scorecardresearch
 

Corona Lockdown| ফিরল লকডাউন! রায়পুর সম্পূর্ণ বন্ধ, দ্বিতীয় ঢেউ মারাত্মক, বলছেন বিশেষজ্ঞরা

Coronavirus| ইতিমধ্যেই দিল্লি, মহারাষ্ট্রের নাইট কার্ফু শুরু হয়ে গিয়েছে। মহারাষ্ট্রের অবস্থা শোচনীয়। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে ভারতে। এবং এই দ্বিতীয় ঢেউ আগের বারের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি খতরনাক বলেই জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা।

লকডাউন লকডাউন
হাইলাইটস
  • উদ্বেগ শিশু-যুবক-গর্ভবতী মহিলাদের নিয়ে
  • বারের চেয়ে বেশি দ্রুত গতিতে ছড়াচ্ছে
  • সবচেয়ে বেশি সংক্রমিত কলকাতায়

ঠিক বছর ঘুরতেই ফের লকডাউন! করোনা বিপজ্জনক ভাবে বাড়ছে। এ হেন পরিস্থিতিতে সম্পূর্ণ লকডাউনের ঘোষণা করা হল ছত্তীসগড়ের রায়পুরে। সে রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রোহিত সরদানা জানিয়েছেন, আগামী ৯ এপ্রিল থেকে ১৯ এপ্রিল পর্যন্ত সম্পূর্ণ লকডাউন থাকবে রায়পুর।  ইতিমধ্যেই দিল্লি, মহারাষ্ট্রের নাইট কার্ফু শুরু হয়ে গিয়েছে। মহারাষ্ট্রের অবস্থা শোচনীয়। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে ভারতে। এবং এই দ্বিতীয় ঢেউ আগের বারের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি খতরনাক বলেই জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা।

আরও পড়ুন: বিপজ্জনক! ১৫ দিনে দেশে দ্বিগুণ করোনা, মৃত্যুতে ষষ্ঠ বাংলা

দিল্লির লোকনায়ক হাসপাতালের এমডি ডাক্তার সুরেশ কুমার বলছেন, করোনার এই দ্বিতীয় ঢেউয়ে সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছেন যুবক, শিশু ও গর্ভবতী মহিলারা। তারাই এই দ্বিতীয় ঢেউয়ে বেশি আক্রান্ত হতে পারে।

সুরেশ কুমার জানাচ্ছেন, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আগের বারের চেয়ে বেশি দ্রুত গতিতে ছড়াচ্ছে। তাঁর হাসপাতালে গত সপ্তাহে ২০ জন করোনা আক্রান্ত ভর্তি হয়েছিলেন, এক সপ্তাহের মধ্যে তা বেড়ে ১৭০ হয়ে গিয়েছে।

ডাক্তারের কথায়, 'গতবার বেশি বরিষ্ঠ নাগরিকরা আক্রান্ত হচ্ছিলেন। এবারে চিন্তার বিষয় হল, বেশি আক্রান্ত হচ্ছে যুব সম্প্রদায়, শিশু, গর্ভবতী মহিলারা।'

ভারতে করোনা

ইতিমধ্যেই করোনা আক্রান্তে এখনও পর্যন্ত সর্বকালীন রেকর্ড ভারতে।  গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আক্রান্ত ১ লক্ষ ১৫ হাজার ৭৩৬ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ছাড়া পেয়েছেন ৫৯ হাজার ৮৫৬ জন। মারা গিয়েছেন ৬৩০ জন।  স্বাস্থ্যমন্ত্রকের ডেটা বলছে, দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮ লক্ষ ৪৩ হাজার ৪৭৩ জন। এখনও পর্যন্ত দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ কোটি ২৮ লক্ষ ১ হাজার ৭৮৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ১ লক্ষ ৬৬ হাজার ১৭৭ জনের। করোনাকে জয় করেছেন ১ কোটি ১৭ লক্ষ ৯২ হাজার ১৩৫ জন। করোনা টিকাকরণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে ৮ কোটি ৭০ লক্ষ ৭৭ হাজার ৪৭৪ জনের। গত রবিবার দৈনিক সংক্রমণের নিরিখে গত ২৪ ঘণ্টায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলকে টপকে গিয়েছিল ভারত।