scorecardresearch
 

Bangladeshi Arrested:যোগীরাজ্যে গ্রেফতার 'জেহাদি' বাংলাদেশি, উদ্ধার বাংলায় লেখা নথি

উত্তরপ্রদেশের সন্ত্রাসবিরোধী স্কোয়াড (ATS) সাহারানপুরের দারুল উলূম দেওবন্দ (Dar-ul-Uloom Deoband) থেকে একজন বাংলাদেশী নাগরিককে আগেই গ্রেফতার করেছিল। জানা যাচ্ছিল, ওই ব্যক্তি জাল নথির ভিত্তিতে ভারতীয় নাগরিক হিসেবে এখানে বসবাস করছিল। ওই বাংলাদেশির নাম তালহা তালুকদার। সে বাংলাদেশের কুমিল্লা জেলার দাউদ কান্দি থানার অন্তর্গত বারগুয়ালির বাসিন্দা।

বাংলাদেশি নাগরিক তালহা তালুকদার বাংলাদেশি নাগরিক তালহা তালুকদার
হাইলাইটস
  • যোগী রাজ্যে গ্রেফতার বাংলাদেশির জেহাদি যোগ
  • বাংলাদেশির নাম তালহা তালুকদার
  • । সে বাংলাদেশের কুমিল্লা জেলার দাউদ কান্দি থানার অন্তর্গত বারগুয়ালির বাসিন্দা

Bangladeshi Arrested: উত্তরপ্রদেশের সন্ত্রাসবিরোধী স্কোয়াড (ATS) সাহারানপুরের দারুল উলূম দেওবন্দ (Dar-ul-Uloom Deoband) থেকে একজন বাংলাদেশী নাগরিককে আগেই গ্রেফতার করেছিল। জানা যাচ্ছিল, ওই ব্যক্তি জাল নথির ভিত্তিতে ভারতীয় নাগরিক হিসেবে এখানে বসবাস করছিল। ওই বাংলাদেশির নাম তালহা তালুকদার। সে বাংলাদেশের কুমিল্লা জেলার দাউদ কান্দি থানার অন্তর্গত বারগুয়ালির বাসিন্দা। তালহার কাছ থেকে ATS আধার কার্ড, প্যান কার্ড, দারুল উলূম দেওবন্দের পরিচয়পত্র, লাইফ টাইম মেম্বারশিপ কার্ড, বাংলাদেশি মুদ্রা, বাংলাদেশি পাসপোর্টের ফটোকপি এবং ভারতীয় মুদ্রায় ১৫০ টাকা উদ্ধার করেছিল। 

দেওবন্দে অবস্থানকালে  আরবি আলিম অধ্যয়ন করছিল
ATS তথ্য পেয়েছিল যে তালহা নামে এক ব্যক্তি জাল নথির ভিত্তিতে দারুল উলূম দেওবন্দে বসবাস করছে  এবং দেশবিরোধী কার্যকলাপে লিপ্ত। বিবৃতিতে বলা হয়েছিল, ATS টিম এই তথ্যের ভিত্তিতে তদন্ত করে এবং দেখা গেছে যে তালহা নামে একজন ব্যক্তি দারুল উলূম দেওবন্দের ৬১  নম্বর কক্ষে বসবাসরত ও আরবি আলিম অধ্যয়ন করছে। এর পরে তালহাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হয়েছিল, এটিএস জানিয়েছে, তিনি নিজেকে ভারতীয় নাগরিক বলে দাবি করেছিল এবং তার বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য আধার কার্ড, প্যান কার্ড এবং দারুল উলূমের আজীবন সদস্যপদ  কার্ড দেখিয়েছিল। তবে কর্মকর্তাদের প্রশ্নের সন্তোষজনক জবাব দিতে পারেনি তালহা। 

জালিয়াতি, নথি জালিয়াতিসহ একাধিক ধারায় মামলা
বিবৃতিতে বলা হয়েছিল, কর্মকর্তারা তাকে তল্লাশি করলে তার পার্সে  বাংলাদেশি পাসপোর্টের একটি ফটোকপি পাওয়া যায় যার। কোনো সন্তোষজনক উত্তর  দিতে সে পারেননি এবং  নিজেকে বাংলাদেশি নাগরিক হিসেবে স্বীকার করে । বিবৃতিতে বলা হয়েছিল যে এটিএস তালহা তালুকদারকে দেওবন্দ থানায় প্রতারণা, জাল নথি, বিদেশী আইন এবং অন্যান্য প্রাসঙ্গিক ধারায় মামলা নথিভুক্ত করে গ্রেফতার করেছে। ATS-এর একটি অফিসিয়াল বিবৃতি অনুসারে, তালহা তালুকদার কীভাবে ভারতীয় নথি তৈরি করেছিলেন তা তদন্ত করা হচ্ছে এবং তার ভারতীয় লিঙ্কগুলিও খুঁজে বের করা হচ্ছে। 

নিজেদের হেফাজতে নিয়ে তদন্ত  ATS-এর
 ATS-এর হাতে ধরা পড়া দারুল উলূম দেওবন্দে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি ছাত্র তালহাকে আদালত থেকে হেফাজতে  নিয়ে পুঙ্খানুপুঙ্খ জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। মেঘালয় রাজ্য থেকে সে কীভাবে জাল আধার কার্ড তৈরি করেছিল তা ATS জানতে চায়। পাশাপাশি ATS তার ভারতীয় নেটওয়ার্ক গভীরভাবে তদন্ত করছে।

বাংলাদেশের বাসিন্দা তালহা তালুকদার বিন ফারুক ২০১৫  সাল থেকে দেওবন্দে বসবাস করছিল। মেঘালয় রাজ্য থেকে জাল আধার কার্ড ইত্যাদির মতো নথি পেয়ে সে দারুল উলূমে ভর্তি হয়েছিল।  দারুল উলূমের ছাত্রাবাসের ৬১ নম্বর কক্ষে থাকত তালহা। অবশেষে সাত বছর পর ATS-এর হাতে ধরা পড়ে সে। দেশবিরোধী কার্যকলাপে তার সম্পৃক্ততার তথ্য পাওয়ার পর বাংলাদেশি হওয়ার প্রমাণ পেয়ে জিজ্ঞাসাবাদের পর তাকে গ্রেফতার করে এটিএস। ATS-এর মতে, আদালত থেকে হেফাজতে রিমান্ডে নেওয়ার পর তালহাকে পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে, সর্বোপরি, কীভাবে এবং কার কাছে সে জাল নথি তৈরি করেছিলেন। তাদের নেটওয়ার্কও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

চাঞ্চল্যকর দাবি তালহার
জাল কাগজপত্রসহ গ্রেফতার  বাংলাদেশি নাগরিক তালহা তালুকদারের থেকে  গুরুত্বপূর্ণ তথ্য উঠে এসেছে। ২ দিনের হেফাজতে উত্তরপ্রদেশ এটিএস তালহাকে পেয়েছে।   তালহা টেলিগ্রামের মাধ্যমে নিজের জিহাদি সংযোগের কথা জানিয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে ,  বাংলাদেশি সঙ্গী আবদুল্লাহর মাধ্যমে জিহাদি সাহিত্য ও ভিডিওর একটি গ্রুপের সঙ্গে যুক্ত ছিল তালহা। আবদুল্লাহ ও তালহা তালুকদার দেওবন্দে মিলিত হয়। আবদুল্লাহই তাকে  নিরাপদ ব্রাউজার এবং ভিপিএন ব্যবহার করতে শিখিয়েছিল। তালহার কাছ থেকে বাংলা ভাষায় লেখা চারটি রেজিস্টার উদ্ধার করা হয়েছে। ইউপি ATS রেজিস্টারে লেখা জিনিসের অনুবাদ করছে।   ইউপি ATS তালহা তালুকদারকে ২৯ এপ্রিল জাল নথি সহ গ্রেফতার করে।