scorecardresearch
 

Tata Steel: ২ বছর বন্ধ কারখানা, কেনার ৩ মাসেই চালু করলেন টাটা

Tata Steel: ২ বছর ধরে বন্ধ থাকা কোম্পানি কিনেই, ৩ মাসের মধ্যে চালু করেন দিলেন Ratan Tata। দেশের অন্য দুই শীর্ষ ইস্পাত কোম্পানিকে প্রতিযোগিতা থেকে ছিটকে দিয়ে এই কোম্বানি অধিগ্রহণ করেছিলেন টাটা। মোটা টাকা খরচও করেছে তারা। আসুন জেনে নিই পুরো বিষয়টি।

টাটার হাতে পড়তেই  ২ বছর ধরে বন্ধ কোম্পানির প্রোডাকশন শুরু টাটার হাতে পড়তেই ২ বছর ধরে বন্ধ কোম্পানির প্রোডাকশন শুরু
হাইলাইটস
  • ২ বছর ধরে বন্ধ থাকা কোম্পানি কিনে নিয়েছিল টাটা
  • ৩ মাসের মধ্যে চালু করেন দিলেন Ratan Tata

Tata Steel: সরকারি ছত্রছায়া থেকে বেরিয়ে নীলাচল ইস্পাত নিগম লিমিটেড (NINL) এবার পৌঁছলো টাটা গ্রুপের (Tata) হাতে। এই ইস্পাত কোম্পানি টাটার হাতে যেতেই আরও একবার প্রোডাকশন শুরু করে দিয়েছে। ক্ষতির মুখে চলতে থাকায় কোম্পানিকে সরকার টাটা গ্রুপের হাতে সঁপে দেয়। নীলাচল কোম্পানির এই প্লান্ট দুই বছর থেকে বন্ধ পড়েছিল। কিন্তু টাটা গ্রুপের (Tata Group) হাতে দায়িত্ব আসার পরেই কোম্পানি কলেবর বদলে যায় এবং এটি আরও একবার অপারেশনাল হয়ে গিয়েছে। টাটা স্টিল লং প্রোডাক্টস লিমিটেড (Tata Steel) এবং এনআইএনএল (NINL) এর প্রেসিডেন্ট জানিয়েছেন যে আমরা খুব দ্রুত চালু করতে চেয়েছিলাম এবং তা দ্রুত শুরু করা হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ সস্তায় Samsung-এর ফোন লঞ্চ, ৫০ mpx ক্যামেরা সহ রয়েছে দুর্দান্ত ফিচার

৯০ দিনের মধ্যে লক্ষ্য পূরণ

টাটা স্টিলের সিইও পিবি নরেন্দ্রনাথ (Tat Steel Ceo PB Narendranath) জানিয়েছেন যে তাঁদের পরিকল্পনা ছিল উৎপাদন ধীরে ধীরে রেটেড ক্ষমতা পর্যন্ত বাড়ানো । এখন তার ওপরই মনোযোগ দিচ্ছে কোম্পানি। অগাস্ট মাসে তিনি বলেছিলেন যে নীলাচল ইস্পাত নিগম লিমিটেডের প্লান্ট আগামী তিন মাসের মধ্যে শুরু হতে চলেছে। স্টিল লং প্রোডাক্টের তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে ৪ জুলাই ২০২২ এ অধিগ্রহণ করা হয় কোম্পানি। তারপর ঠিক তিন মাসের মাথায় এনআইএনএল এর ব্লাস্ট ফারনেস (Blast Furnace) ফের কার্যকর করা হয়েছে।

টাটা স্টিল


টাটা কত টাকা খরচ করেছে

টাটা স্টিল ওড়িশায় স্থিত নীলাচল ইস্পাত নিগম লিমিটেড অধিগ্রহণ করার পর প্রায় ১২ হাজার ১০০ কোটি টাকা খরচ করেছে এটিকে পুনর্ব্যবহারযুক্ত করতে। এ বছর ৪ জুলাই থেকে সমস্ত সংযুক্ত উদ্যোগপতি অংশীদারদের ৯৩.১% শেয়ার ট্রান্সফারের পর এনআইএনএল টাটার মালিকানাধীন হয়ে গিয়েছে। এয়ার ইন্ডিয়ার পর এটি দ্বিতীয় সরাকরি কোম্পানি, যা টাটার হাতে চলে এল।

আরও পড়ুনঃ পুজোয় ঘুরতে বেরিয়ে সঙ্গে রাখুন এই জিনিস, জলের অভাব মিটবে; হজমও ভাল হবে

কোম্পানির উপর মোটা টাকা ঋণের বোঝা ছিল

নীলাচল ইস্পাত নিগম লিমিটেডের কলিঙ্গনগর ১.১ মেট্রিক টন ক্ষমতা ওয়ালা ইন্টিগ্রেটেড স্টিল প্লান্ট ছিল। এটি কোম্পানির মোটা টাকা লসে চলছিল। এর উপর ৩১ মার্চ ২০২১-এ ৬৬০০ কোটি টাকার ঋণ চেপে বসে। এরপর সরকার এটি নিজের হাতে নেয় এবং একটি রিপোর্টে বলা হয়েছে টাটা বছরে ২০ মিলিয়ন টন ইস্পাত উৎপাদন করে এবং এটি দেশের শীর্ষ তিনটি ইস্পাত কোম্পানির মধ্যে একটি। রিপোর্ট অনুসারে টাটা স্টিলের ইউনিট টিএসএলপি, এ বছর জানুয়ারিতে জিন্দাল স্টিল অ্যান্ড পাওয়ার, নলোয়া স্টিল অ্যান্ড পাওয়ার লিমিটেডে কোম্পানিকে পিছনে ফেলে অকশনে এনআইএনএল অধিগ্রহণ করে নেয়।