scorecardresearch
 

আত্মরক্ষায় বাগদায় গুলি, বলছে কমিশন, সপ্তম ও অষ্টম এবার একদফায়?

যে হারে রাজ্যে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে তাতে শেষ দুই দফা এক বারে করা যায় কিনা তা আরও একবার খতিয়ে দেখতে চাইছে নির্বাচন কমিশন। আর সেই কারণেই শুক্রবার বিকেলে ফের একবার বৈঠকে বসছে নির্বাচন কমিশনের ফুল বেঞ্চ।

 ষষ্ঠ দফার ভোট শান্তিতেই বলছে কমিশন ষষ্ঠ দফার ভোট শান্তিতেই বলছে কমিশন
হাইলাইটস
  • ষষ্ঠ দফার ভোট শান্তিতেই বলছে কমিশন
  • রাজ্য পুলিশ গুলি চালিয়েছে মানল কমিশন
  • হামলাকারীদের থেকে বাঁচতেই গুলি চালান হয়

রাজ্যে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। এই পরিস্থিতিত আট দফার ভোট নিয়ে আপত্তি তুলেছিলেন অনেকেই। তবে তার মধ্যে ইতিমধ্যে ষষ্ঠ দফা সম্পর্ণ হল। এখনও বাকি সপ্তম ও অষ্টম দফা। কমিশনের নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী আগামী ২৬ এপ্রিল রয়েছে ষষ্ঠ দফা। আর ২৮ এপ্রিল হবে অষ্টম দফা। সূত্রের খরর, যে হারে রাজ্যে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে তাতে শেষ দুই দফা এক বারে করা যায় কিনা তা আরও একবার খতিয়ে  দেখতে চাইছে নির্বাচন কমিশন। আর সেই কারণেই শুক্রবার বিকেলে ফের একবার বৈঠকে বসছে নির্বাচন কমিশনের ফুল বেঞ্চ। বিকেল চারটের সময় শুরু হওয়া এই বৈঠক হবে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমেই।

এদিকে রাজ্যে শেষ তিন দফার ভোট একবারে চেয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেস। সেই আবেদন যে রাখা সম্ভব নয় তা জানিয়ে দিয়েছিল কমিশন। বৃহস্পতিবার ফের একবার কমিশনের কাছে শেষ দুই দফার ভোট একসঙ্গে করার আর্জি জানিয়েছে রাজ্যের ক্ষমতাসীন দল।  

এদিন নির্বাচনপর্ব মেটার পর কমিশন জানিয়েছে, ষষ্ঠ দফার ভোট শান্তিপূর্ণ হয়েছে। এদিন মোট ৪৩টি আসনে ভোটহয়েছে। সারাদিনে অভিযোগ জমা পড়েছে ১৯৯২টি। মোট গ্রেফতারির সংখ্যা ৪২৫। আটক হয়েছেন ১৬২ জন। ব্যারাকপুরে অশান্তির ঘটনায় আহত হয়েছেন ৩ জন। গ্রেফতার করা হয়েছে দু'জনকে। এদিকে বাগজার ৩৫ নম্বর এবং ৩৬  নম্বর বুথে তিন রাউন্ড গুলি চলেছে বলে জানিয়েছে কমিশন। দু'জন আহত হয়েছে। তাঁদের মধ্যে  একজন ওসি এবং আরেকজন কনস্টেবল। তাদেরকে বাগদা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

হামলাকারীদের থেকে বাঁচতেই গুলি
বাগদায় গুলি চালিয়েছে পুলিশ, জানাল কমিশন। বাগদার ঘটনায় কমিশন জানিয়েছে, হামলাকারীদের থেকে বাঁচতেই গুলি চালানো হয়েছিল। কমিশন বলছে, বাগদার ৩৫ এবং ৩৬ নম্বর বুথে ভোট চলাকালীন প্রায় আড়াইশো মানুষ একসঙ্গে জমায়েত হয়েছিলেন। তার পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। তারপর বাধ্য হয়ে রাজ্যের পুলিশ তিন রাউন্ড গুলি চালিয়েছে। ঘটনায় একজন ওসি এবং অন্যজন কনস্টেবল আহত হয়েছেন। তাদেরকে বাগদা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।  তিন রাউন্ড গুলির আঘাতে একজন গুরুতর আহত হয়েছেন। তাঁর নাম বুদ্ধ সাঁতরা। পায়ে গুলির আঘাত লেগেছে। আরেকজনও গুরুতর আহত হয়েছে। এই ঘটনায় সাত জনকে গ্রেফতারকরা হয়েছে।