scorecardresearch
 
 
দেশ

ধনকড়কে চাপে রাখার কৌশল? দিল্লি পৌঁছেই বিনীতের সঙ্গে সাক্ষাৎ মমতার

মমতা-বিনীত সাক্ষা্ৎ
  • 1/6

রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়কে চাপে রাখার কৌশল শুরু করে দিলেন রাজ্য়ের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়? এই জল্পনা শুরু হয়েছে রাজ্য রাজনীতির অলিন্দে। কারণ দিল্লি পৌঁছেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রথমেই সাক্ষাৎ করেছেন প্রাক্তন সাংবাদিক বিনীত নারাইনের সঙ্গে।

মমতা-বিনীত সাক্ষাৎ
  • 2/6

এই বিনীত নারাইনকেই জৈন হাওয়ালা মামলায় ধনকড়ের বিরুদ্ধে পাশে পেয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি প্রথমে অভিযোগ করেন, জৈন হাওয়ালা মামলায় অভিযুক্ত ধনকড়। মামলার নথিতে তাঁর নাম রয়েছে। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন ধনকড়। জানিয়েছিলেন, তিনি বেকসুর খালাস পেয়েছিলেন। 

মমতা-বিনীত সাক্ষাৎ
  • 3/6

তবে ধনকড়ের বক্তব্য়ের বিরোধিতা করেন এই বিনীত নারাইন। তিনি সরাসরি পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপালকে প্রশ্ন করেন, সুপ্রিম কোর্টের তত্ত্বাবধানে চলা জৈন হাওয়ালা মামলার অভিযুক্তদের মুক্তি দেওয়া হয়েছে, এমন কোনও প্রমাণ তিনি ধনকড় দিতে পারবেন? 

মমতা-বিনীত সাক্ষাৎ
  • 4/6

শোনা যাচ্ছে, মমতার দিল্লি পৌঁছনোর পর তাঁর সঙ্গে দেখা করতে আসেন বিনীত। একে অপরের সঙ্গে সৌজন্য বিনিময় করেন। তারপর দুজনের মধ্যে বেশ কিছুক্ষণ বৈঠক হয়। তবে বৈঠকের আলোচনা প্রসঙ্গে জানা যায়নি। 

মমতা-বিনীত সাক্ষাৎ
  • 5/6

রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, এই বৈঠক রাজনৈতিকভাবে তাৎপর্যপূর্ণ। কারণ, ধনকড় বিজেপির হয়ে কাজ করছে বলে বারবার অভিযোগ করে এসেছে তৃণমূল কংগ্রেস। প্রকৃত অর্থেই রাজ্যপাল বারবার সংঘাতে জড়িয়েছেন রাজ্যের সঙ্গে। যা নিয়ে বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিপাকে পড়তে হয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে।

মমতা-বিনীত সাক্ষাৎ
  • 6/6

অনেকে এও বলছেন, বিনীত নারাইনের কাছ থেকে ধনকড় সম্পর্কে তথ্য প্রমাণ জোগাড় করার প্রক্রিয়াও আজকের বৈঠক থেকে চালু করতে পারেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে এই সম্পর্কে তৃণমূলের তরফে এখনও কিছু জানানো হয়নি।