scorecardresearch
 

আর্জেন্টিনায় Dragon of Death-এর সন্ধান, ৮.৬ কোটি বছর আগে ছিল পৃথিবীতে

এই দুটি নমুনার ডানা বিস্তার প্রায় ২৩ ফুট এবং ৩০ ফুট চওড়া। গবেষকরা বলছেন যে এই টেরোসরগুলি Azhdarchids পরিবারের অন্তর্গত, যা ক্রিটেসিয়াস যুগের শেষে (প্রায় ৬৬ থেকে ১৪৬ মিলিয়ন বছর আগে) বাস করত। 

এই প্রজাতির দুটি নমুনা পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা এই প্রজাতির দুটি নমুনা পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা
হাইলাইটস
  • আর্জেন্টিনায় প্রাচীন প্রাণির নমুনা উদ্ধার
  • রাখা হয়েছে সংগ্রহশালায়
  • গবেষণার রিপোর্ট প্রকাশতি হবে আগামী সেপ্টেম্বরে

আর্জেন্টিনার (Argentina) গবেষকরা দক্ষিণ আমেরিকায় পাওয়া সবচেয়ে বড় টেরোসর প্রজাতির সন্ধান পেয়েছেন। বিজ্ঞানীরা এর নাম দিয়েছেন 'ড্রাগন অফ ডেথ' (Dragon of Death)। মেন্ডোজা প্রদেশে অবস্থিত প্লটিয়ার ফরমেশন  (Plottier Formation) থেকে দুটি বিশাল উড়ন্ত সরীসৃপ আবিষ্কৃত হয়েছে। 

এই দুটি নমুনার ডানা বিস্তার প্রায় ২৩ ফুট এবং ৩০ ফুট চওড়া। গবেষকরা বলছেন যে এই টেরোসরগুলি Azhdarchids পরিবারের অন্তর্গত, যা ক্রিটেসিয়াস যুগের শেষে (প্রায় ৬৬ থেকে ১৪৬ মিলিয়ন বছর আগে) বাস করত। 

গবেষণার মুখ্য গবেষক লিওনার্দো ডি. অরটিজ ডেভিড জানাচ্ছেন, Azhdarchids তাদের বিশাল মাথার খুলি, যা কখনও কখনও তাদের দেহের চেয়েও বড় এবং অত্যধিক লম্বা ঘাড় এবং ছোট মজবুত দেহের জন্য পরিচিত ছিল।  

বিজ্ঞানীদৈর বিশ্বাস, এই দুটি টেরোসরই Thanatosdrakon amaru প্রজাতির। এটি এই বংশের একমাত্র প্রজাতি, গ্রিক ভাষায় যার অর্থ 'মৃত্যুর ড্রাগন'। গবেষকরা বলেছেন, অমরু, যার অর্থ 'উড়ন্ত সাপ', দুই মাথার ইনকান দেবতা আমারুর সঙ্গে যুক্ত। 

গবেষকরা আরও জানাচ্ছেন যে, উভয় টেরোসর একই সময়ে মারা গিয়েছিল। একটি টেরোসর তখনও সম্পূর্ণরূপে বিকশিত হয়নি। কিন্তু বিজ্ঞানীরা নিশ্চিত নন যে ওই দুটি প্রাণীই একই পরিবারের ছিল কিনা। ৮.৬ কোটি বছর আগে তাদের মৃত্যু হয়েছিল। 

এই জীবাশ্মগুলি বর্তমানে মেন্ডোজার ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অফ কুয়োর ল্যাব (National University of Cuyo)  এবং ডাইনোসরের যাদুঘরে রাখা হয়েছে। এই গবেষণার ফলাফল ক্রিটাসিয়াস রিসার্চ জার্নালের সেপ্টেম্বর ২০২২-এর ইস্যুতে প্রকাশিত হবে।

আরও পড়ুনমাত্র ২ দিনে কীভাবে Six pack abs বানালেন এই যুবক? ভিডিও Viral