scorecardresearch
 

জলপাইগুড়িতে করোনায় মৃতের দেহ লোপাটের অভিযোগ, উৎকণ্ঠায় পরিবার

করোনা (Corona) সংক্রমিত হওয়ায় গত ২৬ তারিখ জলপাইগুড়ির বিশ্ব বাংলা কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করায় মালবাজার সাউথ কলোনির বাসিন্দা বছর ৭৮-এর সুমিত্রা দাসকে। মঙ্গলবার তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে পরিবারকে জানায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

প্রতীকী ছবি প্রতীকী ছবি
হাইলাইটস
  • কোভিড রোগীর দেহ লোপাটের অভিযোগ
  • পুলিশ অভিযোগ নেয়নি বলে দাবি পরিবারের
  • জলপাইগুড়ির বিশ্ব বাংলা কোভিড হাসপাতালের ঘটনা

হাসপাতাল থেকে দেহ লোপাটের অভিযোগ। ঘটনাস্থল জলপাইগুড়ির বিশ্ব বাংলা কোভিড হাসপাতাল (Biswa Bangla Krirangan SARI/COVID Hospital, Jalpaiguri)। পরিষেবা নিয়েও রয়েছে বিস্তর অভিযোগ। ঘটনায় পুলিশের দারস্থ মৃতার পরিবার। যদিও পুলিশ অভিযোগ নেয়নি বলে দাবি মৃতার পরিবারের সদ্যদের। অন্যদিকে লিখিত অভিযোগ পেলে এই বিষয়ে তদন্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক। 

জানা গিয়েছে, করোনা (Corona) সংক্রমিত হওয়ায় গত ২৬ তারিখ জলপাইগুড়ির বিশ্ব বাংলা কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করায় মালবাজার সাউথ কলোনির বাসিন্দা বছর ৭৮-এর সুমিত্রা দাসকে। মঙ্গলবার তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে পরিবারকে জানায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। পরিবারের দাবি, হাসপাতালে গিয়ে দেহ দেখতে চাইলে ২৬ হাজার ৫০০ টাকা দিতে বলা হয়। তা দেওয়ার পর হাসপাতালের তরফে জানানো হয় দেহ প্যাক করে শাহুডাঙ্গি শ্মশানে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। সেই কথা শুনে তড়ঘড়ি শ্মশানে যান মৃতার পরিবারের সদস্যরা। কিন্তু সেখানে গিয়ে শোনেন ওই নামের কোনও দেহ সৎকারের জন্য আসেনি। 

এই ঘটনার পর বুধবার বিকেলে ফের হাসপাতালে গিয়ে খোঁজ খবর করেন সুমিত্রা দাসের পরিবারের লোকজন। কিন্তু তখনও কোনও সদুত্তর পাওয়া যায়নি বলে অভিযোগ। এরপরেই জলপাইগুড়ির কোতয়ালি থানার দ্বারস্থ হন পরিবারের সদ্যরা। কিন্তু সেখানে পুলিশ অভিযোগ না নিয়ে তাদের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকের কাছে পাঠিয়ে দেয় বলেই দাবি পরিবারের। এদিকে এই বিষয়ে মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এই ধরনের কোনও ঘটনা তাঁর জানা নেই, লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে দেখবেন। আর এই গোটা ঘটনার মাঝে উৎকণ্ঠায় দিন কাটাচ্ছে স্বজনহারা পরিবারটি।