scorecardresearch
 

Pathaan Movie Review: পর্দা জুড়ে শুধুই শাহরুখ-ম্যাজিক, পয়সা উশুল ছবি 'পাঠান'

অবশেষে চার বছরের অপেক্ষার অবসান। মুক্তি পেল 'পাঠান'। একজন গুপ্তচরের মতো শারীরিক গঠন থাকলেও, পাঠান-এ অধিকাংশ কথাই শাহরুখ তাঁর চোখের ইশারাতেই বুঝিয়েছেন। প্রায় চারবছরের বিরতি নেওয়ার পর শাহরুখ খান প্রত্যাবর্তন করেছেন বড়পর্দায়, সঙ্গে তাঁর সেরাটা নিয়ে। শাহরুখ এর আগে একাধিক সিনেমায় অ্যাকশন করলেও, এই সিনেমায় তিনি অ্যাকশন হিরোর অবতারেই উত্তীর্ণ হয়েছেন।

পাঠান সিনেমার দৃশ্য পাঠান সিনেমার দৃশ্য
হাইলাইটস
  • অবশেষে চার বছরের অপেক্ষার অবসান। মুক্তি পেল 'পাঠান'।
  • প্রায় চারবছরের বিরতি নেওয়ার পর শাহরুখ খান প্রত্যাবর্তন করেছেন বড়পর্দায়, সঙ্গে তাঁর সেরাটা নিয়ে। শাহরুখ এর আগে একাধিক সিনেমায় অ্যাকশন করলেও, এই সিনেমায় তিনি অ্যাকশন হিরোর অবতারেই উত্তীর্ণ হয়েছেন
  • অন্যদিকে, সিদ্ধার্থ আনন্দ যিনি তাঁর তারকাদের গ্ল্যামারস দেখানোর জন্য পরিচিত এবং হলিউড ফিল্মসের আদলে তাঁর সিনেমার তারকাদের তিনি উপস্থিত করেন, 'পাঠান'সিনেমাতেও পরিচালক তাঁর সিগনেচার স্টাইলটিকে বাদ দিতে পারেননি।

সিনেমার নাম: পাঠান
পরিচালক: সিদ্ধার্থ আনন্দ
অভিনয়: শাহরুখ খান, দীপিকা পাড়ুকোন, জন আব্রাহাম
রেট: ৩.৫/৫

 

অবশেষে চার বছরের অপেক্ষার অবসান। মুক্তি পেল 'পাঠান'। একজন গুপ্তচরের মতো শারীরিক গঠন থাকলেও, পাঠান-এ অধিকাংশ কথাই শাহরুখ তাঁর চোখের ইশারাতেই বুঝিয়েছেন। প্রায় চারবছরের বিরতি নেওয়ার পর শাহরুখ খান প্রত্যাবর্তন করেছেন বড়পর্দায়, সঙ্গে তাঁর সেরাটা নিয়ে। শাহরুখ এর আগে একাধিক সিনেমায় অ্যাকশন করলেও, এই সিনেমায় তিনি অ্যাকশন হিরোর অবতারেই উত্তীর্ণ হয়েছেন। রোম্যান্টিক হিরোর ইমেজ থেকে বেরিয়ে দর্শক এক নতুন শাহরুখ খানকে আবিষ্কার করতে পারবেন এই 'পাঠান' সিনেমায়। অন্যদিকে, সিদ্ধার্থ আনন্দ যিনি তাঁর তারকাদের গ্ল্যামারস দেখানোর জন্য পরিচিত এবং হলিউড ফিল্মসের আদলে তাঁর সিনেমার তারকাদের তিনি উপস্থিত করেন, 'পাঠান'সিনেমাতেও পরিচালক তাঁর সিগনেচার স্টাইলটিকে বাদ দিতে পারেননি। পরিচালকের আগের কাজগুলি যদি স্মরণে আনা যায় তবে মিস্টার অ্যান্ড মিসেস স্মিথ-এর দেশি ভার্সন ব্যাং ব্যাং সিনেমায় পরিচালক তাঁর সিগনেচার স্টাইল দেখিয়েছেন। 'পাঠান'-কেও সেই তালিকায় ফেলা যায়, এই সিনেমার মাধ্যমে পরিচালক কিছু আইকনিক হলিউড সিনেমার প্রতি তাঁর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেছেন। 

আরও পড়ুন: দেশজুড়ে 'পাঠান' উৎসব, কলকাতাতেও 'হাউসফুল শো', প্রেক্ষাগৃহের বাইরে ভিড়

 

হলিউড সিনেমার আদল পাওয়া যাবে 'পাঠান'-এ
শাহরুখ খানের পাঠান চরিত্রটি খানিকটা রবার্ট ডাউনির জুনিয়র টনি স্টার্কের চরিত্রের আদলে। হয়ত পাঠান স্টার্কের মতো অত ধনী বা সুপার হিরোর স্পেসস্যুট তাঁর কাছে নেই, কিন্তু তাঁর মহিলাদের সঙ্গে গেম ও তাঁর ওয়ান-লাইনারগুলি অসাধারণ। অপরদিকে, দীপিকার পাকিস্তানী আইএসআই চরের কাজের সঙ্গে অনেকটাই মিল পাওয়া গিয়েছে স্কারলেট জনসনের অ্যাকশনের সঙ্গে। সেরকমই মিশন ইমপসিবল, ফাস্ট অ্যান্ড দ্য ফিউরিয়াস সহ অন্যান্য হলিউড সিনেমা থেকে পাঠান সিনেমার ক্লাইম্যাক্স সহ একাধিক দৃশ্য নেওয়া হয়েছে। কিন্তু পাঠান কোনও সামন্য সিনেমা নয়। আর নয়ত বা এই সিনেমা ভিন ডিজেল বা টম ক্রুজের পরিবেশন করা সিনেমার মতো সামনে আসতে চাইছে। হলিউডি টাচ থাকলেও পাঠান একেবারে দেশি অনুভূতি দেবে। 

পাঠান দৃশ্যে শাহরুখ খান

'পাঠান'-এর গল্প
পাঠানের গল্পটি ভারতের প্রথম দেশি গুপ্তচর-এর প্রথম অধ্যায় বলা যায়। যদি পাশ্চাত্যের এমসিইউ (মার্বেল সিনেমাটিক ইউনিভার্স) থাকে তবে ভারতের রয়েছে নিজস্ব এসসিইউ য়ার নেতৃত্বে রয়েছেন তিন ত্রয়ী টাইগার, কবীর ও এখন পাঠান। গল্পের প্রেক্ষাপট দেশাত্মবোধের আবেগকে নিয়ে। রাফ এজেন্ট জিম (সুদর্শন জন আব্রাহাম)ভারতের বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নিতে চান। জিমের এই প্রতিশোধের খবর তখন সামনে আসে য়খন ভারতে আর্টিকাল ৩৭০ প্রত্যাহার করা হয়, সেই সুযোগে কাশ্মীর দখল করতে মরিয়া হয় প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান। র-এর এজেন্ট পাঠানকে জিমকে আটকানোর মিশনে নামানো হয়, কিন্তু পাঠান তাঁর মিশন থেকে বিভ্রান্ত হয়ে যান য়খন তাঁর সামনে চলে আসেন আইএসআই এজেন্ট রুবিনা খান (দীপিকা পাড়ুকোন)। সে কি পাঠানের মিত্র নাকি শত্রু? রুবিনার নিজের গল্পই তাঁকে সামনে নিয়ে আসে এবং হাফ টাইমের আগেই দারুণ টুইস্ট দেখা যায়। এর সঙ্গে রয়েছে জবরদস্ত অ্যাকশনের দৃশ্য ও স্মার্ট কিছু সংলাপ, রয়েছে কিছু সেনসেশন দৃশ্যও। আর অবশ্যই দীপিকা-শাহরুখের রসাযনের ম্যাজিক। পাঠানের দ্বিতীযার্ধে প্রথম জয়লাভ। অ্যাকশনের দৃশ্যগুলি বেশ মনোরঞ্জনকর কিন্তু আবারও বলতে হয় এটা কোনও তথ্যচিত্র কিন্তু নয়। এই প্রথমবার দর্শকেরা এসআরকে-কে এ ধরনের অ্যাকশন করতে দেখবেন। কারণ পরিচালক নিজে শাহরুখকে জনের সঙ্গে কিছু অ্যাকশন সিকোয়েন্সে রেখেছেন, যা দেখে গায়ের লোম খাঁড়াও হয়ে যেতে পারে। আকাশের মাঝখান দিয়ে জেট প্লেন উড়ে যাচ্ছে বা বরফের মধ্যে ফরারি ছুটে গিয়ে ধাক্কা খাচ্ছে, না এরকমটা নয়। পাঠানের অ্যাকশন সাহসী ও নির্ভীক।  

পাঠান-এ দীপিকা পাড়ুকোন ছবি সৌজন্যে: ইনস্টাগ্রাম

কেমন অভিনয় করলেন
এবার আসা যাক অভিনয়ে। পাঠান সিনেমার হার্টবিট হল শাহরুখ খান এবং তিনি দর্শকদের ক্রমাগত এটাই মনে করিয়ে যাবেন যে কেন তাঁকে বড়পর্দায় তাঁরা দেখছেন। নিজেকে আমূল পরিবর্তন করে, তা শারীরিক হোক বা অভিনয়, তাঁকে পর্দায় হাঁ করে দেখতে বাধ্য হবেন দর্শকেরা। তিনি শাহরুখ খান। নিজেকে দুমড়ে-মুচড়ে একেবারে নয়া প্যাকেজে করে এনে দর্শকদের সামনে হাজির হয়েছেন তিনি। র-এজেন্ট পাঠান চরিত্রে তিনি অনবদ্য। এরপর চলে আসা যাক দীপিকা পাড়ুকোনে। আলাদা করে দীপিকাকে নিয়ে বলার কিছুই নেই। তাঁর মুখের দৃঢ় দীপ্তি বলে দেবে তিনি নিজেকে রুবিনা খানের চরিত্রের ধাঁচে সম্পূর্ণভাবে ঢেলে দিয়েছেন। দীপিকাকেও প্রথমবার অ্যাকশন চরিত্রে দেখা গিয়েছে, তিনি নিজের চরিত্রে যথাযথ ছিলেন। জন আব্রাহাম মূলত তাঁর অ্যাকশনের জন্যই বেশিকরে পরিচিত। একাধিক সিনেমায় দর্শকেরা তাঁকে অ্যাকশন করতে দেখেছেন। তাই হ্যান্ডসম জন আব্রাহাম যে হতাশ করবেন না তা আগে থেকেই জানা ছিল এবং সেটাই প্রমাণিত হল। ব্যাড গাই হিসাবে জন আব্রহাম একেবারে পারফেক্ট। এসআরকে-জনের মুখোমুখি সংঘর্ষগুলি বেশ রোম্যাঞ্চকর।

পাঠান দৃশ্যে শাহরুখ-দীপিকা

'পাঠান' সিনেমার সামান্য ত্রুটি
'পাঠান' সিনেমার মূল বিষয়টি অ্যাকশন হলেও মাঝে মাঝে এই অ্যাকশনের দৃশ্য দর্শককে ক্লান্ত করে তুলতে পারে। কিছু স্টান্ট দেখে মনে হতে পারে যে এটা তো আগেও দেখা। সম্প্রতি হলিউড অভিনেতা টম ক্রুজ মিশন ইমপসিবল সিনেমায় একটি বাইকের স্টান্ট করেছিলেন. ৬০ বছরের অভিনেতার এই ধরনের স্টান্ট যথেষ্ট প্রশংসিত হয়েছিল। সেই একই স্টান্ট দেখানোর চেষ্টা করা হয়েছে 'পাঠান' সিনেমাতেও। কিছু সংলাপের ক্ষেত্রে ত্রুটি দেখা গিয়েছে পাঠান সিনেমাতে। বিশেষ করে এসআরকে যখন ফ্লার্ট করছেন দীপিকার সঙ্গে। তবে বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে লেখা চিত্রনাট্য পাঠানকে অনেকাংশে বাঁচিয়েছে। 


কেন দেখবেন 'পাঠান'
'পাঠান' সিনেমাটি দেখতে মজাদার লাগবে। এই সিনেমা কোনও সামাজিক বার্তা দেয়নি বা দেশের বর্তমান কোনও ইস্যু নিয়ে মন্তব্য করেনি। শাহরুখ খান চারবছর পর ফিরেছেন সিলভার স্ক্রিনে, সেটাই উপভোগ করবেন দর্শকরা ভালোভাবে এটাই ছিল মূল উদ্দেশ্য। আসক এসআরকে সেশনের সাম্প্রতিক একটি পোস্টে শাহরুখ তাঁর অপূর্ণ ইচ্ছার কথা লিখেছিলেন। তিনি লেখেন, 'আমার মধ্যে যেন এতটা শক্তি থাকে যেন আমি আপনার সন্তানদেরও মনোরঞ্জন দিতে পারি।' হ্যাঁ, তিনি পারবেন। 'পাঠান' দেখার পর অবশ্যই এটাই মনে হবে। বলা চলে এই 'পাঠান' ভারতের নিজস্ব স্পাই ইউনিভার্সের নিখুঁত সূচনা।