scorecardresearch
 

আফগানবাসীদের জন্য দু'হাত জুড়ে প্রার্থনা সোনু সুদের, হতাশ বলিউডও

গত কয়েক বছরে অশান্তি যেন বিশ্বকে ঘিরে ফেলেছে। দুষ্টের দমন, পীড়ন পৃথিবী জুড়ে বেড়েই চলেছে। করোনা মহামারি, দাবানল, বন্যা, সাইক্লোন, যুদ্ধ সব মিলিয়ে ভালো নেই পৃথিবী। গত দেড় বছর ধরে কঠিন মহামারির সঙ্গে লড়াই করছে গোটা বিশ্ব। এক বিপদ কাটতে না কাটতেই  নতুন বিপদ এসে হাজির। এবার বিশ্ববাসীর মনে ভয় ধরিয়েছে আফগানিস্তানে তালিবানদের শাসন। সোশ্যাল মিডিয়ায় টুকরো টুকরো কিছু ভিডিওই পরিষ্কার করে দিচ্ছে সে দেশের দুর্দশার ছবি। প্রাণ কাঁদছে ভারতীয়দেরও। চুপ নেই বলিউড।

সোনু সুদ সোনু সুদ
হাইলাইটস
  • আফগানবাসীদের জন্য দু'হাত জুড়ে প্রার্থনা সোনু সুদের
  • চুপ নেই বলিউডের অন্যান্য অভিনেতা, অভিনেত্রীরাও
  • "শক্ত থাকো আফগানিস্তান", ট্যুইট সোনু সুদের

গত কয়েক বছরে অশান্তি যেন বিশ্বকে ঘিরে ফেলেছে। দুষ্টের দমন, পীড়ন পৃথিবী জুড়ে বেড়েই চলেছে। করোনা মহামারি, দাবানল, বন্যা, সাইক্লোন, যুদ্ধ সব মিলিয়ে ভালো নেই পৃথিবী। গত দেড় বছর ধরে কঠিন মহামারির সঙ্গে লড়াই করছে গোটা বিশ্ব। এক বিপদ কাটতে না কাটতেই  নতুন বিপদ এসে হাজির। এবার বিশ্ববাসীর মনে ভয় ধরিয়েছে আফগানিস্তানে তালিবানদের শাসন। সোশ্যাল মিডিয়ায় টুকরো টুকরো কিছু ভিডিওই পরিষ্কার করে দিচ্ছে সে দেশের দুর্দশার ছবি। প্রাণ কাঁদছে ভারতীয়দেরও। চুপ নেই বলিউড।

করোনা মহামারির পরিস্থিতিতে কয়েক হাজার মানুষের 'মসিহা' হয়ে উঠেছেন অভিনেতা সোনু সুদ। আফগানিস্তানের মর্মান্তিক অবস্থা দেখে প্রাণ কেঁদে ওঠে তাঁরও। সোমবার ট্যুইটে তিনি লেখেন,"শক্ত থাকো আফগানিস্তান। সারা পৃথিবী তোমার জন্য প্রার্থনা করছে।" চুপ নেই বলিউডের অন্যান্য অভিনেতা, অভিনেত্রীরাও। 

গতকাল ভারতে পালিত হল ৭৫ তম স্বাধীনতা দিবস, অন্যদিকে সেদিনই আফগানিস্তানে নেমে এল পরাধীনতা। মুহূর্তের মধ্যে চলে গেল কয়েক কোটি আফগানবাসীর স্বাধীনতা। এই বিষয়টির উল্লেখ করেই এদিন ট্যুইট করে অভিনেত্রী সোনি রাজদান লেখেন,"একদিকে একটি দেশ স্বাধীনতা দিবস পালন করছে, আরেকটি দেশে মৃত্যুলীলা চলছে। এ কেমন দুনিয়া!"

অভিনেত্রী স্বরা ভাস্কর ট্যুইটে লেখেন,"এই গ্রাফিটি বুজিয়ে দিচ্ছে আফগানবাসীদের যেন কোনও হিংস্র বাঘের মুখে ফেলে দেওয়া হয়েছে। বিশেষত মহিলাদের।"

পরিচালক ও অভিনেতা শেখর কাপুর লেখেন,"আফগানিবাসীরা এখন কার ওপরই বা রাগ দেখাবে? আফগানিদের জীবন মূল্যবান।"

অভিনেত্রী সায়নী গুপ্ত ট্যুইটে লেখেন,"আফগানিস্তানের মহিলা ও শিশুদের নিয়ে চিন্তা হচ্ছে। ভগবান ওদের বাঁচাও।"

কাবুল দখলের পর আফগানিস্তানের চিত্র যেন আরও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে। পালিয়ে বাঁচলে প্রাণ বাঁচবে। নতুবা সাক্ষাৎ মৃত্যু। সে দেশের প্রায় প্রতিটা বাড়িতে লেগে বুলেটের দাগ। কোথাও বা গ্রেনেডের আগুনে জ্বলছে বাড়ি। কাতারে কাতারে মানুষ পালিয়ে বাঁচার আশায়। পার্লামেন্টের চেয়ারে বসে হাসি ঠাট্টা জমিয়েছে তালিবানরা। সন্ত্রস্ত গোটা বিশ্ব।