scorecardresearch
 

WB Corona: কিছুটা কমল দৈনিক আক্রান্ত, নিম্নমুখী পজিটিভিটি রেটও

রাজ্যের করোনা সংক্রমণ চিত্রে উদ্বেগের কালো মেঘ বহাল। গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১০,৯৫৯ জন। বুধবারও এই সংখ্যাটা ছিল ১১,৪৪৭। বুধবারের তুলনায় বৃহস্পতিবার করোনা পরীক্ষার সংখ্যাও বেড়েছে। এদিন মোট ৬৭,৩৬৭ টি স্যাম্পেল পরীক্ষা করা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩৭ জনের।

 রাজ্যের করোনা সংক্রমণ চিত্রে উদ্বেগের কালো মেঘ বহাল রাজ্যের করোনা সংক্রমণ চিত্রে উদ্বেগের কালো মেঘ বহাল
হাইলাইটস
  • রাজ্যের করোনা সংক্রমণ চিত্রে উদ্বেগের কালো মেঘ বহাল
  • গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১০,৯৫৯ জন
  • বুধবারও এই সংখ্যাটা ছিল ১১,৪৪৭

রাজ্যের করোনা সংক্রমণ চিত্রে উদ্বেগের কালো মেঘ বহাল। গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১০,৯৫৯  জন। বুধবারও এই সংখ্যাটা ছিল  ১১,৪৪৭। বুধবারের তুলনায় বৃহস্পতিবার করোনা পরীক্ষার সংখ্যাও বেড়েছে। এদিন মোট ৬৭,৩৬৭ টি স্যাম্পেল পরীক্ষা করা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩৭ জনের।

স্বাস্থ্য় দফতরের পরিসংখ্যান বলছে রাজ্যে বর্তমানে সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৪৪ হাজার ৮০৯  জন। গত কালের তুলনায় সংখ্যাটা ৬,৮৯৩  জন কম। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৭  হাজার ৮১৫ জন। রাজ্যে বর্তমানে সুস্থতার হার ৯১.৪৯ শতাংশ। মৃত্যু হার ১.০৪ শতাংশ।  আর এই মুহূর্তে রাজ্যে করোনার পজিটিভিটি রেট ১৬.২৭ শতাংশ।গতকালের থেকে বেশ কিছুটা কম।

রাজ্যে করোনার দৈনিক সংক্রমণে শীর্ষে সেই কলকাতা। ২৪ ঘণ্টায় দৈনিক আক্রান্ত হয়েছেন ১,৭৫৯ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৯ জনের। এরপরেই রয়েছে উত্তর ২৪ পরগনা। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এই জেলায় ১,৭৪৭ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৪ জনের। 

এদিকে দেশে বৃহস্পতিবার করোনার রেকর্ড দৈনিক সংক্রমণ। গত ২৪ ঘণ্টা দেশে ৩ লক্ষরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন মারণ ভাইরাসে। পরিসংখ্যান বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩,১৭,৫৩২ জন। ওমিক্রনেৃ আক্রান্তের সংখ্যা হল ৯,২৮৭। গত ৮ মাসে প্রথমবার এমনটা দেখা গেল বলে জানা যাচ্ছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানাচ্ছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনার বলি হয়েছেন ৪৯১ জন। পাশাপাশি এই সময়ের মধ্যে করোনা জয়ী হয়েছেন ২,২৩,৯৯০ জন। বর্তমানে দেশে করোনার অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা ১৯,২৪,০৫১। পরিসংখ্যান থেকে জানা যাচ্ছে, বর্তমানে দেশে দৈনিক সংক্রমণের হার ১৬.৪১ শতাংশ এবং সাপ্তাহিক সংক্রমণের হার ১৬.০৬ শতাংশ।