scorecardresearch
 

আফগানিস্তানে সরকার গড়ছে তালিবান, পাকিস্তান-রাশিয়া-চিনকে আমন্ত্রণ

তালিবানের (Taliban) মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ ইতিমধ্যেই জানিয়েছেন, "যুদ্ধ শেষ হয়েছে এবং তাঁরা একটি স্থিতিশীল আফগানিস্তান পাবেন বলে আশা করছেন।" তিনি আরও বলেন, "যে অস্ত্র তুলে নেবে সে জনগণ ও দেশের শত্রু।"

তালিবানের সাংবাদিক বৈঠক তালিবানের সাংবাদিক বৈঠক
হাইলাইটস
  • আফগানিস্তানে সরকার গঠনের পথে তালিবান
  • পঞ্জশির দখল করা হয়েছে বলে দাবি
  • পাকিস্তান-চিন সহ বেশকিছু দেশকে আমন্ত্রণ

পঞ্জশির ভ্যালি (Panjshir Valley) 'সম্পূর্ণ দখল' হয়েছে বলে দাবি করার পর এবার সরকার গঠনের পথে শেষ পর্যায়ে তালিবান। সূত্রের খবর অন্তত এমনটাই। একইসঙ্গে সরকার গঠনের অনুষ্ঠানে, পাকিস্তান, তুরস্ক, কাতার, রাশিয়, চিন ও ইরানকে আমন্ত্রণ জানান হয়েছে বলেও সূত্র মারফৎ জানা যাচ্ছে। 

তালিবানের (Taliban) মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ ইতিমধ্যেই জানিয়েছেন, "যুদ্ধ শেষ হয়েছে এবং তাঁরা একটি স্থিতিশীল আফগানিস্তান পাবেন বলে আশা করছেন।" তিনি আরও বলেন, "যে অস্ত্র তুলে নেবে সে জনগণ ও দেশের শত্রু।" এই তালিবান নেতা বলেন, "মানুষের জানা উচিত যে হানাদাররা কখনওই আমাদের দেশকে পুনর্গঠন করবে না। এটা আমাদের নিজেদের দায়িত্ব।" একইসঙ্গে তিনি জানান, "কাতার, তুরস্ক ও ইউএই-র টেকনিক্যাল টিম কাবুল বিমানবন্দরকে পুনরায় চালু করার জন্য কাজ করছে।" 

প্রসঙ্গত আফগানিস্তান (Afghanistan) পুনর্দখল করার পর শুধু মাত্র পঞ্জশিরই তালিবানের নিয়ন্ত্রণের বাইরে ছিল। কাবুলের উত্তরে এই অঞ্চলে সশস্ত্র লড়াই চালাচ্ছিল তালিবান বিরোধী বাহিনী। যদিও তালিবানের দাবি এবার সেই অঞলও দখল করে ফেলেছে তারা। রাতারাতি পঞ্জশিরের ৮টি জেলা তালিবান দখল করে নিয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। তারপরেই একটি বিবৃতির মাধ্যমে পঞ্জশির দখল করা হয়েছে বলে জানায় তালিবান।