scorecardresearch
 

দেশের ১১ শহরে পৌঁছল 'কোভ্যাক্সিন', কেন্দ্রকে দান ১৬ লক্ষ টিকা

দেশীয় এই সংস্থাকে ৫৫ লক্ষ ভ্যাকসিন প্রস্তুতের বরাত দিয়েছে কেন্দ্র। সেই মোতাবেক গণভরম, গুয়াহাটি, পাটনা, দিল্লি, কুরুক্ষেত্র, বেঙ্গালুরু, পুনে, ভুবনেশ্বর, জয়পুর, চেন্নাই এবং লখনৌতে পাঠানো হয়েছে কোভ্যাক্সিন।

ফোটো- এএনআই ফোটো- এএনআই
হাইলাইটস
  • কেন্দ্র সরকারকে প্রায় ১৬ লক্ষ ৫০ হাজার টিকা দান করেছে ভারত বায়োটেক
  • দেশীয় এই সংস্থাকে ৫৫ লক্ষ ভ্যাকসিন প্রস্তুতের বরাত দিয়েছে কেন্দ্র
  • কোভ্যাক্সিনের ৫৫ লক্ষ ডোজ ও কোভিশিল্ডের ১.‌১ কোটি ডোজ দিয়ে ১৬ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে গোটা দেশে টিকাকরণ

সেরামের 'কোভিশিল্ড'-এর পর বড় সাফল্য ঘোষণা দেশীয় সংস্থা ভারত বায়োটেকের। বুধবারই দেশের ১১টি শহরে কোভ্যাক্সিন টিকা সফলভাবে বিমানে করে পাঠানোর কথা জানান হয়েছে এই সংস্থার তরফে। এছাড়াও কেন্দ্র সরকারকে প্রায় ১৬ লক্ষ ৫০ হাজার টিকা দানও করেছে ভারত বায়োটেক। 

বুধবার সংস্থার তরফে দেশবাসী, ক্লিনিকাল ট্রায়াল চলা স্বেচ্ছাসেবক সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতাও প্রকাশ করে। কোভিড ভ্যাকসিন তৈরির ক্ষেত্রে সকলের অবদান অনস্বীকার্য এমনই বার্তাই দেওয়া হয়েছে এদিন। দেশীয় এই সংস্থাকে ৫৫ লক্ষ ভ্যাকসিন প্রস্তুতের বরাত দিয়েছে কেন্দ্র। সেই মোতাবেক গণভরম, গুয়াহাটি, পাটনা, দিল্লি, কুরুক্ষেত্র, বেঙ্গালুরু, পুনে, ভুবনেশ্বর, জয়পুর, চেন্নাই এবং লখনৌতে পাঠানো হয়েছে কোভ্যাক্সিন।

আরও বেশ কয়েকটি এলাকায় বুধবার রাতে বিশেষ বিমানে করে এই ভ্যাকসিন পাঠান হবে তা জানান হয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছে, কোভ্যাক্সিনের ৫৫ লক্ষ ডোজ ও কোভিশিল্ডের ১.‌১ কোটি ডোজ দিয়ে ১৬ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে গোটা দেশে টিকাকরণ। পরিশোধিত এবং নিষ্ক্রিয় ডোজ ব্যবহার করে এই ভ্যাকসিন বানান হয়েছে। বায়ো কন্টেইনমেন্ট সুবিধায় ভারত বায়োটেকের বিএসএল -৩ (বায়ো-সেফটি লেভেল ৩)- পর্যায়ে তৈরি করা হয়েছে। 

দেখা গিয়েছে এই ভ্যাকসিনটির এপিটোপগুলি মেমরি টি কোষে প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে। এমনকী দীর্ঘমেয়াদি অ্যান্টিবডি তৈরির কাজও করছে এই টিকা সম্পূর্ণ সঠিকভাবে। এটিকে ২ থেকে ৮ ডিগ্রিতে সংরক্ষণ করা যায়।

বৃহস্পতিবারের মধ্যে গোটা দেশে প্রতিষেধক পাঠানোর কাজ সেরে ফেলার লক্ষ্য নিয়েছে কেন্দ্র। গণ-টিকাকরণের প্রথম দফার প্রথম পর্বে প্রায় ১ কোটি স্বাস্থ্যকর্মীকে প্রতিষেধক দেওয়া হবে।