scorecardresearch
 
 
বাংলাদেশ

হাসিনার শুভেচ্ছা, ঈদ মিটলেই ১৯ দিনের ছুটিতে বাংলাদেশ

Sheikh Hasina
  • 1/9

আজ বুধবার (২১ জুলাই) ঈদুল আজহার ছুটি বাংলাদেশ জুড়ে। এদিন বাংলাদেশ জুড়ে  ঈদুল আজহা উদযাপিত হচ্ছে। আর এই ছুটি মিটলেই ফের একবার কঠোর লকডাউনের পথেই হাঁটবে বাংলাদেশ সরকার।

Sheikh Hasina
  • 2/9

করোনার চলমান পরিস্থিতিতে ভয়েস রেকর্ডের মাধ্যমে মোবাইল ফোনে জনে জনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশবাসীকে পবিত্র ঈদ-উল-আজহার শুভেচ্ছা জানিযেছে। শুভেচ্ছা জানিযেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদও। 

Dhaka
  • 3/9

ঈদের তিন দিন (২০, ২১ ও ২২ জুলাই) ছুটি। এরপর ২৩ ও ২৪ জুলাই সাপ্তাহিক (শুক্র ও শনিবার) ছুটি। ফলে ঈদের ছুটি মিলে টানা পাঁচ দিনের ছুটি পাচ্ছেন সবাই।

Dhaka
  • 4/9

অন্যদিকে, করোনা সংক্রমণ রোধে ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকেই শুরু হচ্ছে কঠোর বিধিনিষেধ। এই বিধিনিষেধ চলবে ৫ আগস্ট  রাত ১২টা পর্যন্ত। অর্থাৎ মোট ১৪ দিন থাকছে বিধিনিষেধ। এ সময় সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিস বন্ধ রাখা হবে। বন্ধ থাকবে সব শিল্প কারখানা এবং গণপরিবহন।
 

Dhaka
  • 5/9

তবে লকডাউনের আওতামুক্ত থাকবে না  খাদ্য ও খাদ্যদ্রব্য উৎপাদন/প্রক্রিয়াজাতকরণ ,মিল, কারখানা, কোরবানির পশুর চামড়া পরিবহন, সংরক্ষণ ও প্রক্রিয়াজাতকরণ এবং ওষুধ, অক্সিজেন ও কোভিড-১৯ প্রতিরোধে ব্যবহারের জন্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য উৎপাদনকারী শিল্প-কারখানা।
 

Dhaka
  • 6/9

এদিকে, ঈদের পর বিধি-নিষেধ অনুযায়ী  অফিস বন্ধ থাকলেও সরকারি কর্মচারীদের নিজ নিজ  দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এই নির্দেশ দিয়ে সব সচিবকে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

Dhaka
  • 7/9

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানিয়েছেন, কোরবানি ঘিরে দেশের বিশাল অর্থনীতি রয়েছে। তাই সব কিছু বিবেচনা করে সাত দিনের জন্য চলাফেরার ওপর বিধি-নিষেধ শিথিল করতে হয়েছিল।

Dhaka
  • 8/9


বাংলাদেশের করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ এবং মৃত্যু যখন ব্যাপক আকারে বেড়েছে, তখনই সরকার কিছুদিনের জন্য লকডাউন প্রত্যাহার করে নিয়েছে। সরকারের তরফ থেকে যুক্তি দেয়া হয়েছে, ঈদ-উল-আজহায় পশু কেনা-বেচা বাংলাদেশের অর্থনীতির একটি খুঁটি।

Dhaka
  • 9/9


প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের  হিসেব মতে বাংলাদেশে এবার প্রায় এক কোটি ১৯ লাখ গবাদি পশু জবাইয়ের জন্য রয়েছে। গৃহস্থালিতে পশু পালন ছাড়াও প্রায় সাত হাজার খামার রয়েছে যেগুলো ঈদ-উল-আজহার জন্য পশু লালন-পালন করে। প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক (খামার) জিনাত হুদা জানিয়েছেন, " প্রতি বছর কোরবানির পশু থেকে গড়ে ৫০ থেকে ৫৫ হাজার কোটি টাকার মতো কেনা-বেচা হয়। যদি বিক্রি কম হয়, তাহলে দেশের  অর্থনীতিকে  বিরূপ প্রভাব পড়বে।"