scorecardresearch
 

Republic Day 2023: ভারতের প্রথম সাধারণতন্ত্র দিবসে কে ছিলেন প্রধান অতিথি? ফিরে দেখা ১৯৫০

Republic Day 2023: গণতন্ত্রের পথ প্রশস্ত করে ভারত আজ ৭৪-তম সাধারণতন্ত্র দিবসের শুভক্ষণে প্রবেশ করেছে। ১৫ অগাস্ট ১৯৫৪৭ সালে স্বাধীন হয় ভারত। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ছিল না কোনও স্থায়ী সংবিধান। ২৬ জানুয়ারি, ১৯৫০-এ ভারতের সংবিধান কার্যকর হয়। এই দিনটি উদযাপনে করা হয় সাধারণতন্ত্র দিবস। এই দিন থেকে ভারতকে গণতান্ত্রিক দেশ হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

 ২৬ জানুয়ারি ১৯৫০-এ ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রপতি ডঃ সুকার্নোর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহেরু ২৬ জানুয়ারি ১৯৫০-এ ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রপতি ডঃ সুকার্নোর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহেরু

Republic Day 2023: গণতন্ত্রের পথ প্রশস্ত করে ভারত আজ ৭৪-তম সাধারণতন্ত্র দিবসের (Republic Day 2023) শুভক্ষণে প্রবেশ করেছে। ১৫ অগাস্ট ১৯৫৪৭ সালে স্বাধীন হয় ভারত (India)। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ছিল না কোনও স্থায়ী সংবিধান (Constitution of India)। ২৬ জানুয়ারি, ১৯৫০-এ ভারতের সংবিধান কার্যকর হয়। এই দিনটি উদযাপনে করা হয় সাধারণতন্ত্র দিবস। এই দিন থেকে ভারতকে গণতান্ত্রিক দেশ হিসেবে ঘোষণা করা হয়। এদিন, ভারতের প্রথম রাষ্ট্রপতি রাজেন্দ্র প্রসাদ ৩১টি গান স্যালুট নিয়ে ভারতের পতাকা উত্তোলন (National Flag) করে পূর্ণ গণতন্ত্র ঘোষণা করেন। এরপর থেকে প্রতি বছর এই দিনটি সাধারণতন্ত্র দিবস হিসাবে উদযাপন হয়ে আসছে।

ভারত সংবিধান শাসিত গণরাজ্য। ২৬ নভেম্বর ১৯৪৯ সালে ভারত সংবিধান গ্রহণ করে। ভারতের পঞ্চবার্ষিকী যোজনার অনুপ্রেরণা নেওয়া হয় সোভিয়েত ইউনিয়ন থেকে। ২৬ জানুয়ারি ভারতের প্রথম নাগরিক রাষ্ট্রপতি পতাকা উত্তোলন করেন। রাজধানী দিল্লিতে এদিন কুচকাওয়াজ, অস্ত্র প্রদর্শন, ট্যাবলো প্রদর্শনের মধ্যে দিয়ে  বিশেষ দিনটি অনুষ্ঠিত হয়। এর ঠিক তিনদিন পর বিটিং দ্য রিট্রিট-এর মধ্যে দিয়ে সমারোহ শেষ হয়। 

১৯৫০-এ সাধারণতন্ত্র দিবস উদযাপনের কিছু তথ্য (Facts about 26 January, 1950)

১. রাজধানী দিল্লিতে রাষ্ট্রপতি ভবন থেকে ইন্ডিয়া গেট পর্যন্ত সাধারণতন্ত্র দিবস উদযাপনের প্যারেড অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু ১৯৫০-১৯৫৪ সালে সাধারণতন্ত্র দিবসের উদযাপনের স্থান রাজপথ ছিল না।

২. এই সময়সীমায় বর্তমান ন্যাশনাল স্টেডিয়াম, রিগাল সিনেমার সামনে ময়দান, কিংস ওয়ে, লাল কেল্লায় করা হয়েছিল। এরপর ১৯৫৫ থেকে রাজপথ ২৬ জানুয়ারির পাকাপাকি প্যারেড স্থানে পরিণত হয়। তখন রাজপথ কিংস ওয়ে নামে পরিচিত ছিল।

৩. ২৬ জানুয়ারির দিনটিতে প্রতি বছর কোনও না কোনও দেশের প্রধানমন্ত্রী বা রাষ্ট্রপতিকে অতিথি হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হয়। সেরকমই ১৯৫০ সালে ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রপতি ডঃ সুকার্নোকে আমন্ত্রণ জানানো হয়।

৪. ১৯৫৫ সালে রাজপথে প্রথম প্যারেড অনুষ্ঠানে পাকিস্তানের গভর্নর জেনারেল মালিক গুলাম মহম্মদকে প্রধান অতিথি হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হয়।

৫. স্থল, বায়ু ও নৌসেনার উপস্থিতিতে প্যারেড অনুষ্ঠিত হয়। এদিন রাষ্ট্রপতি পরমবীর চক্র প্রদান করেন। সেসময় প্যারেডে হত ঘোড়সওয়ারি, উট, হাতির ব্যবহার। সেনা-আধা সেনাদের উপস্থিতিতে এদিন মার্চ পাস্ট, অস্ত্র প্রদর্শন করা শুরু হয়।

৬. মহাত্মা গান্ধীর পছন্দের গান 'অ্যাবাইড উইথ মি' গানটির সুর ১৯৫০ সালে প্ৰথমবার বিটিং দ্য রিট্রিটে বাজানো হয় সেনা ব্যান্ডের দ্বারা। সেইদিন থেকে আজও এই দিন  'অ্যাবাইড উইথ মি' গানটির সুর বাজানো হয়।

৭. সেসময় উন্মুক্ত বগীগাড়ীতে চেপে সৈন্যদের প্রহড়ায় অনুষ্ঠানে আসতেন রাষ্ট্রপতি।

৮. তখন কোনও ট্যাবলো প্যারেডে অংশগ্ৰহণ করত না। শুধুমাত্র সেনাবাহিনীর ব্যান্ড অনুষ্ঠান সঞ্চালন করত। (Picture Credits: Getty Images)