scorecardresearch
 

আগে ভাল লোককেও ধরে নিয়ে যেত পুলিশ ! এ কেমন দাবি পুলিশ সুপারের

“গত বাম সরকারের পুলিশ ছিল শাসকের ভূমিকায়। আর ২০১১ সালে মা-মাটি- মানুষের সরকারে পুলিশের মানসিকতার পরিবর্তন হয়েছে। পুলিশ এখন মানবিকও।” তাঁর কথায়, “পুলিশ আগেও কাজ করত। কিন্তু গত সরকারে পুলিশ ছিল শাসকের ভূমিকায়। আগে পুলিশ সম্বন্ধে ধারণা ছিল, পুলিশ লাঠি হাতে এসে দুষ্টু লোককে ধরে নিয়ে যাবে। কখনও ভাল লোককেও ধরে নিয়ে যেত। দাবি পুলিশ সুপার নগেন্দ্রনাথ ত্রিপাঠির।

একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এলেন নগেন্দ্রনাথ ত্রিপাঠি একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এলেন নগেন্দ্রনাথ ত্রিপাঠি
হাইলাইটস
  • আগে ভালো লোককেও ধরে নিয়ে যেত
  • তৃণমূল সরকার অনেক বেশি মানবিক
  • সাধারণ অভিযোগের জন্য থানায় যেতে হবে না বাসিন্দাদের

মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসা

তৃণমূলের সময় মানবিক হয়েছে পুলিশ ! মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসা এসপি নগেন্দ্রনাথ ত্রিপাঠীর মুখে। শুনে চমকে ওঠার মতোই কথা। কারণ নন্দীগ্রামের ভোটে তিনি ছিলেন বিতর্কের কেন্দ্রে। ভোটের দিন নন্দীগ্রামের বয়ালে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে রীতিমতো তর্কে জড়িয়েছিলেন পুলিশ পর্যবেক্ষক নগেন্দ্রনাথ ত্রিপাঠী। ‘উর্দিতে কোনও দাগ লাগতে দেব না’ বলে খোদ মুখ্যমন্ত্রীকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেওয়া সেই নগেন্দ্রই এবার রাজ্যের তৃণমূল সরকারের প্রশংসায় পঞ্চমুখ!

পুলিশ ভাল লোককেও ধরে নিয়ে যেত

বৃহস্পতিবার সাঁইথিয়ার সাংড়ায় ‘আপনার পাড়ায় আপনার থানা’ পরিষেবার সূচনায় এসে বীরভূমের পুলিশ সুপার নগেন্দ্রনাথ ত্রিপাঠী বলেন, “গত বাম সরকারের পুলিশ ছিল শাসকের ভূমিকায়। আর ২০১১ সালে মা-মাটি- মানুষের সরকারে পুলিশের মানসিকতার পরিবর্তন হয়েছে। পুলিশ এখন মানবিকও।” তাঁর কথায়, “পুলিশ আগেও কাজ করত। কিন্তু গত সরকারে পুলিশ ছিল শাসকের ভূমিকায়। আগে পুলিশ সম্বন্ধে ধারণা ছিল, পুলিশ লাঠি হাতে এসে দুষ্টু লোককে ধরে নিয়ে যাবে। কখনও ভাল লোককেও ধরে নিয়ে যেত। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে সারা বাংলায় কমিউনিটি পুলিশিং বেড়েছে। জঙ্গলমহল কাপ, রাঙামাটি কাপ খেলা হল। রক্তদান শিবির হচ্ছে। মেধাবী ছাত্র ছাত্রীদের পাশে থাকছে পুলিশ।

এখন থেকে থানা যাবে গ্রামে 

বীরভূমের এমন অনেক গ্রাম রয়েছে যেখানে বাসিন্দারা কোনও সমস্যায় পড়লে অনেকে সময় থানায় আসতে পারেন না অভিযোগ জানাতে। এখন পুলিশের সাহায্য নিতে আর থানায় যেতে হবে না। এবার হাত বাড়ালেই পাশে হাজির হবে পুলিশ। গ্রামের পঞ্চায়েত দফতরে রাখা অভিযোগ বাক্সেই পুলিশকে জানানোর যে কোনও অভিযোগ জমা দেওয়া যাবে। ফি সপ্তাহে সেই অভিযোগ খতিয়ে দেখতে গ্রামে থানার অফিসার তো আসবেনই, তাঁর কাছে সরাসরি অভিযোগ জানিয়েও যে কোনও সমস্যার প্রতিকার চাওয়া যাবে। বীরভূমে‘আপনার পাড়ায় আপনার থানা’ প্রকল্পে এবার এমন সুবিধা নাগালে এসেছে সাধারণ মানুষের। মহঃবাজার থানা থেকে এই প্রকল্প শুরু হয়েছে। 

কিছু জিনিসের জন্য মানুষ থানায় যায় না, সামনে পেলে বলে

পুলিশ সুপার এদিন বলেন, অনেক জিনিস আছে যা থানায় গিয়ে বলা যায় না। স্কুলের সামনে ইভটিজিং চলছে, কেউ থানায় গিয়ে বলবে না। কিন্তু পাড়ায় পুলিশ পেলে এমন সব সমস্যায় তাদের শুধু খবর দিন। পাড়ায় বৃদ্ধ-বৃদ্ধা অসুস্থ। বাড়ির লোক বাইরে থাকে। তাকে খাবার থেকে ওষুধও পুলিশ পৌঁছে দেবে বলে জানান পুলিশ সুপার।