক্তরা দু'জন ব্যক্তিকে আক্রমণ করে এবং উভয়ই গুরুতর আহত হয়।

স্থান: নদিয়া

তারিখ: ১৪.০৬.২০২১

অভিযুক্ত: ১০

অভিযোগ: ধারালো ছুরি, নলকূপের পাইপ, লোহার রড এবং আগুনের অস্ত্রসহ হামলা চালায়। বাড়ি ভাঙচুর করে এবং অভিযোগকারীর স্বামীকে টেনে হিঁচড়ে বের করে দেয়। অভিযুক্তদের একজন স্বামীর মাথায় গুলি করা হয় বলেও অভিযোগ।

স্থান: পূর্ব বর্ধমান

অভিযুক্ত: অজ্ঞাত

অভিযোগ: অভিযুক্ত অভিযোগকারীর বাড়ি ভাঙচুর চালায়। ২২ বছর বয়সী ছেলেকে অপহরণ করে এবং লোহার রড, হেলিকপ্টার ইত্যাদি দিয়ে তাঁকে মারধর করে।

স্থান: দক্ষিণ ২৪ পরগনা

অভিযুক্ত: ৬, বাকিদের খোঁজ মেলেনি

অভিযোগ: অভিযোগকারীর বাড়ি ভাঙচুর করে এবং তিনজনকে মারধর করে। দুষ্কৃতীরা একজনকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে, যাকে বানেশ্বরপুর প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে আনা হলে মৃত ঘোষণা করা হয়।

উল্লেখ্য, রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনের পর পশ্চিমবঙ্গে ধর্ষণ ও খুনের সব ঘটনায় সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। এরপরই সিবিআই পশ্চিমবঙ্গে ভোট-পরবর্তী হিংসা মামলায় তদন্তের জন্য বিশেষ দল গঠন করে।