scorecardresearch
 

স্ত্রী ও স্ত্রীর প্রেমিককে মারধর ও ভাইরাল ভিডিও, গ্রেফতার স্বামী ও পরিবার সহ ৬

স্ত্রী ও স্ত্রীর প্রেমিককে মারধর, এবং গোটা ঘটনা ভিডিও করার অভিযোগে স্বামী ও তাঁর পরিবার সহ মোট ৬ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। কিন্তু অঘটন যা ঘটার ঘটে গিয়েছে। ঘটনাটি এখন নেট দুনিয়ায় ভাইরাল।

মারধরের ভিডিওর ছবি মারধরের ভিডিওর ছবি
হাইলাইটস
  • ভাইরাল ভিডিও ঘিরে উত্তেজনা
  • মারধর করা ও ভিডিও ভাইরাল করার অভিযোগ
  • গ্রেফতার মোট ৬ জন

স্ত্রী ও স্ত্রীর প্রেমিককে মারধর, এবং গোটা ঘটনা ভিডিও করার অভিযোগে স্বামী ও তাঁর পরিবার সহ মোট ৬ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি এখন নেট দুনিয়ায় ভাইরাল।

মধ্য়প্রদেশের এই ঘটনা

মধ্যপ্রদেশের অলিরাজপুর জেলাতে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে, থেকে দেখা যাচ্ছে এক মহিলার সাথে মারপিট হচ্ছে। অলিরাজপুর জেলায় সান্ডওয়া জেলার ওমরালি গ্রামে এই ঘটনা সামনে এসেছে। এই ঘটনায় শুক্রবার সন্ধ্যার ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর শনিবার পুলিশ তদন্ত শুরু করে এবং এই মামলায় যারা ভিডিও বানিয়েছে তাদের ও মহিলার স্বামীর সহ ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

নি

যুবতীর সঙ্গে একটি ছেলেকে মারধর করা হচ্ছে

ভাইরাল ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে কিছু লোক একজন যুবতীর সাথে খেতে মারামারি করছে। ওই যুবতীর সাথে একটা ছেলে রয়েছে, তাকেও মারধর করা হচ্ছে। ভাইরাল ভিডিও নিয়ে তদন্তে নেমে পুলিশের হাতে আজব তথ্য সামনে এসেছে।

মা-বাবা, বন্ধু নিয়ে স্ত্রী ও স্ত্রীর প্রেমিককে মারধর

আসলে আলিরাজপুর জেলার সান্ডওয়া থানার অন্তর্গত এলাকার বাসিন্দা এক ব্যক্তি তার নিজের স্ত্রীর পরকীয়ার আশঙ্কা ছিল। এই আশঙ্কা থেকেই ভেতরে ভেতরে গুমড়ে যাচ্ছিলেন ওই যুবক। পরে যখন খেতে স্ত্রীর সঙ্গে ওই যুবককে দেখতে পান স্বামী, তখন তিনি নিজের কয়েকজন বন্ধুকে ডেকে এবং মা-বাবাকে নিয়ে সেখানে পৌঁছান। এরপর মারধর করতে শুরু করেন। স্বামীর বন্ধু ও স্ত্রী দুজনকেই মারধর করা হয়।

ন্

ভিডিও করে ভাইরাল করেন স্বামীর বন্ধু

এই ঘটনার ভিডিও বানায় মহিলার স্বামীর বন্ধুদের একজন। ওই যুবতীকে কিছু মানুষ মারধর করছে, এই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর অলিরাজপুরের সান্ডওয়া থানার পুলিশ মামলা দায়ের করে যুবতীর স্বামী শ্বশুর-শাশুড়ি এবং তার দুই বন্ধুর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে তাকে গ্রেপ্তার করেছে।

পুলিশের দাবি

অলিরাজপুরের এসপি মনোজ কুমার সিংহ জানিয়েছেন, ঘটনায় শুক্রবার সন্ধ্যায় যখন স্ত্রীর চরিত্র নিয়ে সন্দেহের বশে স্বামী নিজের বন্ধু এবং মা-বাবাকে নিয়ে গিয়ে নিজের স্ত্রী এবং তার বন্ধুকে মারধোর করে, এরই মধ্যে এক ব্যক্তি এই মাধ্যমে ভিডিও বানিয়ে ভাইরাল করে দেয়। ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর পুলিশ এফআইআর করে গ্রেপ্তারি শুরু করে।

 

 
; ; ;